» আজ সকালটা

প্রকাশিত: ১২. অক্টোবর. ২০১৯ | শনিবার


এলিজা আজাদ

যতবার ঘাপটি মেরে আঁধার হৃৎপিণ্ডে দিয়েছে হানা ততবার দুঃখমাঠ পেরিয়ে ফিরেছি আমি আলোতে…
বেলকনির দরজাটা খোলা রাখা অনেক দিনের অভ্যেস
গতকালও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি
ঘুমের মেডিসিন ছিলোনা বিধায় ঘুম দু-চোখর পাতায় ভর করতে চাইছিলো না কিছুতেই

অনেকটা দূরত্ব মেইনটেইন করেই আমার চারপাশে ঘোরাঘুরি করছিলো
আমিও ওকে না দেখার ভান করে নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করেছি
ব্যস, ভোরের আজানের সাথে সাথে কিছুটা বাধ্য হয়েই পাশে বসে আদরে আদরে ভরিয়ে দিয়ে আমার চোখের পাতায় ভর করে বসলো
এরপর, হ্যাঁচকাটানে টেনে নিয়ে গেলো স্বপ্নের দেশে
এ-এক ভিন্ন জগত
মাথার ওপর নীলাকাশ তবে পৃথিবীর মতো নয়
হাত বাড়ালেই আকাশটাকে ছোঁয়া যায়
ওর দুধ-সাদা মেঘের ভেলায় ভেসে ভেসে নিজেকে হালকা-পলকা তুলোর মতোই মনে হয়

ওখান থেকেই তোমার অযুত তাঁরাখচিত ঘরটা দেখা যায়
চাইলে তোমাকে ছুঁয়ে আসতে পারি
কিন্তু, ঘুমন্ত তুমি যেনো এক মায়া জড়ানো নগরী
তোমার ঘুম ভাঙাতে আমার ইচ্ছে করে না
তবু, গাল চুমে-ঠোঁট চুমে এমনকি সমস্ত শরীরজুড়ে আমার হাতের স্পর্শের ছাপ রেখে আমি চলে আসি
মায়াঘেরা পৃথিবীতে তুমি বেশ আরামেই আছো ভাবতে ভাবতেই আমার চোখ খুলে যায়
কানে স্পষ্ট চড়ুইদের কিচিরমিচির শব্দ
ওরা আনন্দের মেলা বসিয়েছে আমার বেলকনিতে
চোখ কচলাতে কচলাতে ওদের কাছে গিয়ে দাঁড়াতেই ওরা একলহমায় ফুড়ুৎ

আশ্চর্য এতোদিনেও ওরা আমার বন্ধু হতে পারেনি নাকি আমি পারিনি তা বুঝতে মগজে জট পাকিয়ে যায়
কিন্তু, পরক্ষণেই ভাবনাযুক্ত মস্তিষ্কের স্নায়ুকোষ তরতাজা প্রাণ ফিরে পেয়ে বুঝিয়ে দেয় ফুড়ুৎ হয়ে যাওয়াই ওদের স্বভাব
তবুও ওরা তো-মা-র-ই বন্ধু–

তোমার অতি যত্নে ছড়িয়ে দেয়া চালের দানা আর পাশে রাখা একবাটি স্বচ্ছ পানি ওদের ন্যায্য অধিকার
ওরা সেই অধিকারটুকু আাদায় করতেই রোজ বেলকনিতে আসে
আমার মনে তখন আলোর নাচন খেলে যায়
আমি ওদের অধিকার আদায় থেকে নিজের অধিকারটুকু শিখতে চেষ্টা করি
আর মনে মনে বলি তোরা আমার বন্ধুরও অধিক হে পাখিদল।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৬৪ বার

Share Button

Calendar

June 2020
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930