» আমরা এই নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের বিচার চাই

প্রকাশিত: ১৪. ফেব্রুয়ারি. ২০১৯ | বৃহস্পতিবার

পলা দেব

এ রকম ঘটনা কিছুতেই মেনে নেবার নয় । ছেলেটিকে আমরা খুব ছোট দেখেছি । ইয়োগেন নামে ডাকতাম । পুরো নাম ইয়োগেন হেনছি গোনসালভেজ ।বয়স ২০ থেকে ২২ ।চট্টগ্রামে কোতোয়ালির পাথরঘাটা এলাকায় ম্যাকলিন গোনসালভেজের ছেলে সে । ওর মাকে আমরা রানু মাসী বলে ডাকতাম ।ইয়োগেন ছিল নিষ্পাপ আত্মভোলা টাইপের ছেলে । সে ঢাকায় পড়তে এসেছিল ।নটরডেম কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল সে । গতকাল রাজধানীর সবুজবাগ এলাকায় কদমতলার একটি বাসা থেকে হাত-পা-মুখ বাঁধা অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সবুজবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কুদ্দুস ফকির বলেন, গত রাতে খবর পেয়ে বাসা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহতের পেটে সাতটি ও পিঠে চারটি ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। হাত ও পা কাপড় দিয়ে বাঁধা ছিল। বিষয়টি তদন্ত চলছে। খবরটি শুনে আমরা চমকে উঠি ।
পুরান ঢাকার নারিন্দা এলাকায় একটি বাসায় মামাতো বোন শিপ্রার সঙ্গে থাকতো ইয়োগেন ।
ইয়োগেনের ভগ্নিপতি রোমেন পিনারু জানিয়েছেন , মামাতো বোন শিপ্রা বাসায় না থাকায় গত শুক্রবার বোন ডালিনের নদ্দার বাসায় যায় ইয়োগেন। মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে কলেজে যাওয়ার উদ্দেশে বাসা থেকে বের হয় সে।
তিনি আরও জানান, রাত ১০টা পর্যন্ত বাসায় না আসায় ইয়োগেনের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু কয়েকবার রিং হওয়ার পর তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। পরে রাত দেড়টার দিকে তারা সংবাদ পান কদমতলার একটি বাসায় ইয়োগেনের লাশ পাওয়া গেছে। রাতেই তারা লাশটি শনাক্ত করেন।
ইয়োগেন কিছু দিন আগে রবি কল সেন্টারে চাকরির জন্য ট্রেনিং করেছিল। তার কেন কারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে তা জানাতে পারেননি তিনি।
এ ঘটনায় বুধবার ভোরে অজ্ঞাত আসামি করে সবুজবাগ থানায় মামলা দায়ের করেছেন নিহতের বোন ডালিন সিল গনসালভেজ।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সবুজবাগ থানার এসআই কামরুজ্জামান বলেন, আমরা যতদূর জেনেছি, যে বাসাটিতে লাশ পাওয়া গেছে সেটি কয়েকদিন আগে ভাড়া নিয়েছিল ইয়োগেন। গতকাল এসেছিল বাসা পরিষ্কার করার জন্য। রাত ১১টার দিকে খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। লাশের পাশে একটি অর্ধেক জুসের বোতল ও কয়েকটি খালি বোতল পাওয়া যায়। এছাড়া রুমে ছড়ানো অবস্থায় কেরোসিন ছিল। কেন এমন হলো। আমার জানা মতে এতো সহজ সরল এই ছেলেটির কোন শত্রু ছিল না। তাহলে কারা তাকে এতো নিষ্ঠুর ভাবে হত্যা করলো! আমরা এই নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের বিচার চাই ।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৭১২ বার

Share Button