» আশীর্বাদ কিংবা অভিশাপ’

প্রকাশিত: ১৫. জুলাই. ২০২০ | বুধবার

হাসিদা মুন

মখমল মসৃণ অন্ধকার , মেঘ ভাসমানতায় ছড়ায় বিভ্রান্তিকর জগতে শ্রান্তির সান্ত্বনা । নীরবতার আরশী উড়ে , এ যেন মনের সাথেই কথা কইছে মন , মনের রেলিং ধরে দাঁড়িয়ে …
পুরোনো দৃষ্টি্র পিছনে পুরানো প্রতিচ্ছবিতে নতুন রংতুলি বুলায় হাত আটপৌরে জীবন বিলাসে । গোপন কোনো গ্র্যান্ড গ্রামোফোন থেকে সুর বেরিয়ে আসে ,চাঁদের গান গেয়ে প্রতিযোগিতা হারিয়ে দূরে হারায় চাঁদ নিজেই । নিজের বাল্যকালের শেলফে তাঁর কোন কাঁদবার কাহিনী নেই আর্কাইভে রাখার মতো করে । অস্তিত্বের বেড়াজালে চারিদিকের দৃশ্য বিস্তীর্ণ ও অবাধ যেন ধূসর মরু ।

ভাসমান জানাজানি বিভ্রান্তিকর জগতে যে অস্তিত্ব আনে এসব জানা’রা আমি নগ্ন না বা পরিহিত কিনা জানেনা – তা সত্ত্বেও ক্লান্তিকর সেসব পর্যায় মানেনা বেমানান তোতা’র শেখানো বুলি বলে । মুখ অবয়বে এসে বসে ,মাথার সমস্ত দিক থেকে মাটির দিকে তাকিয়ে থাকে নিবিষ্ট দৃষ্টিতে ।
আমি স্থির ফাঁক খুঁজে ক্রমাগত আশপাশ দেখি আশাবাদী বাক্যাংশ সবচেয়ে কুচুটে মিশ্রণ এ যাবত বুঝাবুঝির ভাগশেষে রয়ে যায় । কুমারী ঋত্বিক শরীরের ভাষার বিরুদ্ধে রাখা যায়না অসতীত্ব , এটিতেও সম্পূর্ণরূপে বিকশিত বা না হয় রহস্য অবশেষ, ছড়ায় জানাজানির শেষ ধাপে । পুরানো সিজোফ্রেনিক ধারণা বৈদ্যুতিক বাল্বের মত অলৌকিকভাবে ছিঁড়ে যায় যখন । মন সম্পর্কে কিছুটা বিরক্তিকর রায় উচ্চারণ করে মনেমনেই ।

জানবার ক্ষুধার্ত অস্থির চোখের কোণে চেয়ে দেখি সর্বোচ্চ স্তরে , অতীতের স্তরের বেশ অনেকটা জুড়ে বহুব্রীহি শ্রুতিকল্প । মুখ , বুক , চোখ , হৃৎপিণ্ডের চলমান সাটিন সমতলেও দেখা যায় – ব্যাপক চরাই উৎরাই ।
সম্পূর্ণরূপে নিশ্চিত নই এমনও জানা হৃদয় মিথ্যা দিয়ে পূর্ণ করা , ঠাইহীন অন্ধকার কূপ দেখার মতো ঝুঁকেও আশাহত হতে থাকা । সব ফাঁকা সারৎসার ।
সৎ হতে উরঙ্গ লজ্জায় সড়সড় করে সরে যাই , কণ্ঠস্বর ,কয়েকটি নীরব ভুল বোঝাবুঝির পর মোটামুটি শরীরের ভাষাকে বিরুদ্ধে রেখে মন দিয়েই বুঝে নিই । মাটির উপরের পরবর্তী ধাপ হলো – মাটিতেই ফিরে যাওয়া …
জীবন চলে যায়
গড়িয়ে মৃত্যু কাছে আসে ,
তার সময় ও সুযোগের কথা কেউ জানে না ।
জানেনা এটি আশীর্বাদ অথবা অভিশাপ …

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১১৪৭ বার

Share Button

Calendar

August 2020
S M T W T F S
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031