শিরোনামঃ-


» একজন মনোয়ার হোসেন এবং তার প্রথম ও দ্বিতীয় জীবন

প্রকাশিত: ০২. জুন. ২০১৯ | রবিবার

শাহাদত বখ্ত শাহেদ

আমেরিকা প্রবাসি সিলেট শহরের পরিচিত ও জনপ্রিয় মুখ মনোয়ার হেসেন মনোয়ার ভাই।যার জন্ম হাওয়াপাড়ায়। যিনি আমেরিকা প্রবাসি হলেও বছরে অন্তত ৩/৪ বার দেশে আসতেন।

দেশ মাতৃকার টানে তার এই আসা যাওয়া। বিশেষ করে বৃদ্ধা অসুস্হ মা ‘কে দেখতে এবং তার চিকিৎসা সেবার খোজ খবর নিতে ।

মা র প্রতি তার অসাধারণ টান ছিল। আমি অনেক প্রবাসিদের দেখেছি কিন্তু মনোয়ার ভাইকে আমার কাছে একটু ব্যতিক্রম মনে হয়েছে। দেশে তার পরিবারে অন্যান্য্য সদস্যরা থাকলেও মায়ের প্রতি তার দায়িত্ববোধ সত্যিই মনে রাখার মত। আমাদের দেশে অনেক প্রবাসি ও বিত্ববানরা আছেন যারা বৃদ্ধ বাবা মাকে বৃদ্ধাশ্রমে রাখেন। নিয়মিত খোঁজ খবর নেননা। বাবা মা’রা স্বজনহারা হয়ে ধুকে ধুকে পৃথিবী থেকে চির বিদায় নেন। মনোয়ার ভাই সে ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম তিনি প্রবাসে থেকেও সরাসরি মার পাশে থেকে সেবা করে মার অনেক দোয়া কুড়িয়েছেন। মার সেবা করা মানে আল্লাহর রহমত পাওয়া। সে ক্ষেত্রে তিনি ভাগ্যবান।

বেশ কিছুদিন হলো, মনোয়ার ভাই তার মা কে হারিয়েছেন।বাবাকে হারিয়েছেন সেই অনেক বছর আগে। তিনি আমার মত মা বাবা হারা।

মনোয়ার ভাই ভাগ্য অন্বেষণে প্রবাসে থাকলেও নিজের ভাগ্যের পাশাপাশি তার নিজ পরিবারের অনেকের উন্নতির পিছনে তার যথেষ্ট সহযোগিতা রয়েছে। সমাজে একজন দায়িত্বশীল মানুষ হিসেবে তার অবদান সত্যিই চোখে পড়ার মত।

এই তো কিছুদিন আগে মনোয়ার ভাই আমেরিকায় তার বাসায় হঠাৎ হৃদরোগে
আক্রান্ত হলে তাকে সরাসরি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ডাক্তারদের ভাষ্য অনুযায়ী তার শারীরিক অবস্হা খুবই জটিল ছিল। ডাক্তার বলেন তার মত রোগি হাজারে একজন পাওয়া যায়। রোগিকে সময় মত হাসপাতালে আনাটাই
অনেকের সম্ভব হয় না যার ফলে রোগীকে বাঁচানো কঠিন হয়। মনোয়ার এ ক্ষেত্রে ভাগ্যবান তিনি সময় মত হাসপাতালে আসতে পেরেছেন।

মনোয়ার ভাইয়ের হার্টে ৫টি ব্লক ছিল। কিডনি, লিভার,নার্ভ সব কিছুর উপর প্রচন্ড চাপ ছিল। আল্লাহর রহমতে তার সফল ভাবে তার “এনজিও গ্রাম হয়েছে এবং দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর কিছুদিন হলো বাসায় ফিরেছেন। ডাকতার তাকে শংকামুক্ত বলেছেন এবং কিছুদিন বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি আপাতত বিশ্রামে আছেন।

গতকাল মনোয়ার ভাইয়ের সাথ ম্যাসন্জারে দীর্ঘ সময় তার অসুস্হতা ও তার চিকিৎসা নিয়ে আলাপ হয়েছে। তিনি তার সব কিছু আমাকে শেয়ার করলেন।
তিনি বললেন আল্লাহর রহমতে এবং আমেরিকার মত দেশে উন্নতমানের চিকিৎসা সেবা এবং স্বজনদের দোয়ার বরকতে তিনি দ্বিতীয় জীবন পেয়েছেন। মনোয়ার ভাই বললেন আজ শবে কদরের রাত তিনি জামাতে তেরাবি পড়েছেন রোজাও রাখবেন। তিনি আমার মাধ্যমে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। তার জন্য সবাই যেন আল্লাহর দরবারে দোয়া করি।

মনোয়ার ভাই আপনি তাড়াতাড়ি সুস্হ হয়ে উঠুন আবার আগের জায়গায় ফিরে আসুন সেটাই আপনার আত্মীয় স্বজন,বন্ধু বান্ধব, শুভাকাঙ্ক্ষীদের কামনা থাকলো।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৪৮ বার

Share Button