» একুশে গ্রন্থমেলায় কবি রেহানা সুলতানার “আমলকী মৌ “

প্রকাশিত: ২৩. ফেব্রুয়ারি. ২০২০ | রবিবার

‘ আমলকী মৌ’ গল্পগ্রন্থে কিছু মানুষের পাওয়া না পাওয়ার গল্প ও ছন্দে ছন্দে মিলিয়ে কবিতাগুলো ও উঠে এসেছে। গল্পগুলোতে ও কবিতার মধ্যে যেমন আছে মানুষের দৈনন্দিন জীবনের কঠিন হিসেব, পাশাপাশি সরলরেখার মতো কিছু সরল চিত্রও উঠে এসেছে যা পড়ে পাঠক অনুভব করবেন জীবনের কোনটা সত্য আর কোনটা মিথ্যে।

কে আপন আর কে পর- জীবনের এই পরম সত্য নির্ণয় করতে গিয়ে মানুষ গোলকধাঁধায় পড়ে এবং একসময় সে এখান থেকে আর বের হতে পারে না। এই বইতে সেই গোলকধাঁধার বিচিত্র কাহনও লিপিবদ্ধ রয়েছে।

হৃদয়বান কবি লেখক রেহানা সুলতানা একটি কবিতার বই সদ্য প্রকাশিত হয়েছে সুবর্ণ প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান থেকে এবার ২০২০ একুশে গ্রন্থমেলা উপলক্ষে। লেখক কবি রেহানা হৃদয় নিংড়ানো বেদনার মূর্ত প্রকাশ। এর প্রতিটি ছত্রে রয়েছে স্বদেশের আত্মানুসন্ধানের তীব্র আকুতি, শিকড় সন্ধ্যানে উদগ্র আকাঙ্খা,স্বদেশপ্রেমের অনির্বাণ শিখা। ত্রিশ লাখ প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা,একাত্তরের অগ্নিঝরা দিনগুলোর রক্তের বিনিময়ে পরমকাম্য অর্জনের পরিতৃপ্তি কিভাবে মাত্র ক’জনে অপচেষ্টা এবং প্রতিহিংসার আগুনে ঝলসে যেতে পারে, ক্ষমতার সীমাহীন দাপটে কিভাবে মানবাধিকার লাঞ্ছিত হয় এবং আইনের প্রভাব কিভাবে নিঃস্ব এবং অর্থহীন হয়ে পড়ে শক্তিমত্তার নির্লজ্জ আস্ফালনে তারই সুস্পষ্ট ছবি এই ছোট্ট কবিতার বইটির মধ্যে লেখক রেহানা সুলতানা সুস্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়ে তুলে ধরেছেন।

বইটির এই দুর্নিবার আকর্ষণের মূলে রয়েছে তরুণ কবির আত্নিক আবেদন, সমকালীন সময়ের সমাজের যে শৃঙ্খলাহীন অসুস্থ অবস্থা বিরাজ করছে তার প্রত্যক্ষ শিকার কবির মানসিক যন্ত্রণার করুণ ত্রুন্দন এবং সবকিছু জয় করে মৃত্যুর কালোছায়ার মধ্যেও বলিষ্ঠ জীবনের জয়গানের ঔজ্জ্বল্য। কবির সতেজ মন তার সৃষ্টির মধ্যে জীবন্ত থেকে আকর্ষণ করেছে বইটির প্রত্যেকটি ভাবনা ছন্দনগুলো। তার যন্ত্রণায় প্রতিফলিত হতে দেখেছি আমারই বেদনাবিধুর মনকে। তার আকাঙ্খা তার একার নয়। বরং এ দেশের সবার। তার বিশ্বাস সবার বিশ্বাস। লেখক কবি রেহানা সুলতানা তার সাথে একাত্ন হয়ে গর্বিত বোধ করছি। তাই বলি কবিতা ও ছন্দের ভাষায় “রেহানা সুলতানা,তুমি রয়েছো এ জাতির মনের মনিকোঠায়। কেউ তোমার কেশাগ্র ও স্পর্শ করতে সক্ষম নয় “। এই ” আমলকী মৌ” বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে এমন একজন আত্নজা..আনিকা হোসেনকে “। এধরনের কৃতিত্ব ব্যক্তিকে যাঁরা নিজস্ব আলোকে উজ্জ্বল, জাতীয় চেতনার প্রতিভূ ও জাতীয় স্বার্থের বাহক হিসেবে প্রতিভাবান জেগে উঠেছে তাদের মধ্যে। তাদের পরিচয় দেবার কোনো প্রয়োজন নেই। মাত্র ৬৮ টি কবিতাগুচ্ছ ছন্দ কবিতার এক সমৃদ্ধ এবং গৌরবময় মালা যেন বইটি এই ” আমলকী মৌ ” বইটি । কবিতা ছন্দ গুলোর মধ্যে রয়েছে কবি রেহানা সুলতানার স্বপ্ন, কবির সাধনা, কবির দেশপ্রেম, কবির বিশ্বাস, কবির ক্ষোভ এবং আক্ষেপ। কবিতা শুরু হয়েছে কবির যুগ যুগ ধরে লালন করা আকুতি যেমনঃ”তুমি আমার কাজের ফাঁকে –
প্রিয় নিয়ম অল্প
তুমি আমার বেলা শেষের
তুমি ভরা গল্প..।

দ্বিতীয় টি হচ্ছে যেমনঃ

ঘুম ঘুম কুয়াশা চাদর
মোম গলা ওমের খোঁজ,
ওম ওম বালিশে রোদেলা আদর
তুমি তুমি গন্ধ হররোজ….
এই কবিতা সমগ্র ও ছন্দের ভাষায় কবি রেহানা সুলতানা সুস্পষ্ট ইঙ্গিতে প্রতিচ্ছবি রূপকথাতে প্রমাণিত করে ফুটিয়ে তুলেছেন লেখক। এই দেশের জন্য জনগণ কিভাবে আত্মদান করেছে,রেহানা সুলতানা তা ভালো করে জানেন। জানেন এজন্যে তাকেও কত ত্যাগের অধ্যায় রচনা করতে হয়েছে । বুক ফুলিয়ে, মাথা উঁচু করে পথ পরিক্রমার জন্যে এদেশ হয়ে ওঠে কাঙ্ক্ষিত এক ভূমি । গণতন্ত্রের মহোৎসবে মেতে ওঠে জনগণ । হাজার হাজার লালিত স্বপ্নের বাস্তবায়নে সবাই হয়ে ওঠেন হর্ষোৎফুল্ল। তারিসাথে মানবাধিকার সংরক্ষণের অঙ্গীকারে এতোদিনের হতাশা দূর হয়ে নতুন আশার আলোকে চারদিকে উজ্জ্বল হয়ে ওঠে যেমন। ঠিক সেই বিষয়টি সম্পুর্ণ ভাবে একটি কবিতা সমগ্র এই বইটি প্রকাশিত করে সার্বিক বিষয়ে সবকিছুই ফুঁটিয়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন লেখক কবি রেহানা সুলতানা।

সংক্ষিপ্ত পরিসরে নোট পরিচিতি লেখকের- বিশেষ কোন অর্জন নেই এ লেখকের। ১৯৭৪ সালের ২৮ ডিসেম্বর জন্ম। শৈশব থেকে তারুণ্য কেটেছে সবুজ টিলা ঘেরা বাংলাদেশের আধ্যাত্মিক রাজধানী খ্যান ৩৬০ আউলিয়ার পূর্ণভূমি হযরত শাহজালাল ও শাহ পরান(রহঃ) এর পূর্ণময় নগরী সিলেট মেডিকেলের সরকারি বাসভবনে । সিলেটের সজীব পরিবেশ পাকাপাকি বন্দী করে নিয়েছেন মনে, মননে। তার লিখায় তা প্রতিফলিত হয়। ঢাকা থেকে পদার্থবিদ্যায় স্নাতক করে পরিবারের সাথে পাড়ি জমান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুল্লুকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন এয়ারলাইন্স ইন্ডাস্ট্রিকে,সে সুবাদে বিস্তর ঘোরাঘুরি করেন বিশ্বের এক প্রান্তে থেকে অন্য প্রান্তে । ঝাঁ চকচকে আধুনিক শহরের চাইতে দ্বীপ, দামি রেস্তোরাঁর চাইতে নানান দেশীয় সংস্কৃতি তাকে টানে বেশি। সেই সাথে সামাজিক সংগঠন সেবামূলক কার্যক্রমকে গতিশীল করার লক্ষ্য নিয়ে” খেরোখাতা ” নামক একটি সাহিত্য গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা এডমিন হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন।

‘আমলকী মৌ’গল্পগ্রন্থে গল্পকার ভিন্ন ভিন্ন দৃষ্টিতে জীবনের নানা পর্বের গল্প লিখবার চেষ্টা করেছেন। আর এই লেখার ছলে তিনি অদ্ভুত অদ্ভুত বিষয়ের অবতারণা করেছেন যেখানে আসলে মানুষই মুখ্য হয়ে উঠেছে।গল্পগ্রন্থটি পাঠককে সমৃদ্ধ করবে,এই আশাবাদ ব্যক্ত করাই যায়।
লেখক কবি রেহানা সুলতানা তাঁর প্রার্থনার সাথে আমরাও যোগ দিয়ে বলি,সীমাহীন ত্যাগের বিনিময়ে সৃষ্ট এই স্বাধীন মুক্ত স্বদেশ যেন তার আপন মহিমায়, সকল প্রকার আগ্রাসনের কলুষমুক্ত থেকে, মুক্তচিন্তা এবং গণতন্ত্রের পবিত্র অঙ্গনরুপে ভাস্কর হয়ে উঠুক সেই প্রত্যাশা করি।
বাংলাদেশের কবিদের সম্পর্কে দূর্বলেরা একটি অতি পরিচিত উক্তি করে থাকেন। এদেশে নাকি কবির সংখ্যা যত” কাকের সংখ্যাও তত। কাক নামক পক্ষীটির প্রতি কার না বিরক্তি হয়। আর কবি যদি কাকের তুলনায় সমতুল্য হয়, তাহলে তো কথাই নেই। সেই উক্তির বিষয়টি নিয়ে এই লেখার উৎসর্গে বলতে চাই ” কাদির তোমার কদর করিনি, ভাবিনি তোমায় কবি /তোমার মুকুরে আমার মূরতি ফেলিত মদির ছবি। /সে-মোহিনী মায়া মনন বেদনে আঁকিনু আঁখির লোরে,’ আমার বেদনা তোমার হইয়া ভাতুক প্রভাত রবি-রেহানা সুলতানা”।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৮৩ বার

Share Button

Calendar

April 2020
S M T W T F S
« Mar    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930