» একুশে গ্রন্থমেলায় লোপা হোসেইনের ” আমার একটা তুমি চাই” কবিতা সমগ্র

প্রকাশিত: ২২. ফেব্রুয়ারি. ২০২০ | শনিবার

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার :

স্বাধীনতার স্মৃতিবিজড়িত ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান থেকে বাঙালির সৃজন ও মননের প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমি একুশেমেলার দুই প্রাঙ্গণেই পাঠকদের ব্যাপক উপস্থিতি ঘটছে । ছুটির দিন ও বিশেষ দিনের মতো কর্মব্যস্ত দিনেও এখন অগণিত বইপ্রেমীর ভিড়ে জমে উঠেছে বিকিকিনি। বিকাল তিনটায় মেলায় প্রবেশদ্বার উন্মোচনের পর পাঠকদের উপস্থিতিতে জমে উঠছে মেলা প্রাঙ্গণ। আর সেই সাথে সন্ধ্যায় লোকের আগমন উপস্থিতি জনসমুদ্রে পরিণত হচ্ছে । সেই ধারাবাহিকতায় প্রতিদিনের মতো মেলায় স্টল ও প্যাভিলিয়নে আসছে লেখকদের হাজারো হাজারো নতুন আঙ্গিকে নতুনত্ব বইগুলো । সেই আলোকে মেলায় ২৫৩ নম্বর স্টলটি হচ্ছে অন্যতম নান্দনিক ভাবে সাজসজ্জায় নির্মিত দৃষ্টিনন্দন দেশ প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান,। এই প্রকাশনা থেকে প্রকাশিত হয়েছে সাংবাদিক, চলচিত্র নির্মাতা ও গণমাধ্যম সংবাদ উপস্থাপিকা লোপা হোসেনের ” তৃতীয় গ্রন্থ আমার একটা তুমি চাই ” নামক কবিতাগ্রন্থ।

কবি লোপা হোসেন শুধু কবি নন তিনি সমাজের বিভিন্ন পেশাগত কাজে সংক্ষিপ্ত পরিসরে তাঁর জীবনের পথচলা অনেকটা বটবৃক্ষ মতো গন্ডিকে বিস্তৃত করতে সক্ষম হয়েছেন লোপা হোসেন। কবি লোপা তিনি, তবে কখনোই সেই গোত্রের নন, পবিত্র কুরআনে যাদের বলা হয়েছে বিভ্রান্ত । কবি তিনি, তবে কখনোই সেই গোত্রের নন, মহামতি প্লেটো যাদেরকে তাঁর আদর্শরাষ্ট্র থেকে নির্বাসনে পাঠিয়েছেন । কবি লোপা তিনি, সেই গোত্রের, যারা স্রষ্টার পক্ষে, সৃষ্টির পক্ষে, প্রেমের পথে, মানবিকতার পথে নিরন্তর সংগ্রামে আপসহীন কবি তিনি।
লোপা হোসেইন কবি। তবে শুধুই কবি নন,। বহু- বিচিত্র মাধ্যমে বিকশিত হয়েছে তাঁর প্রাণজ সত্তা । তাঁর বহুমাত্রিক অবদানে সমৃদ্ধ হয়েছে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্প ও সাংবাদিকতা পেশার পাশাপাশি অভিনয় শিল্পীসহ বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের বিভিন্ন শাখা – প্রশাখা। কবিতার পাশাপাশি গান, আবৃত্তি, অভিনয়, সংগীত শিল্পী, সংবাদ উপস্থাপনা, ও চলচ্চিত্র ফিল্ম এবং তথ্যচিত্রসহ ইতিহাস সচর্চায় ও তিনি লোপা রেখেছেন অনন্য বিশেষ অবদান । এ দ্রবণ থেকে এ নামটি আর আলাদা করা সম্ভব নয় । আপসহীন ব্যক্তিত্ব এই কবিকে অসাধারণ এক বাগ্মীতে পরিণত করেছে । সবরকম জড়তা, গ্লানি ও মালিন্য দূর করে এ দেশের নতুন আঙ্গিকে তরুণ প্রজন্মের শক্তিকে প্রাণবান ও বেগবান করে তুলতে কবি লোপা হোসেনের প্রাণান্ত সাধনা । স্বজাতির প্রতি তার প্রেম তাকে মহিমান্বিত করেছে, মানুষের প্রতি প্রতিশ্রুতি তাকে উচ্চকিত করেছে, জাতি গঠনে সুদৃঢ় অঙ্গীকার তাঁকে করে তুলেছে নতুন প্রজন্মের প্রিয়মুখ প্রতিভাবান মানুষের কবি হিসেবে ।

লোপার সংক্ষিপ্ত পরিচিতিঃ

লোপা হোসেন – জন্ম ২৪ আগস্ট
বাবা- মোঃ গুলজার হোসেন! মাতাঃ কাজী লায়লা ইয়াসমিন।
তিনি ছোটবেলা থেকেই গান, আবৃত্তি, অভিনয়ের সাথে জড়িত। পরবর্তীতে গান কে নিয়েই এগিয়ে যাওয়া। বিগত ২০০৫ সালে” ক্লোজআপ ওয়ান” তোমাকে খুঁজছে বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার মধ্যে দিয়ে সংগীত জগতে প্রবেশ করেন। ইতিমধ্যেই ৩ টি, একক ( আড়ি ২০০৭, আশার ভেলা- ২০১৩, আত্না- সঙ্গী – ২০১৬,) এবং বেশকিছু মিশ্র এ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে । গান গেয়েছেন একাধিক চলচ্চিত্রে। গানের পাশাপাশি টিভি চ্যানেল গুলোতে সংবাদ উপস্থাপক হিসেবেও পান ব্যাপক জনপ্রিয়তা। গান, আবৃত্তি এবং সংবাদ উপস্থাপনায় জিতেছেন অসংখ্য পুরস্কার,। নির্মাণ করেছেন স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এবং তথ্যচিত্র। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে সম্মান, ইউনিভার্সিটি অফ ডিভালপমেন্ট অল্টারনেটিভ থেকে সংগীতে স্নাতকোত্তর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিভিশন, ফিল্ম এ্যান্ড ফটোগ্রাফি বিভাগ থেকে দ্বিতীয় স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। জীবনসঙ্গী হিসেবে বিশিষ্ট গীতিকার কবি, গায়ক, সুরকার এবং প্রকৌশলী সীরাজুম মুনির এর সাথে জীবন সংসার চালাচ্ছেন অত্যন্ত সুখ সাচ্ছন্দ্য ভাবে,। লোপা হোসেনের লেখা ” আমার একটা তুমি চাই ” এই কবিতার গ্রন্থ হচ্ছে তৃতীয়। ২০১৫ সালে কবি লোপার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ” যে অন্ধত্বের নাম ভালোবাসা ” এবং ২০১৬ সালে আরেকটি উপন্যাস ” তোমার অপেক্ষায় ” প্রকাশিত হয়।

কবি লোপা হোসেন বাংলা ভাষা শব্দের খনি থেকে তিনি বেছে বেছে এমন সব শব্দ তার কবিতায় ব্যবহার করেছেন যা পাঠক দর্শক ও শ্রোতাদের চেতনাকে স্পর্শ করে যায়। শব্দের গাঁথুনিতে তিনি কবি লোপা,এ যুগের শ্রেষ্ঠ দূ’জন কবি মাহমুদ ও ফরহাদকে ছুঁয়ে ছুঁয়ে যান প্রতিনিয়ত। বিচিত্র রসের বর্ণিল সমাহার তার এই কবিতা সমগ্র বইটি।

সংবেদ প্রকাশনীর সামনে লেখকদের মেলা বসেছে যেন। তখন লোপা হোসেনের লেখা আমার একটা তুমি চাই : দ্বিরালাপে সমাজ সংস্কৃতি সাহিত্য ও রাজনীতি বইয়ের অটোগ্রাফের বেড় লেগে আছে মোড়ক উন্মোচনের স্থানে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন ফারুক ওয়াসিফ, মাহবুব আজিজ, মাসুম রেজা, আলফ্রেড খোকন, জোবাইদা নাসরীন কনা, শামস আল মমিন, আহমাদ মাযহার, আবিদ আজমসহ অনেকেই।

গতকাল প্রথমা প্রকাশন চারটি নতুন বই এনেছে। ড. কামাল হোসেনের বাংলাদেশ স্বাধীনতা ও ন্যায়ের সন্ধানে, আব্দুল কাইয়ুমের গণিত আর গণিত, সাগুফতা শারমীন তানিয়ার দ্বিতীয় ভ্রান্তিপাশ ও আনিসুল হকের গুড্ডুবুড়া যেভাবে ঢাকাকে বাঁচিয়েছিল। বরাবরের মতোই প্যাভিলিয়নটিতে ছিল ক্রেতা দর্শনার্থীর ভিড়। এদিকে দি ইউনিভার্সেল একাডেমি, অন্যপ্রকাশ,তক্ষশীলা,সময় প্রকাশন,বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র, পুঁথিনিলয়সহ এধরনের অনেক প্যাভিলিয়নে ছিল ভিড়।

মেলায় দি ইউনিভার্সেল একাডেমি(প্যাভিলিয়ন)চার এনেছে প্রাকৃতজন শামিমরুমি টিটনের” রক্তেভেজা স্বাধীনতা ও জীবনের দেনা” ও প্রেমের ঘরে সবই ফাঁকা অন্তর ঘরে আমি একা” শিহাবউদ্দীন ভুঁইয়ার এন সাইক্লোপিডিয়া অব দ্য ওয়ার্ল্ড টু আস্ক মি এনিথিং,” সাংবাদিক ইমরুল কায়েসের- লজ অব হিউম্যান নেচারও (ভাষান্তরঃ দি নেক্সট ১০০ ইয়ার্স -মোস্তফা আরিফ )। প্রথমা প্রকাশন এনেছে কাজী জাওয়াদ অনূদিত নোবেল পুরস্কার বিজয়ী কাজুও ইশিগুরোর বিনোদনের এক শিল্পী। বাংলা একাডেমি এনেছে অনুপম হায়াতের বঙ্গবন্ধু ও চলচ্চিত্র।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৭০ বার

Share Button

Calendar

December 2020
S M T W T F S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031