» কথাশিল্পী দিলরুবা আহমেদ ও তাঁর জন্মদিন

প্রকাশিত: ১০. নভেম্বর. ২০১৯ | রবিবার

সৈয়দা সানজিদা শারমিন

১৩-ই নভেম্বর জন্মেছেন বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় প্রবাসী লেখিকা দিলরুবা আহমেদ । জমির আহমেদ ও জাহানারা জমির এর প্রথম সন্তান তিনি । তার বোন জুবাইদা আহমেদ একজন সুপ্রতিষ্ঠিত ডাক্তার । বাংলাদেশের একটি সরকারি মেডিকেল কলেজের বিভাগীয় প্রধান ।একমাত্র ভাই হাসান (ইভান) আমেরিকায় মাইক্রোসফট-এ কর্মরত ইঞ্জিনিয়ার ।স্বামী ও কন্যা নিয়ে দীর্ঘদিন লেখিকা আমেরিকায় বসবাস করছেন ।

লেখালেখির শুরু কলেজ জীবন থেকে । প্রকাশিত প্রথম বই ২০১২ সালের বইমেলায় । সে বছর তিনটি বই একসাথে প্রকাশিত হয় । প্রবাস জীবন নিয়ে লেখা “টেক্সাস টক ” ২০০৫ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত সময়ে ধারাবাহিক ভাবে প্রকাশিত হয় একটি জাতীয় দৈনিকে ।অধিকাংশ-ই লিখেছেন বড়দের জন্য গল্প বা উপন্যাস ।ভ্রমণ কাহিনী সেরকম লিখেন নি ।ছোটদের জন্য একমাত্র প্রকাশিত বই “মাছের মায়ের পুত্র শোক”।
আসছে বই মেলায় কি কি বই আসবে ? এ প্রশ্নের জবাবে লেখিকা বলেন,এখনো ঠিক জানি না ।তবে উপন্যাস বের হবে একটি “টেক্সান রানী ও ব্লু বনেট “।আসলে লেখার সময় তেমন একটা পাই না এই ব্যস্ত প্রবাস জীবনে ।তবে চেষ্টা করে যাচ্ছি।মন তো চায় শত শত গল্প লিখি , বই বের করি ।হয় আর কই !
বাংলা একাডেমির ২০২০ বই মেলায় বাংলাদেশে আসবেন কি ? জবাবে দিলরুবা বলেন,
এটি-ও ঠিক জানি না । দেখি ।ইচ্ছে তো আছে-ই , জানি না কি হবে । দেখা যাক ।
জন্মদিন নিয়ে তিনি বলেন, জন্মদিন সবসময়ই আনন্দের দিন ।রাতের ১২ -তেই দেখি অভিনন্দন আসতে শুরু করেছে ।এখন ফেইসবুক থেকে রিমাইন্ডার পেয়ে মনে না থাকলেও অনেকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ফেলতে পারে ।তবে অনেকেই আছেন যারা নিজের থেকে মনে করে রাখে দিনটি । এটা খুব ভালো লাগে আমার ।এদের একজন আমার বর ,আরেকজন মেয়ে ।আমার ভাইবোন ।আমার শ্বশুর যখন বেঁচে ছিলেন খুব মনে রেখে দেশ থেকে ফোন দিতেন ।সবাই অবাক হতো ।কিন্তু বাবা ঠিক -ই মনে রাখতেন । আমার জনকের কাছে তো ১৩-ই নভেম্বর-ই পৃথিবীর সবচেয়ে প্রিয় দিন ছিল ।বলতেন আমায় , তোমাকে দেখিয়েই সবাই বলবে ১৩ তো আনলাকি নয় ।ঐদিকে আমার আম্মা যিনি কারো কোনো দিনতারিখ কিছুই মনে করে রাখতে পারেন না অথচ তিনি ১৩-ই নভেম্বর মনে রাখেন সবসময়-ই । আর আমার দুই নন্নাস , ওনারা -ও সবসময় মনে রাখেন ছোট ভাইয়ের বৌয়ের জন্মদিন । ।জিনাত , পৃথা , তানভীর, সোনালী , হাবিব , সালমা আমার বান্ধবীদের কথা বলছি যারা নিজের থেকে মনে করে দিনটি ।এর বাহিরে আর একজন-ও নিজের থেকে মনে রাখে না আমি তা জানি, তবে জন্মেছিলাম যে দিনে সে দিন-টি এসেছে জানলে সবাই খুশি হয় তা আমি নিজেকে দিয়ে অন্যের জন্য পাওয়া নিজের অনুভব থেকে বুঝতে পারি 🙂 । সবাই এমন ভাগ্য নিয়ে আসে না যে দেশময় সবাই তাকে মনে করবে ।যার কথা সবাই মনে রাখে সে অসাধারণ কেও-ই হয়,ক্ষণজন্মা । আমার প্রিয় জনেরা আমার কথা মনে রেখে আমাকেও অসাধারণের অনুভব দেন । কৃতজ্ঞতা তাদের কাছে ।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৫০১ বার

Share Button

Calendar

July 2020
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031