» করোনা সংক্রমন ঠেকাতে “শ্রীমঙ্গল ডিফেন্ডার্স”

প্রকাশিত: ২৮. মার্চ. ২০২০ | শনিবার

পংকজ কুমার নাগ শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি : কিছু উদ্যোমী ও নির্ভীক স্বেচ্ছাসেবক দেশের জনগণের জন্য কিছু করার প্রত্যয় ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম এর উদ্যোগে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে গড়ে উঠে স্বেচ্ছাসেবক টিম “Sreemangal Defenders”। 

শ্রীমঙ্গল ডিফেন্ডার্স গঠন করার পর প্রথমেই শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এর সমন্বয়ে এবং স্বেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে তৈরি করা হয় ২৫ শয্যা বিশিষ্ট করোনা আইসোলেশন সেন্টার। এ সেন্টারে শ্রীমঙ্গল উপজেলায় সনাক্ত হওয়া করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা প্রদান করা হবে। 
এছাড়াও শ্রীমঙ্গল ডিফেন্ডার্স শহরের বিভিন্ন স্থানে ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জীবাণুনাশক স্প্রে করে কার্যক্রম শুরু করেছে।

এ কার্যক্রমে পৌর এলাকায় শ্রীমঙ্গল ডিফেন্ডার্সের সদস্যরা শহরের বিভিন্ন সড়ক, আবাসিক এলাকা ও বাজারে জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম আরম্ভ করেছে। প্রথম পর্যায়ে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণ থেকে শুরু করে কোর্ট রোড, গুহ রোড, ডাকবাংলো রোড, পৌরসভার সামনে, চৌমুহনা, সেন্ট্রাল রোড, গদার বাজার, পুরান বাজার, ভানুগাছ রোড, স্টেশন রোড, পোস্ট অফিস রোড, সাইফুর রহমান মার্কেট হয়ে রেল স্টেশন এলাকায় জীবাণুনাশক স্প্রে করা হয়। এই কার্যক্রম পর্যায়ক্রমে শ্রীনঙ্গলে চলমান থাকবে।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে দেশে ১০ দিনের ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে দোকানপাট, রাস্তাঘাট, দূরপাল্লার গণপরিবহন। এ অবস্থায় খোলা রয়েছে কিছু ফার্মেসি ও কিছু মুদি দোকান। এসব দোকানে ও ফার্মেসিতে আসা মানুষদের নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতে শ্রীমঙ্গল ডিফেন্ডার্স শহরের সকল ফার্মেসির সামনে ৩ ফুটের ব্যবধানে বৃত্ত ও বক্স অংকন করে, নিরাপদ দূরত্ব চিহ্নিত করে দেওয়া হয়। এ কার্যক্রম তদারকি করেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মাহামুদুর রহমান। 

এ ব্যাপারে শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, প্রতিদিন এ রকম কার্যক্রম চলবে। পর্যায়ক্রমে শ্রীমঙ্গল উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায়ও আমরা এ “সামাজিক দূরত্ব-বৃত্ত” অংকন করবো। এছাড়া জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ কার্যক্রম শহরের বিভিন্ন আবাসিক এলাকা, ইউনিয়ন পর্যায়ের বাজার ও জনসমাগম হওয়া বিভিন্ন গুরুর্ত্বপূর্ণ স্থানে পরিচালনা করা হবে। 
তিনি জানান ,করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে উপজেলা প্রশাসন প্রতিদিন বিভিন্ন গ্রামেগঞ্জে কাজ করছে। বিশেষ করে প্রবাসী যারা দেশে ফিরেছেন তাদের বিষয়ে বিশেষ নজরদারি করা হচ্ছে । তারা হোম কোয়ারান্টাইন এর নিয়ম মানছে কিনা তা প্রতিদিন তদারকি করা হচ্ছে এবং তাদের শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

পুরো উপজেলা জুড়ে লোকসমাগম কমানোর জন্য লিফলেট বিতরণ ও মাইকিং করে জানানো হচ্ছে সবাইকে ঘরে অবস্থান করার জন্য, সচেতন থাকার জন্য। তিনি বলেন, দেশের এ ক্লান্তিলগ্নে সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে, সরকারের নির্দেশনা গুলি সবাই মেনে চলতে হবে, যারযার অবস্থান থেকে সবাইকে সচেতন করা প্রয়োজন।
উল্লেখ্য যে, শ্রীমঙ্গল ডিফেন্ডার্স গত ২১শে মার্চ গঠন করা হয়। এই দলটি ৩৫জন কর্মউদ্যোমী সদস্যদের নিয়ে গঠিত হয়। এতে স্কাউটের ১৫জন, স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে ১০ জন ও বিভিন্ন নাট্য সংগঠন এবং সামাজিক সংগঠন থেকে ১০ জন স্বেচ্ছাসেবক অন্তর্ভুক্ত  হন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৭৬ বার

Share Button