শিরোনামঃ-


» কি কথা মোদির সাথে মোমেনের

প্রকাশিত: ০৮. ফেব্রুয়ারি. ২০১৯ | শুক্রবার

হঠাত করেই ভারত সফরে গেছেন বাংলাদেশের নবনিযুক্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। মন্ত্রী হওয়ার পর এটাই তার প্রথম বিদেশ সফর।পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের সাম্প্রতিক অগ্রগতির বিষয় অবহিত করেন। আবদুল মোমেন ভারত-বাংলাদেশ জয়েন্ট কনসালটেটিভ কমিশনের(জেসিসি) ৫ম বৈঠকে যোগ দিতে নয়াদিল্লী পৌঁছেছেন। সূচনায় তিনি প্রথমেই ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে এক সৌজন্য সাক্ষাতে হাজির হন। সেখানে নরেন্দ্র মোদি বলেন, বিগত কয়েক বছর থেকে ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।
বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হওয়ায় ড. মোমেনকে অভিনন্দন জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী । প্রথম বিদেশ সফরের জন্য ভারতকে বেছে নেয়ার প্রশংসা করেন।
প্রধানমন্ত্রীর সাথে প্রথাগত সৌজন্য সাক্ষাতের পর তিনি ভারতের অবসরপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী বর্ষীয়ান রাজনীতিক ড. মনমোহন সিং এর সাথে সাক্ষাৎ করেন। এরপরই তিনি তার ভারতীয় সতীর্থ শ্রীমতি সুষমা স্বরাজ’এর সাথে সাক্ষাৎ করবেন। আজ শ্রীমতি সুষমা স্বরাজের সাথে তার সাক্ষাতের কথা রয়েছে বলে জানা গেছে।
সুষমা স্বরাজের সাথে দেখা সাক্ষাতের পর তারা উভয়েই তাদের নিজ নিজ দেশের সদস্যবৃন্দসহ বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক যৌথ পরামর্শিক কমিশনের(জেসিসি) ৫ম সভায় মিলিত হবেন। এ উপলক্ষ্যেই
আবদুল মোমেন গতরাতে নয়াদিল্লী পৌঁছেছেন।

এই সফরে দুদেশের মধ্যে দুর্নীতির তদন্ত, টেলিভিশন সম্প্রচার ও ওষুধ স্থাপনাসহ ৫টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে একথ জানা যায়।
এদিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী গতকাল ঢাকায় বাসসকে বলেছেন, রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশ ভারতের কাছে আরো সহায়তা চাইবে।
সরকারি কর্মসূচি ছাড়াও বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী নয়াদিল্লীতে ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

এ সফরে তিনি উচ্চ পর্যায়ের এক প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৫৫ বার

Share Button