» খরায় পোড়ে মধ্যপ্রাচ্য

প্রকাশিত: ১৪. জুন. ২০২০ | রবিবার


মোজাফফার বাবু

নিভু নিভু আলোয় অলির ঘোর ঘোর চোখে,
ছুটে চলে অজানা অচেনা যাযাবরের বেশে,
বুকে তার বোবা কান্না বিষাদের আবছায়া
দ্বন্দ -সংঘাতে দখল বাজরা করে ভূমি হারা

সিরিয়া জর্দানে পথে ঘাটে রক্তের ঢল
ঘামে ভেজা শরীরে আখিতে অশ্রু জল
সীমান্তে জীর্ণ শীর্ণ পোড় খাওয়া মানুষ
মননে জ্বলে আগুন গগনে উড়ে শকুন ।

ককিয়ে ককিয়ে কাঁদতে চায় স্বজনেরা
আগ্রাসীরা শোনে না বিপন্ন মানুষের কান্না
চেটে পুছে সাবাড় যেন নরঘাতকের বাস
যাযাবর করে হাসফাস নিয়তির পরিহাস

পথে পথে জলপাই রং এর ট্যাঙ্ক কামান,
হায়নার মত রুদ্ররোষে ছুটেছে বিমান
জলজলে শহর নিমিষেই হয়ে গেল অন্ধকার
নড়বড়ে ধুলিমাখা উঠান কুড়ে খায় অন্তর।

গুমোট গরমে মরুর বুকে বাজপাখি উড়ে
অজানা আতঙ্ক বার বার ধাওয়া করে ,
পথে ঘাটে মড়ক মন্বন্তর অজানা আতঙ্ক
অলি রুদ্ধশ্বাসে ছুটে কোথায় জোটে আশ্রয়

বেখালী মন ছুটে যায় ছুটে যায় শিকড়ের কাছে
আদর সোহাগে ভরে তুলতো অন্য আবেশে
ছুটি হলে জননীর সাথে করতো লুটোপুটি
নিরন্তর গল্পে সল্পে হেসে হতো কুটি কুটি

প্যাকেটে জ্যাকেটে গুরুজনের শেষ সম্বল
হাতে শেষ স্মৃতি পান্জাবী আর কম্বল
ললাটে ঘামে ভেজা আখিতে অশ্রু জল
ফাগুনের মাঝে খরার চৈত্রের দাবা নল

রক্তের হলি খেলায় তেতো হয় স্বপ্ন সাধ
সিক্ত হৃদয় একফোটা বৃষ্টির অপেক্ষায়
এতটা তীব্র শোষক আর শাসকের দ্বন্দ্ব
অলির ছায়া পথ করে দেয় লন্ডভন্ড

নিসঙ্গ শূন্যতায় ভরে গেছে এ জীবন
অন্ধকার অমানিশায় খাক হয় ভূবন
এই বৃষ্টিহীন নিখিলে থাকতে চায় না মন
যাব চাঁদের দেশে আছে আমার গুরুজন

নিদারুণ নিষ্ঠুর বেদনা বিধূর রাত
জানবে চাঁদ আর গাছ গাছালি পথঘাট
দৃষ্টিকাড়া জোৎসনা নক্ষত্র ভরা আলো
আঁধার আবছায়াই সে পথ হয় কালো

এ চরাচরে শুধু উষ্ণ বালু উড়ে
সুখ ও সুখানভ হিমাগারে পড়ে থাকে
মানবতার পতাকা উড়ায় যে তহশিলদার
মরুর বুকে করে ছারখার আমজনতার

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২০৯ বার

Share Button

Calendar

October 2020
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031