» তুমি স্বপ্নের সংগ্রামে গেছো

প্রকাশিত: ০৬. ডিসেম্বর. ২০১৮ | বৃহস্পতিবার

কাজী মোহিনী ইসলাম

ওই দূর আকাশে মিটিমিটি জ্বলে থাকা তারাদের মাঝে তুমিও কি আছ, বাবা
আমাকে দেখছ, শুনছ কি আমার কথা, ওখান থেকে?
একদিন মায়ের কাছে জানতে চেয়েছিলামÑ
অদেখা আমার প্রতি তোমার ভালোবাসা কেমন ছিল;
মা বলেছিলেন, পৃথিবীর ইতিহাস থেকে
যত উদাহরণ তুলে আনা হোক না কেন, তোমার তুলনা খুঁজে পাব না;
সেই থেকে সিঁথানে শোক রেখে হৃদয়ে এক আকাশ অভিমান নিয়ে
এখনও ঘুমাই গাঢ়-কালো রাত্রির ঘোরেÑ
তুমি কোন নিরুদ্দেশে গেছ, বাবা?
তোমার জন্য অপেক্ষমান সুর উপচানো শ্লোগানমুখর মিছিলের ¯্রােত
পদ্মপাতায় জমে ওঠা শিশিরবিন্দুর মতো আমার স্বপ্নগুলো!

একদিন পথের দ্বারে দাঁড়িয়ে থাকা একটি প্রবীণ বৃক্ষ
আমাকে তোমার গল্প শুনিয়ে বলেছিল
ঝিনুক জীবনের শত বৈরি বিরোধ ভেঙে তুমি মুক্তির সংগ্রামে গেছ
মা তার পোষা প্রিয় ময়না পাখিটিকে রাতের অন্ধকারে
খাঁচা খুলে আকাশে উড়িয়ে দিয়ে বলেছিলোÑ
যদি ভালোবাসা থাকে ফিরে এসো একদিন;
আমি তখন মাটির মায়াবী বন্ধনে
মায়ের কোমল জঠরে বেড়ে ওঠা স্বপ্নভ্রুণ!

সংযমের মিনারে উড়িয়ে বিশ্বাসের সবুজ পতাকা
অগ্নিগর্ভা একটি সূর্যের প্রতীক্ষায়Ñ
নির্নিমেষ চেয়েছিলো মায়ের দু’চোখ
স্বপ্নগুলো তার অন্তরা থেকে উঠেনি সঞ্চারিতে
তীব্র অধঃপতনের গাঢ় শব্দে কেঁপে ওঠে বুক
নির্বিবেক মধ্যরাতে; তবুও সোনালী তৃষ্ণা তার
ছড়িয়ে যায় বিস্তার থেকে বিস্তারে।

তুমি স্বপ্নের সংগ্রামে গেছো বজ্রকণ্ঠের উৎসারিত উল্লাসে
বিভীষিকাময় দূঃস্বপ্নের অথৈ অন্ধকারে
কষ্টের অশ্রুজলে জ্বালিয়ে রক্ত-শপথের অগ্নি মশাল
তীব্র ধারালো ঘৃণায় যেনো ঈসা খাঁর তরবারি হয়ে ওঠো
জ্বলে ওঠে নক্ষত্রনয়ন তোমার।
তারপর বুকের শেষ রক্তবিন্দু ঢেলে ছিনিয়ে এনেছ বিজয়
লাল-সবুজ পতাকার অন্তহীন হাসি।

অথচ দূঃখিনী মা আমার, তুমিহীন একাকী ক্ষত-বিক্ষত বোধে
সম্মুখে এক স্মৃতির সমুদ্র নিয়ে বসে আছে
বুকে তার দগদগে অগ্নি¯œাত একাত্তর।
মায়ের আঁচলে লেগে থাকা বিরহের লাল দাগ
জেগে আছে আমার বেদনাময় মুখে আজও!

তুমি কবে ফিরবে বাবা!
তোমার জন্য বিপুল অশ্রুজল জমিয়ে রেখেছি বুকে
আমার প্রতিটি ভোর, স্তব্দ দুপুর, বিষণœ বিকেল
তোমার জন্য উন্মুক্ত রেখেছি অনুভবের প্রতিটি দরোজা
কবে আসবে তুমি, কবে আমাদের দেখা হবে
কোনো এক বিজয় দিবসের আনন্দ উৎসবে…!

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১২৯ বার

Share Button

Calendar

May 2019
S M T W T F S
« Apr    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031