দীর্ঘ দিন পর হরতাল! স্বতঃস্ফূর্ত হরতাল পালনে দেশবাসীকে অভিনন্দন: জোনায়েদ সাকি

প্রকাশিত: ১:২৫ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০১৯

দীর্ঘ দিন পর হরতাল! স্বতঃস্ফূর্ত হরতাল পালনে দেশবাসীকে অভিনন্দন: জোনায়েদ সাকি

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার :

বাংলাদেশে অনেক দিন পর গতকাল রবিবার আধাবেলার হরতাল কর্মসূচি পালিত হলো৷ তবে এই হরতালে যান চলাচলে ব্যাঘাত ঘটেছে তুলনা মূলক কম ৷ অফিস আদালতও চলেছিল মোটামুটি। তারপরও এই হরতালকে যৌক্তিক মনে করছেন অনেকে৷
গ্যাসের দাম বৃদ্ধিও‘গনদুর্ভোগ’ বাজেটের প্রতিবাদে এবং সিলিন্ডার গ্যাসের দাম কমানোর দাবিতে বাম গণতান্ত্রিক জোট এই হরতাল ডেকেছিল৷ ভোর ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত পালিত হরতালে কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি ৷ খুব শান্তিপুর্ণ ভাবে পালিত হয়েছে।

ঢাকায় দু’একজনকে আটক করে পরে ছেড়ে দেয়া হয়৷আর হরতাল চলাকালে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতা-কর্মীদের কর্মসূচি পালন করতে দেখা গেছে পল্টনও শাহবাগ এলাকায়৷ তবে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ ছিলো অনেক ৷ তারা জলকামানও নামিয়েছেন ৷
বাম গণতান্ত্রিক জোট দাবি করেছে,খুলনাসহ কয়েকটি এলাকায় হরতালের মিছিলে পুলিশ হামলা চালিয়ে বাধা দিয়েছে তবে তেমন অপৃতিকর কোনও ঘটনা ঘটেনি।

১ জুলাই থেকে বাংলাদেশে গ্যাসের দাম আরো এক দফা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়৷ গৃহস্থালির রান্নার কাজে দুই চুলার গ্যাসের দাম মাসে ৮০০ টাকা থেকে ৯৭৫ টাকা আর এক চুলার ৭৫০ টাকা থেকে ৯২৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

সিএনজি গ্যাসের দাম বাড়িয়ে প্রতি ঘনমিটার ৪৩টাকা করা হয়৷ সব খাত মিলিয়ে গড়ে গ্যাসের দাম বাড়ে ৩২.০৮ শতাংশ৷
এর আগে সর্বশেষ ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে গ্যাসের দাম গড়ে ২২ দশমিক ৭০ শতাংশ বাড়ানো হয়৷
ঢাকার জিগাতলার গৃহিনী ফাহমিদা আক্তার বলেন, ‘‘সরকার রান্নার গ্যাসের দাম বাড়ানোয় আমাদের ওপর বাড়তি চাপ পড়ছে৷এ কারণে আরো অনেক কিছুর দাম বাড়বে৷ আর আমরা শুনেছি ভারতে রান্নার গ্যাসের দাম কমেছে৷বিশ্ব বাজারেও কমেছে৷ আমাদের এখানে বাড়বে কেন? তাই আমি মনে করি এই হরতাল যৌক্তিক৷”
একই বক্তব্য বেসরকারি চাকুরে হাসান সাবিরেরও ৷ তিনি বলেন, ‘‘এই হরতালটি সাধারণ মানুষের জন্য ডাকা হয়েছে৷”এতে আমরা সাধারণ মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত সমর্থন আছে এবং আগামীতে ও থাকবে। এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও অনেক সাধারণ ফেসবুক ব্যবহারকারীকে হরতালের সমর্থনে পোস্ট দিতে দেখা গেছে৷ কেউ এটাকে যৌক্তিক হরতাল, কেউ এটাকে জনগণের দাবি আদায়ের হরতাল বলেছেন৷

বাম গণতান্ত্রিক জোটের গণসংহতি আন্দোলনের নেতা জোনায়েদ সাকি বলেন, গতকাল স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতাল পালন করায় তিনি দেশের সর্বস্তরের জনগণকে অভিনন্দন জানান। তিনি আরও বলেন- দেশব্যাপী ‘‘হরতাল নানা কারণে আকর্ষণ হারিয়েছে এর একটা ভয়ঙ্কর দিকও আছে ৷ তারপরও আমরা সফল হয়েছি। আমরা মনে করি গতকাল যদি আমরা সংবদ্ধ ভাবে আরও শক্তি প্রয়োগ করতে পারলে তারিসাথে সসর্বস্তরের জনসাধারণকে আরও উৎসাহ উদ্দীপনা দিয়ে যদি রাস্তায় নামাতে পারতাম তাহলে অনেকদিন পরের এই হরতালটি আরও বদ্ধপরিকর ভাবে অনেক শক্তিশালী অর্জন করা সম্বভ ছিল৷ তাই জনসম্পৃক্ত বিষয়ে হরতাল ডাকলে এবং তা পালনের জন্য নতুন কৌশল ও প্রচার চালালে তা সফল হবে৷”
জ্বালানি তেল আর গ্যাসের দাম বাড়ায়,বাড়বে মুদ্রাস্ফীতিও।

তিনি আরেক প্রশ্নের জবাবে বলেন,‘‘সরকারের লুটপাটকে সামাল দেয়ার জন্য গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে৷ আর গ্যাসের দাম বাড়ানোর মূল উদ্দেশ্য হলো ভারত থেকে এলএনজি আমদানি করা৷ ফলে এই হরতালে মানুষের সমর্থন আছে৷ মাঠে নামা না নামা ভিন্ন কথা৷”
এই হরতালে বিএনপি সমর্থন দিয়েছে৷ দলটি ২০১৫ সালের পর আর কোনো হরতাল কর্মসূচি দেয়নি৷ ২০১৬ সালে সর্বশেষ জামায়াত হরতাল কর্মসূচি পালন করে যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দন্ড কার্যকরের প্রতিবাদে৷

অন্যদিকে বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন,‘‘হরতাল গণতান্ত্রিক অধিকার৷ গ্যাসের দাম বাড়িয়ে সরকার সাধারণ মানুষকে আরো কষ্টের মধ্যে ফেলে দিয়েছে৷ তাই আমরা হরতাল সমর্থন করেছি৷”
তিনি আরো বলেন,‘‘আমরা কৌশলগত কারণে কয়েকবছর হারতাল করছিনা৷ তবে হরতাল করার সময় এসে গেছে৷”

এদিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘‘হরতাল আর গণতান্ত্রিক আন্দোলনের কার্যকর হাতিয়ার নয়৷ হরতালে মরিচা ধরে গেছে৷”

জুনায়েদ সাকি বলেন- গতকাল রবিবার আমরা আধাবেলা হরতাল পালনের পর বাম গণতান্ত্রিক জোটটের পক্ষ থেকে আগামী ১৪ জুলাই জ্বালানি মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ের কর্মসূচি দিয়েছে৷
এদিকে,গত ১ জুলাই গ্যাসের দাম বাড়ানো স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে সম্পূরক আবেদন করেছে কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব)৷ আবেদনের ওপর শুনানির জন্য আগামী কাল ৯ জুলাই দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট৷
জ্বালানির যত উৎস-
১. তেল লন্ডন ভিত্তিক ‘ওয়ার্ল্ড এনার্জি কাউন্সিল’এর ‘বিশ্ব জ্বালানি সম্পদ ২০১৬’প্রতিবেদন অনুযায়ী,বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হওয়া জ্বালানি হচ্ছে তেল৷ মোট ব্যবহৃত জ্বালানির প্রায় ৩২.৯ শতাংশই হচ্ছে তেল৷ আর তেল উৎপাদনে শীর্ষ তিন দেশ হচ্ছে সৌদি আরব (বছরে ৫৬৯ মিলিয়ন টন), যুক্তরাষ্ট্র (বছরে ৫৬৭ মিলিয়ন টন)ও রাশিয়া (বছরে ৫৪১ মিলিয়ন টন)৷
জ্বালানির যত উৎস
২. কয়লা ২৯ শতাংশ নিয়ে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হওয়া জ্বালানির তালিকায় তেলের পরেই আছে কয়লা৷ তবে নব্বই দশকের পর ২০১৪ এবং ২০১৫ সালে প্রথমবারের মতো কয়লা উৎপাদন কমেছে৷ বিশ্বের মোট বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রায় ৪০ ভাগ কাজে কয়লা ব্যবহৃত হয়৷ শীর্ষ তিন উৎপাদনকারী দেশ হচ্ছে চীন(বছরে ২ দশমিক ৬২ হাজার এমটিওই), যুক্তরাষ্ট্র (৫৬৯ এমটিওই) ও ভারত (৪৭৪ এমটিওই)৷ উল্লেখ্য, এমটিওই মানে হচ্ছে এক মিলিয়ন মেট্রিক টন অফ ওয়েল ইকুইভ্যালেন্ট৷
জ্বালানির যত উৎস-
৩. গ্যাস তিন নম্বরে আছে গ্যাস (প্রায় ২৪ শতাংশ)৷ আর বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহৃত জ্বালানির তালিকায় কয়লার (৪০ শতাংশ) পরে আছে গ্যাস (২২ শতাংশ)৷ শীর্য তিন গ্যাস উৎপাদনকারী দেশ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র (বছরে ৬৯১ এমটিওই), রাশিয়া (বছরে ৫১৬ এমটিওই) ও ইরান (বছরে ১৭৩ এমটিওই)৷
জ্বালানির যত উৎস-
৪. পানিবিদ্যুৎ নবায়নযোগ্য জ্বালানির বিভিন্ন উৎসের মধ্যে পানি বা জলবিদ্যুতের ব্যবহার সবচেয়ে বেশি৷

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Calendar

December 2020
S M T W T F S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  

http://jugapath.com