» নবীগঞ্জ পৌরসভার ৩দিন ব্যাপী বইমেলা

প্রকাশিত: ২৪. ফেব্রুয়ারি. ২০১৮ | শনিবার

নবীগঞ্জ পৌরসভার ৩দিন ব্যাপী অমর একুশে বইমেলার সমাপ্তি হয়েছে আজ । সমাপনীদিনে নবীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব ছাবির আহমদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব। পৌরসভার প্যানেল মেয়র এটিএম সালাম ও বইমেলা উদযাপন কমিটির সদস্য পৃথ্বীশ চক্রবর্ত্তীর যৌথ সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের সংরক্ষিত সদস্য শিরিন আক্তার, হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য এডভোকেট সুলতান মাহমুদ, হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য আব্দুল মালিক, নবীগঞ্জ জে. কে. সরকারি হাইস্কুলের প্রধানশিক্ষক মো. আব্দুস সালাম, নবীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পরিচালক সফিকুর রহমান, বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি নবীগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি শামীম আহমদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী চৌধুরী ও অধ্যাপক মোস্তাহিদ উদ্দিন। এতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- কবি মাওলানা আব্দুর রকিব হক্কানী, কবি আব্দুল মোহিত রাসেল প্রমুখ। এসময় মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম, পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরবৃন্দ ও
অতিথিবৃন্দ। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবিব তাঁর বক্তব্যে বলেন- ‘বই জ্ঞানের ভাণ্ডার এবং মেধা বিকাশের উৎস।’ মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে নবীগঞ্জ পৌরসভা ২য় বারের মতো অমর একুশে বইমেলার আয়োজন করায় নবীগঞ্জ পৌরসভার স্বনামধন্য মেয়র আলহাজ্ব ছাবির আহমদ চৌধুরীসহ পৌর পরিষদের প্রশংসা করেন এবং মেলা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান।
নবীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব ছাবির আহমদ চৌধুরী সভাপতির বক্তব্যে বলেন- বইমেলা যদি শিশু কিশোর তথা সকলকেই বইয়ের প্রতি কিছুটা হলেও আকৃষ্ট করে তবেই আমাদের আয়োজনের সার্থকতা।’ তিনি দর্শক, পাঠক, শ্রোতা সবার কমিন্টমেন্ট আদায়ের লক্ষ্যে বলেন- আপনাদের শুধু বইমেলায় আসলে হবে না, বই কিনতে হবে, বই পড়তে হবে, পরিবারের সবাইকে বই পড়ায় উৎসাহিত করতে হবে। যদি আপনারা বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলেন আর সকলের সহযোগিতা থাকে তাহলে অমর একুশে বইমেলা অব্যাহত রাখতে চাই এবং আগামীতে বইমেলা ৩দিন না করে ৭ দিন করার প্রচেষ্টা থাকবে। পরিশেষে তিনি অমর একুশে বইমেলা ২০১৮’র দেশবরেণ্য অতিথিগণসহ মেলায় অংশগ্রহণকারী সকল ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, মেলা উদযাপন কমিটি, উপকমিটি, কবিসাহিত্যিকবৃন্দ, ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যবৃন্দ, পৌর পরিষদের কাউন্সিলরবৃন্দ, পৌরসভার কর্মকর্তা/ কর্মচারীবৃন্দসহ নবীগঞ্জের সর্বস্তরের নাগরিকবৃন্দকে তিনদিনব্যাপী বইমেলাকে সফল ও সার্থক করার জন্য কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান। আলোচনা পর্বের পর কবি পৃথ্বীশ চক্রবর্ত্তী ও কবি আব্দুল মুকিত পাঠান’র নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন সভার প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথিবৃন্দ ও সভাপতি মহোদয়। তারপর বইমেলা কমিটি ও উপ কমিটির আহ্বায়ক ও সদস্যসচিবদের ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিজয়ী শিক্ষার্থীদের পুরস্কৃত করা হয়। মেলায় ৩টি স্টলকে সেরা ঘোষণা করে তাদের পরিচালকদের হাতে ক্রেস্ট এবং অন্যান্যদের মেডেল পরিয়ে দেন পৌরমেয়র-সহ অতিথিবৃন্দ। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরান তেলাওয়াত করেন পৌরসভার হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা শেখ মো. জালাল উদ্দিন ও পবিত্র গীতাপাঠ করেন ধনঞ্জয় দেবনাথ। এপর্ব সঞ্চালনা করেন গীতিকার ও প্রধান শিক্ষক আলী আমজাদ মিলন। পরিশেষে সাহেল আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৮৯১ বার

Share Button