শিরোনামঃ-


» নশ্বর জীবন

প্রকাশিত: ২০. মার্চ. ২০১৮ | মঙ্গলবার

তামান্না জেসমিন

বিভক্তি বিভাজন সত্যি আমার ভাল্লাগেনা। ভাল্লাগেনা বৃহৎ কে ভগ্নাংশে রূপ দেবার অনিচ্ছাকৃত দায়ভার বয়ে ভিতরে ভিতরে জ্বলে পুড়ে ছাই হতে! এই দায় আমাকে মাথায় নেবার দাবী কেনো তোলে ওরা? স্রেফ সংসারের বড় সন্তান বলে?

একদিন বৃহত বাড়ির সমুখে ছিলো বিশাল বাগান, সেখানে কত রকম ফুল! সব ফুলের গন্ধকে আলাদা করা যেতোনা – হাসনাহেনা, গন্ধরাজ, কাঠালিচাঁপা, কামিনীকে। বাগান পেরিয়ে সরকারি রাস্তা। এরপর আমাদের প্রশস্ত সবুজ মাঠ খালের গা ঘেঁষে। ছোট বেলার সবুজ সাথিদের সাথে শিশির ভেজা সবুজ ঘাশে খালি পায়ে জোছনা রাতে দৌড়াদৌড়ি, গোল্লাছুট! সেই মধুময়ী সহজ দিনগুলো গত হয়েছে যেনো কিছুক্ষণ আগে। মনে হয় যেনো “কিছুক্ষণ ” কিন্তু আসলে তা হিসেব নিকেষে গড়িয়ে গেছে বহুদিন সময়ের আবর্তে।

সময় সেখানে তুলে এনেছে মিল কারখানা, পরিবেশ দুষনের অসহনীয় মাত্রা! অসহ্য শব্দ, খালে ভেসে বেড়াচ্ছে চেড়াই কাঠে ভর্তি ইঞ্জিনচালিত নৌকা! বাতাশে উড়ছে কাঠের গুড়ো। বাড়ির কোনায় বিশাল ঘন বাশঝাড় কোথায়? কোথায় সেই বিশালাকার সিরিস, মেহগনি, বেল, জামরুল আর নীম গাছ?

আজকের এই নিরেট বাস্তবতায় সেই সুখের দিনের সবুজ সাথীরা বড্ড অচেনা! তারা আজ অনেক বড়। তাদের হাতে কাগোজ কলম, যায়গা জমি মাপঝোকের জন্য মেজারমেন্ট টেপ সাথে আমিন। একটি বিশাল জমিকে টুকরো টুকরো করার জন্য শরীর থেকে অজস্র ঘাম ঝরছে! বেশ ক’জন শরীক্! বাস্তব বড় কঠিন। সেখানে লজিক থাকে, থাকে অপ্রিয় সত্যি, থাকে তিক্ততা! তাই হয়তো ভাগাভাগির ভোগান্তিতে আমি ক্লান্তি অনুভব করি! আমার অনুভূতি কে ঘিড়ে রয়েছে ঘন কুয়াশা। চোখের কোনে আড়াল করে আছে শ্রাবনের কালো মেঘ!
আমি কি বুঝি আর এস, সি এস, পড়চা, রেকর্ড, মিউটেশন, দলিল, খাজনা! কোনদিন তো শুনিনি পাপার মুখে এত্ত সব। খুব হিসেবি আর বৈষয়িক না হলে বুঝি এই ঝক্কিঝামেলা যন্ত্রণা পোহাতে হয় ?

পাড়াপড়শি বলে, সারে তিনহাত মাটি ছাড়া আর তো কিছু পাওয়ার নাই। তসবিহ হাতে পাচ ওয়াক্ত নামাজের জন্যে মসজিদে ছোটাছুটি করে, ওকুলের সুদীর্ঘ বেহেস্তি জীবনের আশায় তারা দুদিনের দুনিয়ার মায়া কে ছোট করে দেখেনা কিন্তু। তাদের অনেক চাই। নীতিবাক্য আওড়াতে জুড়ি নেই। তাদের কিন্তু চাই চাই সব চাই! অন্যকে ঠকানোর জন্যে ধর্মীয় লেবাসের ভূমিকাও কি কম? তিন হাত মাটির ই বা গ্যারান্টি কিসের? কার কখন কবে কোথায় মরন হবে – কেমন করে বলি?
মানুষ বাড়ছে, পরিবার ভাংছে, বসত বাড়ি যায়গাজমি ছোট ছোট খন্ডে হচ্ছে আলাদা। সেই সাথে সততা, বিশ্বাস ,মূল্যবোধ নির্ভরতা মানবতা, নৈতিকতা হাড়াচ্ছে মানুষ।

আজ আমার কিছুই ভালোলাগেনা। এই নশ্বর জীবনের জন্য খুব বেশী কিছু কি দরকার লাগে? আমাকে ভালভাসা দাও, রবীন্দ্রনাথের গান দাও, পৃথিবী নামক গ্রহটিতে ঘুড়ে বেড়াবার জন্যে যাযাবর জীবন দাও, অরন্য থেকে সমুদ্র, পাহাড় থেকে ঝর্না, জলপ্রপাত থেকে নীলাকাশ দাও, দাও স্রাবন, পবন, অড়োরা, দাও পাখির মতো ওড়ার স্বাধীন জীবন, দাও মুক্ত চিন্তার জন্য কিঞ্চিৎ সময়।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৭২৯ বার

Share Button

Calendar

November 2020
S M T W T F S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930