» নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত বিএনপি -তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত: ২৯. জানুয়ারি. ২০২০ | বুধবার


তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ভরাডুবি বুঝতে পেরে বিএনপি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার ষড়যন্ত্র করছে ।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন-বিএফডিসিতে মুজিববর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র লীগ আয়োজিত আনন্দ র‌্যালি উদ্বোধনকালে সমসাময়িক বিষয়ে সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি ।

মন্ত্রী বলেন , ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ক’দিন পরে। তারা (বিএনপি) বুঝতে পেরেছে যে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে তাদের ভরাডুবি হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য এবং এই নির্বাচনকে ঘিরে হাঙ্গামা করার জন্য তারা নানাধরণের ষড়যন্ত্র আঁকছে। এবং তাদের যে পেট্রোল বোমাবাহিনী, তাদেরকে তারা আনছে এবং সক্রিয় করছে। সবাইকে এইজন্য সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে, যাতে করে কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে।

কেউ যাতে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে বা দেশকে অস্থিতিশীল করতে না পারে, সেজন্য সবাইকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে, বলেন ড. হাছান মাহমুদ।

নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কি না- এ প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হবে, যদি বিএনপি নির্বাচনী পরিবেশকে বিঘিœত না করে। আপনারা জানেন, পুরান ঢাকায় তারা কি করেছে। তারা অনুধাবন করতে পারছে যে, জনগণ তাদের সাথে নাই। সুতরাং তাদের অপচেষ্টা হচ্ছে নির্বাচনী পরিবেশটাকে বিঘিœত করে নির্বাচনটাকে প্রশ্নবিদ্ধ করা।

সুষ্ঠু, অবাধ, শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করার লক্ষে নির্বাচন কমিশন যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার সেটিকে সর্বাত্মকভাবে সহায়তা করবে’ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান বলেন, ‘আপনারা জানেন যে, চট্টগ্রাম শহরে ক’দিন আগে উপ-নির্বাচন হয়েছে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ। ঢাকা শহরেও একইভাবে সুষ্ঠু নির্বাচন করার জন্য নির্বাচন কমিশন বদ্ধপরিকর। নির্বাচন কারো অধীনে হয় না, সরকার নির্বাচন কমিশনকে সহায়তা করে।

তথ্যমন্ত্রী এসময় চলচ্চিত্র লীগকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, চলচ্চিত্র অঙ্গণে যারা আজকে প্রতিকূল আবহাওয়া সত্ত্বেও মুজিববর্ষ আগমনকে সম্ভাষণ জানিয়ে আজকের এই র‌্যালিতে এসেছেন, আমি তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। আপনারা জানেন যে, মুজিববর্ষ ক্ষণগণনা শুরু হয়েছে। আর কয়েকদিন পরেই ১৭ মার্চ যেদিন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্মগ্রহণ করেছিলেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে তাঁর হাত ধরেই বাংলাদেশে চলচ্চিত্র যাত্রা শুরু হয়েছিল।

মন্ত্রী জানান, ‘মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রথমত ভারত-বাংলাদেশ যৌথভাবে একটি ছবি নির্মাণ করছে, যেটির কাজ বহুদূর এগিয়ে গেছে। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে মুজিববর্ষে শেষলগ্নে অর্থাৎ আগামী বছরে মার্চ মাসে বঙ্গবন্ধুর ওপর এ ছবিটি মুক্তি লাভ করবে। এছাড়াও বঙ্গবন্ধুকে ঘিরে আরো অনেকগুলো শর্টফিল্ম আমরা তৈরি করছি। বঙ্গবন্ধু ফিল্ম সিটি আধুনিকায়নের কাজ এগিয়ে চলেছে। এছাড়া, এফডিসির আধুনিকায়নের জন্য ৩২৭ কোটি টাকার প্রকল্পটি আগামী ৩ বছরের মধ্যে শেষ হবে।’

চলচ্চিত্র লীগের আনন্দ র‌্যালিতে বিশিষ্ট শিল্পী ও সংস্কৃতিজন সৈয়দ হাসান ইমাম, চিত্রনায়ক আলমগীর, চলচ্চিত্র লীগের সভাপতি মীর্জা আবদুল খালেক, পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, চিত্রনায়িকা মৌসুমীসহ বিশিষ্ট চলচ্চিত্রব্যক্তিত্ববর্গ অংশ নেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৪১ বার

Share Button