প্রেমের ঘরে সবই ফাঁকা, অন্তর ঘরে আমি একা

প্রকাশিত: ৭:৩০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৯

প্রেমের ঘরে সবই ফাঁকা, অন্তর ঘরে আমি একা

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার

সাহিত্যের মধ্যে সবচেয়ে জটিলতম অধ্যায় হচ্ছে কবিতা । ওখানে আবেগের স্থান নেই। যুক্তি, বুদ্ধি, বিচারশক্তি অর্থাৎ মেধার ক্রিয়া চলে ওখানে। সেখানে লিখিয়েদের ভিড় খুবই কম। হঠাৎ দেখা গেছে জনবিরল ওই স্থানের দিকে বড় সাহসে কেউ কেউ হেঁটে গেছেন । সেই হেঁটে যাওয়ার মধ্যে এক ব্যতিক্রম হচ্ছেন ” প্রাকৃতজ শামীমরুমি টিটন তাদেরই মধ্যে অন্যতম একজন । তিনি পাঠক মহলে চেনা হয়ে গেছেন দুই যুগ আগে থেকেই। তাহার লেখা অনেক কটা বই আছে তার । তার মধ্যে ” প্রেমের ঘরে সবই ফাঁকা অন্তর ঘরে আমি একা ” ভালোবাসা প্রেমের কবিতা সমগ্র – এবার ২০১৯ অমর একুশে বইমেলায় প্রকাশিত হয় অন্যতম মুল্যবান বইটি।
বইটির শিরোনামেই এর ভেতরকার অর্থাৎ অন্ত:সারকে চেনা যায়। এ বইটিকে যদি আমরা একটি বৃক্ষ বলি তবে বলতে হয় এর অনেক ক’টি শাখা – প্রশাখা আছে। অর্থাৎ কবিতাগুলো বিষয় – বৈচিত্র্যে বৃক্ষ শাখার মতো। জীবন ও কালের প্রায় সবদিকই কবিতাগুলোর বিষয়ভাবনা কাল – কালান্তরের ন্যায়। উক্ত গ্রন্থের প্রতিটি লেখাই গুরুত্ব বহন করে। এর ভেতর এমন কিছু লেখা আছে যার সঙ্গে মানবসভ্যতার বিপ্রতীপ বা প্রতিকুলতার সম্পর্ক। ‘ জাত প্রথায় শ্রেণী শোষণ ‘ অন্যতম প্রধান লেখা কবিতাগুলো।

লেখক কবি প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন তার কবিতা লেখায় লেখক দেখিয়েছেন মুসলমান, হিন্দু ও অন্যান্য গুর্ত বর্ণবাদ কিভাবে সমাজ – রাষ্ট্রের রক্তে মিশে আছে। বিভিন্ন ধর্মের ধর্মগুরুরা ও যে এ মুক্ত নন, কথা বলতে গিয়ে লেখক তা স্পষ্ট করেছেন। ধর্ম ও বর্ণবাদ নিয়ে বাংলা সাহিত্যের দৃষ্টান্ত ও দেখিয়েছেন লেখক তার এই ” ভালোবাসা প্রেমের কবিতা সমগ্র ” বইটিতে।

মুল্যবান এই বই পাঠকমাত্রকেই নাড়া দেবে বইটির বিষয় ভাবনার কারণে। উল্লেখ্য বিষয় হচ্ছে লেখক কবি কখনও জ্ঞানের ভান্ডারে প্রাচীন পরিব্রাজকের মতো বিশ্ব ভ্রমণের ন্যায় চুসে বেরিয়েছেন প্রাচীন ইতিহাসের পান্ডুলিপি হাতে । পর্তুগিজ আগ্রাসনে পতিত সতেরো শতকের ভারতবর্ষ, আঠারো শতকের সিপাহী বিদ্রোহ থেকে তিনি একেবারে সমকালের সামাজিক – জীবন, যেমন ঈদপার্বণ থেকে দৈনন্দিন বাজারের দুনিয়ায় হেঁটে গেছেন অবলীলায় । বাঙালির ভাষা – সংস্কৃতি, তার নববর্ষ, বিগত বছরের প্রাপ্তি শুন্যতাকেও আঙুল দিয়ে দেখিয়েছেন তার এই ” প্রেমের ঘরে সবই ফাঁকা অন্তর ঘরে আমি একা ” ভালোবাসা প্রেমের কবিতা সমগ্র বইটিতে । জৈবিকতা জীবনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ । এটি অস্বীকার করার কোন জো – নেই । কবিতা সমগ্রহে এ বিষয়টি কোথাও কোথাও ফুটে ওঠেছে অত্যন্ত নান্দনিকভাবে । এ বইটির ১৬০ পৃষ্ঠার মধ্যে লেখক একটি বিশাল ভুমিকা পাঁচ পৃষ্ঠা লিখেছেন অত্যন্ত চমৎকার ভাবে তার ভুমিকা সমাজের চিত্র তুলে ধরেছেন । যা পাঠকমহলে এ ভুমিকা নতুন একটি ধারণা দেবে । যারা মান্টোর গল্পে যৌনতা ছাড়া কিছুই দেখেন না। তারাও এ ভুমিকায় নিজেদের জীবন যৌবন যৌনতা কে আবিষ্কার করতে পারবেন নতুনভাবে ।

লেখকের ভুমিকা থেকে ছোট একটি অংশ সংযোজন করলাম এখানে!
আমি ভালোবাসি মানুষ – মা- মাটি এবং মহাবিশ্বের মতো টেনে প্রসারিত করে অসীম বোধের গহন গভীরে । স্থান – কালে অস্তিত্বের জগতে ( existence of the Universe within time & space) ” স্থাবর জঙ্গমে দৃশ্য – অদৃশ্য সবকিছুতে একটা টান আর্কষণ গতিশক্তির সঞ্চার আমরা খোলা চোখে দেখি আলো – অন্ধকারে চন্দ্র – সুর্য – নক্ষত্র আকাশে মেঘ – জল – বায়ু এবং জগতের প্রকৃতি – পরিবেশ পৃথিবীর ভুগর্ভে, ভূপৃষ্ঠে – মাটি পাহাড় – পর্বত – সাগর – নদী – জলাধার – ঝর্ণা – প্রস্রবণসহ সবুজ উদ্ভিদ ও প্রাণিজগতের ফুল – ফল চির প্রাণের জগতে তার পুর্ণ সৌন্দর্য প্রকাশিত এই অনন্য পৃথিবী গ্রহে ।

লেখক প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন জীবন ও জ্ঞানসাধনায় কর্মযোগী সিদ্ধ – সাধকপুরুষ । বিপুল বিশাল তাঁর কর্মকীর্তি ও রচনা সম্ভার। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকোক্তর ডিগ্রি অর্জনের পাশাপাশি কর্মে আত্ননিয়োগ করেন ” মাসিক আনন্দন ” পত্রিকার ( ডিএ ১০৪০ ) প্রকাশক ও সম্পাদক হিসেবে । সময়টা ছিল আজ থেকে ২৮ বছর আগে। তৎকালীন রাজধানী দৈনিক বাংলা মোড় ২২১ ফকিরাপুল এলাকায় ছিল তার প্রকাশনার অফিস । বর্তমানে এর কোনোটিরই অস্তিত্ব আর অবশিষ্ট নেই । অবশ্য তার সেই পথরেখায় আজ সৃষ্টি হয়েছে দেশের মধ্যে আন্তজার্তিক খ্যাতি- সম্পন্ন প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান ” দি অ্যাটলাস পাবলিশিং হাউস ” এ প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা মহাপরিচালক তিনি। টিটন’স ওয়ার্ল্ড অ্যাটলাস, বাংলাদেশ অ্যাটলাস, টিটন’স মানচিত্রে বিশ্বপরিচিতি ও বাংলাদেশ পরিক্রমা – ভু- সংস্থানিক তথ্যকোষসহ অ্যাটলাস বইগুলোই তাঁর খ্যাতির দ্বার উন্মোচন করেছে । এনেছে বিপুল পাঠক প্রিয়তা ও বৈষয়িক অর্জন ।

লেখক প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন তিনি জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোড কতৃক অনুমোদিত ( এনসিটিবি ) বাংলা ভাষা বিষয়ক বই সহ নিম্ন মাধ্যমিক ‘ মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, ও স্নাতক শ্রেণীর শতাধিক টেকস্ট ও সহায়ক বইয়ের প্রণেতা । তারিসাথে বাংলাদেশের শিক্ষা অঙ্গনের নিম্ন ও উচ্চ শিক্ষা মাধ্যমের পাঠ্যসুচী সংগীত বিষয়ক বই ” উচ্চাঙ্গ সংগীত ও লঘুসংগীত ” এ দুটি বইয়ের একমাত্র প্রণেতা হিসেবে বাংলাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্টান কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে এই বইটির লেখক হিসেবে অত্যন্ত সফলতার শীর্ষস্থান অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন ।

এই ভালোবাসা প্রেমের কবিতা সমগ্র ” প্রেমের ঘরে সবই ফাঁকা অন্তর ঘরে আমি একা ” মুল্যবান বইটি অমর একুশে বইমেলা ২০১৯ সোহরাওয়ার্দী মাঠ প্রাঙ্গণে প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান ” দি ইউনিভার্সেল একাডেমি – স্টল নাম্বার – ৫৫৩ – ৫৫৪ – ৫৫৫ – ৫৫৬ – এই প্রকাশনা সংস্থার পরিবেশনায়। পাঠকপ্রিয় দর্শক শ্রোতারা বইটি উক্ত প্রকাশনাা হাউস থেকে বইটি সংগ্রহ করতে পারবেন ।


এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Calendar

December 2020
S M T W T F S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  

http://jugapath.com