» বাংলাদেশে ব্যক্তির নিরাপত্তা দেয়া কতটা কঠিন?

প্রকাশিত: ০৬. মার্চ. ২০১৮ | মঙ্গলবার

বাংলাদেশে গত তিন বছর ধরেই লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবালকে নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছিল – কিন্তু পুলিশের উপস্থিতিতেই তার ওপর শনিবার হামলা হয়েছে ।  এ ধরনের গুরুত্বপূর্ণ এবং জনপ্রিয় ব্যক্তির নিরাপত্তা নিশ্চিত করাটা আসলে কতটা চ্যালেঞ্জের ? মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলার পর বিশিষ্ট ব্যক্তিদের নিরাপত্তার বিষয়টি আলোচনায় উঠে এসেছে ।

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া এক ছবিতে দেখা গেছে তাঁর নিরাপত্তায় থাকা পুলিশের কয়েকজনের পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলো হামলাকারী । ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী উচ্ছাস তালুকদার । তিনি বলছেন, “স্যার যখন মঞ্চ ছিলেন তখন পুলিশ ছিলো । সবসময় যেমন থাকে যে ওরা মোবাইলে কথা বলে । যখন ছুরি মারলো তখন পুলিশই প্রথম ধরে । পরে সবাই এগিয়ে যাই আমরা ।”

শিক্ষার্থীদের তরফ থেকে প্রশ্ন উঠলেও রবিবার সিএমএইচে মিস্টার ইকবালকে দেখতে গিয়ে তার স্ত্রী ইয়াসমিন হক স্পষ্ট করেই বলেছেন নিরাপত্তার ক্ষেত্রে পুলিশের ভূমিকায় তারা সন্তুষ্ট ।

তিনি বলেন, “২৪ ঘন্টাই আমাদের সঙ্গে পুলিশ থাকে । অসম্ভব প্রটেকশন দিয়েছে আমাদের । জাফর ইকবাল সবসময় বলে আপনারা সরে যান, শিক্ষার্থীদের বাধা দেবেন না ।  তারপরেও পুলিশ তাদের সেরা চেষ্টাই করেছে । তারা বাধা দিয়েছে । একজন আহতও হয়েছে” ।

বাংলাদেশের জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানের নিরাপত্তার জন্য রয়েছে বিশেষ বাহিনী এসএসএফ । আবার মন্ত্রী, আমলাদের মধ্যে অনেকে পেয়ে থাকেন বিশেষ পুলিশী নিরাপত্তা ।  এর বাইরেও জাফর ইকবালের মতো বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিকে নিরাপত্তায় পুলিশ বা গানম্যান দিতে দেখা যায় যারা নিয়মিতই জনসমাবেশসহ নানা ধরনের পাবলিক অনুষ্ঠানে যোগ দেন । তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা কি আসলেই কঠিন ?

জবাবে এসএসএফ -এর সাবেক ডিজি মেজর জেনারেল অবসরপ্রাপ্ত ফাতেমী আহমেদ রুমী বলেন, “খুবই কঠিন আসলে । একটা হলো শারীরিক নিরাপত্তা, আরেকটা হলো গোয়েন্দা নিরাপত্তা ।  আমাদের যেহেতু আগাম তথ্য কম থাকে সেজন্য শারীরিক নিরাপত্তা বাড়িয়ে দেই ।  সেজন্য ভিভিআইপিরা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন”।

যদিও এসএসএফ র অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকেও বারবার বলতে দেখা যায় এমনভাবে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যাতে করে তারা জনবিচ্ছিন্ন না হন । আবার জাফর ইকবালের স্ত্রী যেমন বলছেন  ইকবালও ক্যাম্পাসে নিরাপত্তার কারনে তার শিক্ষার্থীরা বাধাগ্রস্ত হোক সেটি পছন্দ করেননি ।

বাংলাদেশ পুলিশের মুখপাত্র সহকারী মহাপরিদর্শক সোহেলী ফেরদৌস বলছেন, নিরাপত্তার ক্ষেত্রে এ দুটির মধ্যে সমন্বয় করাটাই তাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জের বিষয় হয়ে দাঁড়ায় ।

পুলিশের এই মুখপাত্র বলছেন, পরিস্থিতি যেমনই থাকুক যখন যার নিরাপত্তায় পুলিশ ব্যবস্থা নেয় – তখন তাকে অবহিত করেই নিরাপত্তার যথাযথ ব্যবস্থা তারা নিয়ে থাকেন । -বিবিসি বাংলা ।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪৫৮ বার

Share Button

Calendar

July 2020
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031