শিরোনামঃ-


» বিএনপি অরাজকতা সৃষ্টির অপচেষ্টা করলে জনগণ প্রতিহত করবে ঃ তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত: ০৬. ডিসেম্বর. ২০১৯ | শুক্রবার

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি আন্দোলনের নামে অরাজকতা সৃষ্টির অপচেষ্টা করলে জনগণ প্রতিহত করবে । আওয়ামী লীগ জনগণের পাশে থাকবে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে আগামী ২০-২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে ওয়েবসাইট council.albd.org উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন। তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা: মো: মুরাদ হাসান, দলের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আক্তার হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা বলরাম পোদ্দার, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শাহজাদা মহিউদ্দীনসহ প্রচার উপ-কমিটির সদস্যবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

আদালতে বিএনপির বিক্ষুব্ধ আচরণ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি প্রথম থেকেই বলে আসছি বিএনপি আইন মানেনা, আদালত মানেনা, দেশের আইন আদালত কোনো কিছুর তোয়াক্কা করেনা। বেগম খালেদা জিয়ার মামলাই দেশের ইতিহাসে সেই মামলা, যে মামলায় আসামী হাজির থাকা সত্ত্বেও সর্বোচ্চ সংখ্যক জামিন হয়েছে। অন্যান্য মামলার দ্রুত রায় হলেও বেগম জিয়ার মামলা দীর্ঘ দশ বছর চালানো হয়েছে, তখনও তারা আদালতে হট্টগোল করেছে, আদালতের বাইরে হট্টগোল করেছে, জনগণের ওপর আক্রমণ পরিচালনা করেছে, গাড়ি ঘোড়া ভাংচুর করেছে।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে আদালতে তারা যে হট্টগোল করেছে, তারা যে আইন-আদালত মানেনা তারই বহি:প্রকাশ এবং চরমভাবে আদালত অবমাননার শামিল। আর আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে কর্মসূচি দেবার অর্থ আদালতকে অবজ্ঞা-অবমাননা করা।’

‘আর তারা যদি কর্মসূচির নামে ভাংচুর, জনগণের ওপর আক্রমণ পরিচালনা, অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করে, দেশের মানুষ তাদেরকে আবার কঠোরহস্তে প্রতিহত করবে এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জনগণের পাশে দাঁড়াবে, বলেন তথ্যমন্ত্রী।

দলের জাতীয় সম্মেলন ওয়েবসাইট council.albd.org উদ্বোধনের প্রাক-কথনে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগ একটি আধুনিক ডিজিটাল রাজনৈতিক দল। আওয়ামী লীগই যুগে যুগে জাতিকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবার স্বপ্ন দেখিয়েছে, জাতি যে ভবিষ্যত ভাবেনি, আওয়ামী লীগ সেটি ভেবেছে। এবং শুধু ভাবনাতেই সীমাবদ্ধ রাখেনি, কাজে রূপান্তর করেছে, স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করেছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়েছে, ক্ষুধামুক্ত বাংলাদেশ গড়েছে, দিন বদলের বাংলাদেশ গড়েছে, খাদ্য ঘাটতির দেশ আজ খাদ্যে উদ্বৃত্তের দেশ। সুতরাং শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে বাংলাদেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে চলছে।

কৃষিপ্রধান সমৃদ্ধ বাংলাদেশ শিল্পবিপ্লবের পর পিছিয়ে পড়ে, কিন্তু লক্ষ শহীদের রক্তস্নাত বাংলাদেশ পিছিয়ে থাকার দেশ নয়, উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সেই কারণে পৃথিবীর চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের শুরুতেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তাঁর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা জনাব সজীব ওয়াজেদের পরামর্শে বাংলাদেশকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির সাথে সম্পৃক্ত করার জন্যেই ২০০৮ সালে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার শ্লোগান দিয়েছিলেন।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার যুগান্তকারী নেতৃত্বে আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল বাংলাদেশ। সাড়ে ১৬ কোটি মানুষের দেশে আজ ১৫ কোটিরও বেশি মোবাইল সিম ব্যবহার হয়। আজ একজন রিক্সাওয়ালা ভাইয়ের কাছে মোবাইল ফোন, একজন ভিক্ষুকের কাছে মোবাইল ফোন, একজন গৃহবধূর কাছেও মোবাইল ফোন। শুধু কথা নয়, মোবাইলে তারা ভিডিও কনফারেন্স করে, জমির ফসলের ছবি তুলে চাষী কৃষি কর্মকর্তাকে পাঠিয়ে মোবাইলেই জেনে নেয় কি ওষুধ দিতে হবে। পাশাপাশি আছে টেলিমেডিসিনও।

ওয়েবসাইট উদ্বোধন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আধুনিক ডিজিটাল উন্নয়নের ধারাবাহিকতায়ই আজ আমরা আওয়ামী লীগের সম্মেলন উপলক্ষে ওয়েবসাইট উদ্বোধন করেছি। আওয়ামী লীগের প্রচার উপ-কমিটির সদস্যবৃন্দ এবং সিআরআইকে এ কাজে আন্তরিক সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানাই। এই ওয়েবপেজে সম্মেলনের তথ্যের পাশাপাশি আমাদের সকল প্রকাশনাও পাওয়া যাবে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৮৯ বার

Share Button