» বিএসএমএমইউ’তে কাদেরের চিকিৎসায় সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকদল

প্রকাশিত: ০৩. মার্চ. ২০১৯ | রবিবার

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার:

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের ৩ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।
রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তারা এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় এসে নামেন। সেখান থেকে তাদেরকে নিয়ে যাওয়া হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ)।
এই তিন চিকিৎসক ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা দেখার পর সিঙ্গাপুরে নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।
এদিকে ওবায়দুল কাদের চোখ খুলে কথা বলার চেষ্টা করেছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। রোববার বিকেলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের মিল্টন হলে ব্রিফিংয়ে একথা জানানো হয়।
এ সময় হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগের সভাপতি সৈয়দ আলী আহসান বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের চোখ খুলছেন। কথা বলার চেষ্টা করছেন। পাও নাড়িয়েছেন। তবে অবস্থায় এখনো ক্রিটিক্যাল।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসার পর ওবায়দুল কাদেরকে ডাকেন। এসময় প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে মিটমিট তাকানোর চেষ্টা করেন তিনি।
এরপর যখন রাষ্ট্রপতি আসেন তখন বড় বড় চোখ করে তাকিয়েছেন। এসময় ওবায়দুল কাদেরের শারিরীক অবস্থা এবং চিকিৎসার সার্বিক বিষয়ে রাষ্ট্রপতিকে জানানো হয়।
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ওবায়দুল কাদেরের অবস্থা কিছুটা উন্নতি হলেও, এখনো আশঙ্কামুক্ত নন। ২৪ থেকে ৭২ ঘণ্টা না গেলে কিছুই বলা যাবে না।
এরআগে হাসপাতালে গিয়ে রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থার খোঁজ খবর নেন। চিকিৎসকদের কাছে তার সর্বশেষ পরিস্থিতি জানেন এবং চিকিৎসার ক্ষেত্রে করণীয় সবকিছু করার নির্দেশ দেন।
রোববার সকাল পৌনে ৮টার দিকে ওবায়দুল কাদের প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে আসেন। তাৎক্ষণিক তাকে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (সিসিইউ) স্থানান্তর করা হয়।
সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার হার্ট অ্যাটাক হয় বলে জানিয়েছেন বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।
তিনি বলেন, চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার হার্ট অ্যাটাক হয়। পরে এনজিওগ্রাম করে দেখা যায়, তার হার্টে তিনটি ব্লক। একটিতে স্টেন্টিং করে দেয়া হয়েছে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২০৭ বার

Share Button

Calendar

July 2020
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031