বিজয়ে বিনয়ী হোন, দলীয় কর্মীদের প্রতি তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৬:১২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৮, ২০১৯

বিজয়ে বিনয়ী হোন, দলীয় কর্মীদের প্রতি তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘কাঁধে দায়িত্ব এলে বিনয়ী ও নম্র হতে হয়, বিজয়ীর আচরণ যেনো কারো বিরক্তির কারণ নাহয়। বিজয়ের পর যেভাবে আমরা নেত্রীর নির্দেশ মেনে চলেছি, তা বজায় রাখতে হবে। মানুষ যেনো আমাদের ভালোবাসে, আবারো দায়িত্ব দেয়, সেজন্য আমাদের দায়িত্ববান হতে হবে।’

শুক্রবার সকালে রাজধানীর ১৯ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে শনিবার (১৯ জানুয়ারি) সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহবান জানান।

এসময় বিএনপি’র প্রসঙ্গ টেনে মন্ত্রী বলেন, ‘২০০১ সালের নির্বাচনের পর দেশকে সন্ত্রাসের জনপদে পরিণত করা হয়েছিলো। নৌকায় ভোট দেবার অপরাধে ৮ বছরের শিশুকেও ধর্ষণ করা হয়েছিলো, গ্রামছাড়া হয়েছিলো বহু পরিবার। আর টানা তৃতীয়বার বিজয়ী হয়েও আওয়ামী লীগ বিজয়োৎসব করেনি।’

‘আমাদের শনিবারের সমাবেশ বিজয় সমাবেশ, উৎসব নয়; সমাবেশ বর্ণিল কিন্তু সুশৃঙ্খল হবে; নেত্রীর বক্তব্য শেষ হওয়া পর্যন্ত সবাই উপস্থিত থাকবো’, নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন ড. হাছান মাহমুদ।

মন্ত্রী এসময় দেশের বিস্ময়কর উন্নয়নের বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেন, ‘বিমান থেকে এদেশের ফ্লাইওভার আর গগনচুম্বী অট্টালিকা দেখে ইউরোপের মত মনে হয়, হাতিরঝিলের সৌন্দর্য মনে করিয়ে দেয় প্যারিসের কথা, গ্রামে আর কুঁড়েঘর পাওয়া যায়না, হারিকেন আজ স্মৃতির অংশ। শেখ হাসিনার জাদুকরী নেতৃত্বে এদেশ আজ বদলে যাওয়া বাংলাদেশ।’

পরাজিতের মুখরক্ষায় সংলাপ, টিআইবি এখন বিএনপি-জামাতের অক্সিজেন

‘আওয়ামী লীগের বিজয় যেমন বিশাল, প্রতিপক্ষের পরাজয়ও তেমন ধস নামানো; আর এমন ধসে যাওয়া পরাজয়ের পর মুখরক্ষার জন্যই সংলাপের দাবি তাদের’ বলেন তথ্যমন্ত্রী।

‘আর এই মুখ থুবড়ে পড়া বিএনপি-জামাতের পরাজিত নেতারা যখন আইসিইউতে, তখন টিআইবি তাদের অক্সিজেনের ভূমিকা নিয়েছে’ উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘টিআইবি নির্বাচন পর্যবেক্ষকও ছিলো না। যারা পর্যবেক্ষক ছিলো, তারা বলেছে নির্বাচন সুষ্ঠু, আর পর্যবেক্ষক না হয়ে মনগড়া প্রতিবেদন দিয়ে বিএনপি-জামাতের কথার প্রতিধ্বনি করছে টিআইবি।’

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে প্রধান বক্তা হিসেবে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদসহ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ সভায় অংশ নেন।

Calendar

December 2020
S M T W T F S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  

http://jugapath.com