বৃহত্তর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন কর আইনজীবীরা

প্রকাশিত: ১০:১১ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৬, ২০১৯

বৃহত্তর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন কর আইনজীবীরা

বাজেটে আয়কর আধ্যাদেশের ১৭৪ ধারার পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত থেকে সরে না আসলে আগামী ৩০ তারিখের পর থেকে বৃহত্তর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন কর আইনজীবীরা।
তবে এনবিআরের চেযারম্যন মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার আশ্বাসে আগামী পাচঁ দিন কড়া অবস্থানে না গিয়ে দেশব্যাপী ছোট আকারে বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করবেন বলে জানান তারা।
গতকাল মঙ্গলবার এনবিআরের নীচতলায় বাংলাদেশ ট্যাক্স ল’ইয়ার্স এসোসিয়েশন (বিটিএলএ) এবং ঢাকা ট্যাকসেস বার এসোসিয়েশনের যৌথ উদ্যোগে প্রস্তাবিত অর্থ বিল, ২০১৯-এ আয়কর অধ্যাদেশ, ১৯৮৪-এর ১৭৪(২)(এফ) ধারার পুনর্বহাল ও বাজেট বাস্তবায়নে কর আইনজীবীদের ভূমিকা সম্পর্কে সাংবাদিক সম্মেলন এসব কথা বলেন সংগঠনের নেতারা।
তারা বলছে সরকারের রাজস্ব আহরণে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) পাশপাশি সহযোগী ভূমিকা পালন করে আসলেও এনবিআরের একজন কর্মকর্তা অসৎ উদ্দেশ্যে সরকার ও আইনজীবীদের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দিয়েছে।
বক্তারা বলেন আইনজীবীদের এই আন্দোলন বাজেট বা সরকারের বিরুদ্ধে নয় শুধু একটি ধারার বিরুদ্ধে যা বাস্তবায়ন হলে এই পেশাটির পেশা হিসেবে হুমখির মুখে পড়বে।
সাবেক এমপি ও বিটিএলএ’র আহবায়ক এডভোকেট মো. সোহ্রাব উদ্দিন বলেন প্রস্তাবিত বাজেটে আয়কর অধ্যাদেশ, ১৯৮৪-এর ১৭৪(২)(এফ) পরিবর্তন যে প্রস্তাব করা হয়েছে তা বাস্তবায়িত হলে আয়কর কর্মকর্তারা টেক্স বারের সদস্য না হয়েই আযকর আইনজীবীর হিসেবে পেশায় নিয়োজিত হতে পারবে। এতে এই পেশার মান নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিবে বলে তিনি মনে করেন।
৩০ তারিখের পর বৃহত্তর আন্দোলনের ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, “আজ এনবিআরের চেয়ারম্যনের সাথে আমাদের বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে তিনি বলেছেন, বাজেটে ১৯৮৪-এর ১৭৪(২)(এফ) ধারাটি বাতিলের যে প্রস্তাব করা হয়েছে তা বাতিল করে বর্তমানে আইনটি যেভাবে আছে সেভাবেই বহাল রাখা হবে। তার আশ^াসে আশ^স্ত হয়ে আমরা ৩০ তারিখ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চাই। ৩০ তারিখ সংসদে বাজেন পাশ হবে। বাজেট পাশের পর যদি দেখি আমাদের দাবি মানা হয়নি তখন থেকেই দেশব্যাপী দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলব।”
সাবেক এমপি এডভোকেট শাহ্ জিকরুল আহমেদ বলেন এনবিআর যে বিশাল পরিমান রাজস্ব সরকারকে দেয তার সাহয়তা করি আমরা আয়কর আইনজীবীরা। কিন্তু দেখা যাচ্ছে একজন কর্মকর্তা সম্পূর্ণ নিজ হীন উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করতে সরকারের উপরমহলকে ভুল বুঝিয়েছে। শত বছরের একটি সুন্দর আইনটি পরিবর্তন করে একটি কালো আইন তৈরী করে আইনজীবীদের সরকারের মুখোমুখি দাড় করিয়ে দিয়েছে।
তিনি অবিলম্বে দাবি মেনে নিয়ে আইনজীবীদের বিশাল বাজেটের রাজস্ব আহরণে মনোযোগ দেওয়ার সুযোগ দিতে সরকারের প্রতি আহবান জানান।
ঢাকা ট্যাকসেস বার এসোসিয়েশনের সভাপতি হুমায়ুন কবীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন আহমেদ, সহ-সভাপতি এডভোকেট মোঃ আকবর হোসেন, সাবেক সভাপতি এডভোকেট অধ্যাপক আবদুল মজিদ, সাবেক সভাপতি এডভোকেট মোঃ আব্বাস উদ্দিন, বাংলাদেশ আওয়ামী কর আইনজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সৈয়দ ইকবাল মোস্তফা, ঢাকা ট্যাকসেস্ বার এসোসিয়েশনের কোষাধ্যক্ষ এডভোকেট মোঃ মুস্তাফিজুর রহমান, লাইব্রেরী সম্পাদক মশিউর রহমানসহ অন্যন্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Calendar

December 2020
S M T W T F S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  

http://jugapath.com