» বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রত্যেক নাগরিককে দক্ষ হতে হবে ; স্পীকার

প্রকাশিত: ৩০. অক্টোবর. ২০১৯ | বুধবার

স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রত্যেক নাগরিককে দক্ষ হতে হবে। এক্ষেত্রে উচ্চ শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ গ্রহণই হচ্ছে সবচেয়ে বড় মাধ্যম। ‘অস্ট্রেলিয়া এ্যাওয়ার্ড’ বাংলাদেশে উচ্চ শিক্ষার প্রসার ও নাগরিকদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখছে । তিনি আজ রাজধানীর অস্ট্রেলিয়ান হাই কমিশনের রিক্রিয়েশন সেন্টারে অস্ট্রেলিয়ার হাই কমিশন আয়োজিত “অস্ট্রেলিয়া এ্যাওয়ার্ড সাউথ এ্যান্ড ওয়েস্ট এশিয়া: ফেয়ারওয়েল এ্যান্ড ওয়েলকাম হোম ইভেন্ট” শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশে নিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার জুলিয়া নিবলেট।

স্পীকার বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া এ্যাওয়ার্ড’ বাংলাদেশের সরকারী ও বেসরকারি সংস্থা কর্মকর্তাদের জন্য একটা বিরাট সুযোগ। সাউথ এবং ওয়েস্ট এশিয়ার নাগরিকদের দক্ষতা বৃদ্ধিতেও এই এ্যাওয়ার্ড ভূমিকা রাখছে। তিনি বাংলাদেশের জন্য এই এ্যাওয়ার্ড অব্যাহত রাখার জন্য অস্ট্রেলিয়ার সরকারকে ধন্যবাদ জানান।তিনি বলেন, জ্ঞান ও প্রযুক্তি নির্ভর বিশ্বে বাংলাদেশের প্রশিক্ষণার্থী স্কলারদের আইসিটির সাথে সংযুক্ত থাকতে হবে। নিজেদের প্রতিভা ও মেধাকে সৃজনশীল কাজে লাগাতে হবে। এ সময় তিনি বিদেশ থেকে অর্জিত জ্ঞান দেশের উন্নয়নে কাজে লাগাতে স্কলারদের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান।

স্পীকার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়নসহ শিক্ষা ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে । জনগণের ভাগ্ন্যোন্নয়নে কাজ করছে সরকার। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকলে বাংলাদেশ ২০২১সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে এবং ২০৪১সালের মধ্যে ক্ষুধা, দারিদ্র্যমুক্ত এবং উন্নত-সমৃদ্ধ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের ৫০জন অস্ট্রেলিয়া স্কলারশীপ প্রাপ্ত প্রশিক্ষণার্থী সফলতার সাথে সম্পন্ন করে দেশে ফিরেছেন এবং ৫০ জন প্রশিক্ষণ নিতে যাবেন । এর মধ্যে ৫০শতাংশই নারী প্রতিনিধি।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২২৪ বার

Share Button