» ব্যাঙ্গালোরে বৈঠক করলেন চিকিৎসা বিজ্ঞানে দুই দেশের দুই মহারথী

প্রকাশিত: ১২. ডিসেম্বর. ২০১৯ | বৃহস্পতিবার

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন লিভার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল) আজ ভারতের ব্যাঙ্গালোরে নারায়ণ হৃদয়ালয়ে প্রখ্যাত কার্ডিয়াক সার্জন অধ্যাপক ডা. দেবী শেঠীর সাথে বৈঠকে মিলিত হন। অধ্যাপক ডা. দেবী শেঠীর ব্যাক্তিগত আমন্ত্রণে তার এই সফর।

হৃদরোগ চিকিৎসায় অধ্যাপক ডা. দেবী শেঠী প্রবাদতুল্য ব্যক্তিত্ব। ভারতবর্ষে হৃদরোগের আধুনিক চিকিৎসা প্রচলনে তার অবদান অনস্বীকার্য। পাশাপাশি গণমুখী কর্পোরেট স্বাস্থ্যসেবা বাস্তবায়নের জন্য তিনি চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন।শুধু ভারতেই নয়, বাংলাদেশের অসংখ্য হৃদরোগীও তার মাধ্যমে সরাসরি উপকৃত হয়েছেন।

অন্যদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের লিভার বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল) একজন গবেষক হিসেবে এরই মধ্যে দেশ-বিদেশে সুখ্যাতি অর্জন করেছেন। ন্যাসভেক, অটোলোগাস স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্টেশন ইত্যাদি বিষয়ে তার গবেষণা আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে। পাশাপাশি দেশে লিভার ক্যান্সার চিকিৎসায় টেইস, লিভার ডায়ালাইসিস সহ অত্যাধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতি প্রবর্তনের কৃতিত্ব তারই। ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ও থেরাপিউটিক এন্ডোস্কপিতে বাংলাদেশের অন্যতম পথিকৃত অধ্যাপক স্বপ্নীল। বিভিন্ন দেশি-বিদেশি বৈজ্ঞানিক জার্নালে দুই শতাধিক প্রকাশনা রয়েছে অধ্যাপক স্বপ্নীলের। বৈজ্ঞানিক গবেষণার জন্য তিনি আমেরিকা, এশিয়া-প্যাসিফিক, ইউরোএশিয়ান, টার্কিশ, জাপানী ও ভারতীয় লিভার এসোসিয়েশনসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠন থেকে সম্মানজনক পদকে ভূষিত হয়েছেন। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রকাশনা সংস্থা থেকে তার প্রকাশিত লিভার বিষয়ক টেক্সটবুকের সংখ্যা ছয়টি।

ডা. শেঠী বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ব্যাবস্থাকে আধুনিকরণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়ষী প্রশংসা করেন।

তাছাড়াও চিকিৎসা বিজ্ঞানের এই দুই মহারথী নানা ক্ষেত্রে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধির উপর জোর দেন। পারস্পরিক সহযোগিতা ও উচ্চতর প্রশিক্ষণ বিনিময়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও ভারতের রোগী এবং বিশেষজ্ঞরা উপকৃত হবেন বলে তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৭৩ বার

Share Button