» ভালোবাসার স্বার্থ

প্রকাশিত: ১৫. জুন. ২০১৯ | শনিবার

নার্গিস সোমা জাফর

আমরা কি কখনো ভেবে দেখেছি আমি কার সবচেয়ে আপন? যে কিনা শুধু মাত্র আমাকে ভালোবাসে । হিসেব- নিকেশ করলে হয়ত নিজে চোখের সামনে নিজের চেহারা ছাড়া অন্য কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবে না। সব ভালোবাসার আড়ালেই স্বার্থ নামের একজন লুকিয়ে থাকে । এখন হয়ত অনেকেই ভাববেন আমার বাবা মা আমাকে ভালোবাসে তাতে কোন স্বার্থ নেই । আমি বলবো আছে , কারণ বাবা – মা যখন কোন সন্তানকে জন্ম দেন তখন এটা ভেবেই জন্ম দেন তাদের বংশ রক্ষা করবে, বয়স কালে তাদের সেবা যত্ন করবে,সত্নান মেয়ে হলে কি সত্যি বাবা- মা খুশি হন? কখনো বা হন কখনও বা হন না।
আমি আমার বাবা- মার তৃতীয় সন্তান , মানে মেয়ে সন্তান । আমার বড় দুইজন ,তারাও মেয়ে ।বাবা- মা যখন আমাকে জন্ম দেন তখন একটা ছেলে সন্তান হবে এটা আশা করেছিলো।আমি তাদেরকে হতাশ করেছিলাম জন্মের পর পরই। ছেলে মানে বংশ রক্ষা, তাহলে এখানে কি বাবা – মার স্বার্থ নাকি ভালোবাসা?
বাড়ীর যে ছেলেটা বেশী ইনকাম করে তার জন্য এখনো আমাদের সমাজের প্রতিটা মা/ বাবা মুরগির রানটাই রেখে দেন। এটা কি ভালোবাসা?
এবার বলা যাক স্বামী-স্ত্রীর ভালোবাসার কথা । বউ বরকে শারীরিক সুখ না দিতে পারলে রান্না করে না খাওয়ালে তখন স্বামী অন্য মহিলার সান্নিধ্য খোঁজে । কেউ মনে মনে, কেউ প্রকাশ্যে।৷ বউ ও তাই স্বামীর ইনকাম না থাকলে তার চাহিদা পূরণ করতে না পারলে ধীরে ধীরে অন্য কাউকে খুঁজে নেয়। এখানে ভালোবাসা কোথায় লুকিয়ে আছে?
সন্তান তার বাবা মাকে ভালোবাসে সেখানে স্বার্থ কি নেই?
যদি না,থাকতো তবে দেশে বৃদ্ধাশ্রম থাকত না।

সমাজটা জটিল বললে হয়ত ভুল হবে, আমরা মানুষ জটিল । জটিল আমাদের হিসেব নিকেশ। সবাই সবাইকে আমরা ব্যবহার করছি নিজে ভালো থাকার জন্য।নিজে ভালে থাকাটা যদি দোশের না হয়, তাতে অন্যের ক্ষতিতে তার পাপ হবে কেনো?
ভালোবাসার কোন রঙ নেই যে যেমন রঙ দিবে সে সেভাবেই রূপ নিবে, আমরা মানুষ নামের জীব গুলোর আসল রঙ কি? নাকি প্রয়োজনে তাদের রঙ পাল্টে যায়। প্রয়োজনের উপর নির্ভরশীল তাদের রঙ কোনটা।
পৃথিবীতে যা কিছু আছে একে অন্যের খাবার, একে অন্যের ওপর নির্ভর করে বেঁচে আছে। এই নির্ভরশীলতা আমাদের বাঁচিয়ে রাখে আবার ধ্বংশ ও করে।
আমরা কি?
যদি এলিয়েন নামে কিছু থাকে তারা ও তো আমাদেরকে এলিয়েন মনে করতে পারে।
আমরা যা, দেখি তা চোখের আবিষ্কার যে ভাবনা গুলো ভাবি তা মনের আবিস্কার। যা অনুভব করি তা প্রয়োজন শরীরের।
ভালোবাসার অবস্হান কোথায়?
৷ জীবনের শেষ যদি কর্মে হয় তবে আমরা বাঁচার লড়াই কেনো করছি?
বাঁচার লড়াই করতে গিয়ে ভালোবাসা,আবেগ,অনুভূতি, চাহিদা সব কিছুর জন্ম আমরা নিজেরাই দিয়েছি বিভিন্ন নামকরণ করে । আমরা এর রহস্য যেদিন জানবো সেদিন আমরা ভালোবাসতে শিখবো ।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৭১২ বার

Share Button

Calendar

November 2020
S M T W T F S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930