শিরোনামঃ-


» মনোওর-মিনা ফাউন্ডেশনের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

প্রকাশিত: ০১. জুন. ২০১৯ | শনিবার


পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে মনোওর-মিনা ফাউন্ডেশনের উদ্যেগে আজ শহরের হাওয়াপাড়াস্হ ফাউন্ডেশন কার্যালয়ে এলাকার প্রায় অর্ধশত দুস্হ পরিবারের মাঝে উন্নতমানের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ব্যাংকার, ছড়াকার শাহাদত বখ্ত শাহেদের সভাপতিত্বে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলার -শাহানা বেগম।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবী ও ব্যবসায়ী দেলোয়ার বক্স দিলু এবং কবি ও সংগঠক দুলাল শর্মা চৌধুরী।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে এই মহতি উদ্যেগের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন সমাজে যারা বিত্তবান আছেন তারা যদি প্রত্যেকে যার যার এলাকার দুস্হদের মাঝে ঈদ-পার্বণ উপলক্ষে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ সহ সার্বিক সহযোগিতার হাত প্রসারিত করেন এবং উৎসবের আয়োজনকে ভাগাভাগি করে নেন তাহলে আমাদের সমাজে সাম্য ও সম্প্রতির এক উদাহরন হয়ে থাকবে। আজকের এই উদ্যেগের উদ্যাক্ততা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সহ সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানান এবং এই ফাউন্ডেশনের উত্তর উত্তর সমৃদ্ধি কামনা করেন।

বিশেষ অতিথি দেলওয়ার বক্ স দিলু তার বক্তব্যে বলেন মনোওর-মিনা ফাউন্ডেশন শুরু থেকে যে কয়েকটি কার্যক্রম করেছে তা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে। বিশেষ করে আজকের এ আয়োজনে এক ভিন্নমাত্রা যোগ হয়েছে। এই মহতি উদ্যেগের জন্য ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সহ সংশ্লিষ্টদের কৃতজ্ঞতা জানান।

বিশেষ অতিথি কবি দুলাল শর্মা চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন মনোওর -মিনা ফাউন্ডেশন পারিবারিক ভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করলেও সামাজিক ভাবে তার গুরুত্ব ব্যাপক। সমাজে অনেক বিত্তশালীরা আছেন যারা স্বল্প পরিসরে হলেও দুস্হদের পাশে দাড়ালে সমাজে দুস্হদের অনেক দুঃখ লাঘব হতো। কবি দুলাল শর্মা বলেন মনোওর-মিনা ফাউন্ডেশন আগামিতে আরো ব্যাপক ভাবে এ ধরনের আয়োজন করবে বলে আশা করি।

সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন আমরা আমাদের বাবা মা র নামে এ ফাউন্ডেশন করেছি। আমরা এ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সমাজের দুস্হ ও অবহেলিত মানুষের সাহায্য সহযোগিতার পাশাপাশি আমাদের সাহিত্য সংস্কৃতি,শিক্ষা সহ সমাজের কল্যাণে যারা কাজ করে যাচ্ছেন তাদের মূল্যায়ণের উদ্যেগ গ্রহন করেছি। ঈদের পরে ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সিলেটের ৮ জন গুণিকে স্ব স্ব ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য “মনোওর-মিনা সম্মননা ২০১৮” প্রদান করা হবে।

পরে অতিথিরা প্রায় অর্ধশত দুস্হ পরিবারের সদস্যদের হাতে খাদ্য সামগ্রী তোলে দেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩১৫ বার

Share Button