» মানবসম্পদ প্রশিক্ষণ দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে চীন

প্রকাশিত: ২১. নভেম্বর. ২০১৮ | বুধবার

মাহমুদা রহমান মুন্নী

বাংলাদেশকে নিয়মিতভাবে মানবসম্পদ প্রশিক্ষণ দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে চীন। ১৭ নভেম্বর ঢাকার লেক শোর হোটেলে বাংলাদেশে চীন দুতাবাসের আয়োজনে এক ফেলোশিপ সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে এ প্রত্যয় ব্যক্ত করেন দুতাবাসের ইকোনমিক অ্যান্ড কমার্শিয়াল কনস্যুলার মিস্টার লি গুয়াংজুন। অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ২০১৫ সালকে নিজেদের সংস্কার এবং নতুনভাবে উন্মুক্ত হবার ৪০ বছর পালন করছে চীন। এসময়ে দেশটি তার আর্থিক এবং সামাজিকখাতে দৃষ্টান্ত রাখার মত উন্নতি করেছে। সমন্বিত শিল্প ব্যবস্থার মাধ্যমে এ মুহূর্তে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহতম অর্থনীতি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে চীন। চীন চায় নিজেদের উন্নতির পাশাপাশি পারষ্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে বিশ্বের অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশগুলোও যেন এগিয়ে যায়। এর অংশ হিসেবে চীন ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড’ কর্মসূচী প্রণয়ন করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় চীন নিয়মিত বাংলাদেশকে মানবসম্পদ গড়তে নানারকম প্রশিক্ষণ সহযোগিতা প্রদান করে যাচ্ছে। এ বছর তিনটি কর্মশালার আয়োজক করেছে চীন বাংলাদেশের জন্য। এর মধ্যে ছিল, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং হাইটেক পার্কের উন্নয়ন এবং সহযোগিতা, চীন ও বাংলাদেশের মধ্যে বিদ্যুৎ সহযোগিতা এবং দুই দেশের মধ্যে ব্লু ইকোনমি বিষয়ক ফোরাম সংক্রান্ত কর্মশালা। ফেলোশিপ গ্রহণকারীরা নিজেদের শিক্ষা ও অভিজ্ঞতা তাঁদের নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে কাজে লাগিয়ে সামগ্রিকভাবে দেশের উন্নয়নে অবদান রাখতে পারবেন। বাংলাদেশের মোট ৬৯৭জন এবছর প্রশিক্ষনের সুযোগ পেয়েছেন। এবছর বিভিন্ন দেশের মোট ৫০ হাজার মানুষ চীনের এই প্রশিক্ষণ সহযোগিতা পাচ্ছেন।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রনালয়ের ইআরডি এর এডিশনাল সেক্রেটারি মো: জাহিদুল হক।
বাংলাদেশে চীনের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ ‘লিংকাস’ এর সহযোগিতায় অনুষ্ঠান শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং মার্শাল আর্টের প্রদর্শন উপভোগ করেন অতিথিরা। অনুষ্ঠানের ছবি এবং ভিডিও লিংকাস অ্যাপ ব্যবহার করে যে কেউ উপভোগ করতে পারবেন। উল্লেখ্য ‘লিংকাস’ চীনের সরাসরি বিনিয়োগে বাংলাদেশ থেকে পরিচালিত একটি স্যোশাল মিডিয়া অ্যাপ যেটি দেশের বহু প্রতিভাবান ছেলেমেয়ে নিজেদের তুলে ধরার একটি প্লাটফরম হিসেবে ব্যবহার করছেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৫৮ বার

Share Button

Calendar

April 2019
S M T W T F S
« Mar    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930