» মুজিববর্ষে রোপিত ১ কোটি বৃক্ষকে রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে

প্রকাশিত: ১৫. জুলাই. ২০২০ | বুধবার

পরিবেশ, বন ও পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্মশতবার্ষিকী মুজিববর্ষে সারাদেশে রোপিত ১ কোটি গাছকে ‘স্মারক বৃক্ষ’ হিসেবে বিবেচনা করা হবে । মুজিববর্ষের এক কোটি চারা ছাড়াও চলতি বৃক্ষরোপণ অভিযানকালে প্রতিটি সংসদীয় আসনের বিপরীতে 5 হাজার করে মোট ১৫ লক্ষ বনজ, ফলদ ও ঔষধি চারা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান/সংস্থার ক্যাম্পাসে রোপণের জন্য বিতরণ করা হবে। এছাড়াও বন বিভাগের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বনায়ন কার্যক্রমের আওতায় এ অর্থবছরে ৭ কোটি বৃক্ষ রোপণ করা হবে। রোপণ পরবর্তীকালে এসব চারার যথাযথভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী আজ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে “মুজিব বর্ষের আহবান, লাগাই গাছ বাড়াই বন” প্রতিপাদ্য ধারণ করে সারাদেশে ১ কোটি বৃক্ষের চারা রোপণ কর্মসূচি বিষয়ে ভার্চুয়াল মিডিয়া এর মাধ্যমে অনুষ্ঠিত সাংবাদিক সম্মেলনে এসব কথা বলেন। মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি, সচিব জনাব জিয়াউল হাসান এনডিসি , পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডক্টর একে এম রফিক আহাম্মদ, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আহমেদ শামীম আল রাজী এবং প্রধান বন সংরক্ষক মোঃ আমির হোসাইন চৌধুরীসহ মন্ত্রণালয় ও বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ প্রেস ব্রিফিং এ উপস্থিত ছিলেন।

বন মন্ত্রী বলেন, পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষায় উৎসারিত দূরদর্শী ভাবনা হতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুরু করেছিলেন “বৃক্ষরোপণ অভিযান”; যা’র ধারাবাহিকতায় উপকূলীয় চরাঞ্চল বনায়নে সফল দেশ হিসেবে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে অন্যতম। বঙ্গবন্ধু এঁর জন্মশতবার্ষিকীকে স্মরণীয় করে রাখার লক্ষ্যে মুজিববর্ষে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় দেশের ৪৯২ টি উপজেলার প্রতিটিতে ইতোমধ্যে ২০,৩২৫ টি করে বিবিধ প্রজাতির বনজ, ঔষধি ও ফলদ বৃক্ষের চারা বন বিভাগের নার্সারীতে উত্তোলন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে প্রতিটি জেলায় সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা পরিবেশ ও বন উন্নয়ন কমিটির সভার সিদ্ধান্তের আলোকে উপজেলা পরিবেশ ও বন উন্নয়ন কমিটি চারা বিতরণ ও রোপণ বিষয়ে বিষদ কর্মপরিকল্পনাসহ চারা গ্রহণকারীদের তালিকা প্রণয়ন করেছে। মুজিববর্ষে রোপণের জন্য উত্তোলিত এক কোটি চারার মধ্যে শতকরা পঞ্চাশ ভাগ ফলদ এবং অবশিষ্ট পঞ্চাশ ভাগ বনজ, ঔষধি ও শোভাবধ©নকারী প্রজাতির চারার উত্তোলন ইতোমধ্যেই নিশ্চিত করা হয়েছে। কোন প্রকার বিদেশী প্রজাতির চারা এ কাজের জন্য উত্তোলন করা হয়নি। তাছাড়া বর্ণিত বৃক্ষরোপণ কায© আগামী 15 সেপ্টেম্বর 2020 এর মধ্যে সম্পন্ন করার বিষয়ে মাঠ পর্যায়ে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

বন মন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল ১৬ জুলাই ২০২০ খ্রিঃ বৃহস্পতিবার সকাল ১0:3০ ঘটিকায় গণভবন হতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সারাদেশে এক কোটি বৃক্ষের চারা রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন। করোনা ভাইরাসজনিত বিরূপ পরিস্থিতির কারনে এ উদ্বোধন অনুষ্ঠানটি প্রচার মাধ্যম সমূহের উপস্থিতিতে সম্পাদনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। উল্লেখিত দিন ও সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তেঁতুল, ছাতিয়ান ও চালতা প্রজাতির বৃক্ষের চারা রোপণ করতঃ উক্ত বৃক্ষরোপণ কম©সূচি উদ্বোধন করবেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পরপরই প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় স্বাস্থ্য নির্দেশিকা মেনে নূন্যতম একটি করে বনজ, ফলদ ও ঔষধি বৃক্ষের চারা রোপণের মাধ্যমে একই দিনে উক্ত কম©সূচি বাস্তবায়ন শুরু করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাযা©লয় হতে নির্দেশনা রয়েছে। এজন্য প্রতিটি জেলা ও উপজেলা কর্তৃক অনুরূপ কম©সূচি বাস্তবায়ন কাজের অগ্রগতির বিষয়টি প্রচার মাধ্যমে যথাযথভাবে উপস্থাপন পূব©ক সক্রিয় সহযোগিতা প্রদান করাসহ এ কার্যে জনসম্পৃক্তি বৃদ্ধি করার নিমিত্ত আপনাদেরকে আহবান জানাচ্ছি। মন্ত্রী সাংবাদিক সম্মেলনে গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দান করেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৫৩ বার

Share Button