শিরোনামঃ-


» মোহাম্মদ শামসুল ইসলাম ঃ শুধুমাত্র একজন ব্যাংকার নন

প্রকাশিত: ২৮. আগস্ট. ২০২০ | শুক্রবার

সুমন দে

তিনি শুধুমাত্র একজন ব্যাংকার নন । অগ্রণী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ শামসুল ইসলাম নতুন নতুন উদ্ভাবনে ব্যাংকিং সেক্টরকে অনেক সমৃদ্ধ করেছেন। কিন্তু তাঁর কর্ম পরিধি শুধুমাত্র ব্যাংকিং সেক্টরে সীমাবদ্ধ নয় । তিনি জনহিতকর সামাজিক অনেক কাজ করেছেন ।
কেউ যদি অগ্রণী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে যান । অগ্রণী ব্যাংক ভবনের সপ্তম তলায় চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) কার্যালয় এবং বোর্ডরুমের পাশে গেলে চমকে যাবেন । মনে হবে কোন বঙ্গবন্ধু বিষয়ক জাদুঘরে পৌঁছে গেছেন। । না, এটা কোন কোনো জাদুঘরের প্রদর্শনী কক্ষ নয়, রাজধানীর অফিসপাড়াখ্যাত দিলকুশা বাণিজ্যিক এলাকার একটি কার্যালয়ের সুসজ্জিত কক্ষ।। ঘরটির নামটাও তাই বঙ্গবন্ধু কর্নার।আর এই বঙ্গবন্ধু কর্নারের উদ্ভাবক ও প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ শামসুল ইসলাম ।
সেই কর্নারের সংগ্রহের একটি হিসাব জানা যাবে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের কাছে। বঙ্গবন্ধুর যে আবক্ষ ভাস্কর্য রয়েছে, তার ওজন ১১৭ কেজি। রয়েছে বঙ্গবন্ধু-সম্পর্কিত দেশ-বিদেশের প্রায় ৪০০ বই-পুস্তক, বঙ্গবন্ধু-সংশ্লিষ্ট তিনটি ছবির অ্যালবাম, লেখা ও প্রামাণ্যচিত্র, যেগুলো বঙ্গবন্ধুর জীবন-কর্মসহ বাংলাদেশের সুস্পষ্ট ইতিহাস পাঠককে তথ্য দিতে যেন অপেক্ষা করছে। বঙ্গবন্ধুর ছবিসংবলিত ৫ ও ১০ টাকার দুটি বড় নোটও রাখা আছে। আছে বসে বই পড়ার ব্যবস্থা। বঙ্গবন্ধুকে জানার এক দারুণ আয়োজন।
আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা না হলেও পুরোপুরি প্রস্তুত তা।উদ্যোগ ছড়াচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও। বঙ্গবন্ধু কর্নারের এই ধারণাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়ার কথাও ভাবা হচ্ছে। তহবিল সংগ্রহ করে দেশের বিভিন্ন স্থানে বঙ্গবন্ধু কর্নার করে দেওয়ার পরিকল্পনা করছেন৷
এ ছাড়া সিলেটে করোনা চিকিৎসা কার্যক্রম এ সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে চলছে অগ্রণী ব্যাংক।
এ পর্যন্ত অগ্রণী ব্যাংক সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ কে তিনটি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা , তিনটি সিপিএপি ভেন্টিলেটর এবং তিনটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর মেশিন সহ বেশকিছু সুরক্ষা সামগ্রী উপহার দিয়েছেন।
অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মঈনূল হক অগ্রণী ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে তাদের এই শুভ উদ্যোগের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। সাথে সাথে হাসপাতালে একটি অক্সিজেন জেনারেটর প্লান্ট স্থাপনের জন্য সহায়তা করতে অগ্রণী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও জনাব শামস-উল ইসলাম কে অনুরোধ করেন এবং এটির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। সিওমেকের বঙ্গবন্ধু কর্নারে তিনি মূল্যবান বই, সিডি সহ বঙ্গবন্ধু ইতিহাস সম্বলিত জিনিস দিবেন বলেন বলে অধ্যক্ষ মহোদয় স্যারকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। যেসব শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান বুদ্ধিজীবী তৈরির কারিগর সেসব প্রতিষ্ঠানে তিনি এই কর্নার তৈরি করে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কিত জ্ঞান কে আরো বাড়িয়ে তোলার কাজ করে যাচ্ছেন৷
একজন গুনীজন মোঃ শামস-উল ইসলাম নীরবে নিভৃতে লোকচক্ষুর আড়ালে এভাবেই বঙ্গবন্ধুর আর্দশকে বুকে লালন করে সেটিকে ছড়িয়ে দিচ্ছেন এবং মহামারির এই সময়ে নিজের জায়গা থেকে সবটুকু দিয়ে সহায়তা করছেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১২২ বার

Share Button