» মো. শাহাব উদ্দিন বন ও পরিবেশ মন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ায় মৌলভীবাজারে আনন্দের বন্যা

প্রকাশিত: ০৭. জানুয়ারি. ২০১৯ | সোমবার

মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ী) আসনের সাংসদ মো. শাহাব উদ্দিন বন ও পরিবেশ মন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ায় মৌলভীবাজার জেলা জুড়ে আনন্দের বন্যা বইছে। শুধু দেশে নয় বিদেশেও এই খবরে প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন প্রবাসীরা।
খবর পেয়ে রবিবার সন্ধ্যায় বড়লেখা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা পৌরশহরে আনন্দ মিছিল, পথসভা এবং মিষ্টি বিতরণ করেন। বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে সর্বস্থরের জনসাধারণ অভিনন্দন জানাচ্ছেন।
অভিনন্দন জানান-মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য ড. আব্দুস শহীদ, মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা সায়রা মহসীন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, পৌরসভার মেয়র ফজলুর রহমান, সাবেক ভিপি আব্দুল মালিক তরফদার সোয়েব, মৌলভীবাজারে মেডিকেল কলেজ চাই ক্যাম্পেইন গ্রুপের উপদেষ্টা ড. ওয়ালি তসর উদ্দিন এমবিই, গ্রুপের এডমিন মোহাম্মদ মকিস মনসুর, মৌলভীবাজার সম্মিলিত সামাজিক উন্নয়ন পরিষদ এর সভাপতি খালেদ চৌধুরী ও সাধারন সম্পাদক আলিম উদ্দিন হালিমসহ অন্যান্যরা। নতুন মন্ত্রীসভায় মৌলভীবাজারের মন্ত্রী পাওয়ায় উল্লাস ছড়িয়ে পরেছে বিদেশেও। গত ৩০ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের বিজয়ে বৃটেনের কাডিফে আনন্দ সভায় সভাপতির ভাষণে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সদস্য, ইউকে ওয়েলস আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ মকিস মনসুর এই দাবি তুলে ধরেন। মকিস মনসুর এর বক্তব্যের ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর দেশ বিদেশ থেকে ফেইসবুক ও ইউটিউবে এই দাবিতে আলোচনায় আসে। এমনকি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে মন্ত্রী নেওয়ার দাবিতে মৌলভীবাজার মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পেইন গ্রুপ ও মৌলভীবাজার জেলা সম্মিলিত সামাজিক উন্নয়ন পরিষদ এর পক্ষ থেকে গত ২ জানুয়ারি ইমেইল ও ডাকযোগে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।
জেলাবাসীর দীর্ঘদিনের বিভিন্ন দাবী তুলে ধরছেন নাগরিকরা। দাবী গুলো হচ্চে- মৌলভীবাজার মেডিকেল কলেজ বাস্তবায়ন, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার শহর, সিলেট নতুন রেল লাইন, মনু ও ধলাই নদীর বাধ পুন:নির্মাণ, মনু নদীর উপর নতুন আরেকটি সেতু নির্মাণ, জেলার প্রধান সড়কগুলোকে চারলেনে উন্নীতকরণ, কারীগরী/পাবলীক বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন, সমশেরনগর বিমানবন্দরে অন্তত সাপ্তাহিক ফ্লাইট চালু, জেলার হাওরগুলোতে হাওর উন্নয়ন মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন। এই দাবীগুলো বাস্তবায়নে নতুন মন্ত্রী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন বলে আশাবাদী জনসাধারণ।

বড়লেখা পৌর শহরের পাখিয়ালা এলাকায় বাড়ি সাংসদ মো. শাহাব উদ্দিনের । পর পর তিনবার বড়লেখা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারমেন ছিলেন। আর তাকে পেছনে তাকাতে হয়নি। ১৯৯৬ সালে নির্বাচিত হলেন প্রথম সাংসদ হিসেবে তার দল আওয়ামী লীগ থেকে। তারপর ২০০১সালের নির্বাচনে হেরে গিয়েছিলেন। পরের দফায় আবার ফিরে আসেন মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলা) আসনে বিজয়ী হয়ে। ২০০৮ ও ২০১৪ সংসদ নির্বাচিত হন। মাঝে ২০০১সালে একদফা পরাজিত হয়েছিলেন। কিন্তু হাল ছাড়েননি। পরের দফায়ই সেটি কাটিয়ে উঠেন এবং সরাসরি হুইপের দায়িত্ব পান। তিনি এখনও বড়লেখা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি।
ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারমেন থেকে বিভিন্ন চড়াই-উৎরাই পাড় হয়ে খোদ মন্ত্রী হওয়া সোজা কথা নয়। যেকোন সরকারের লক্ষ্য অনুধাবন করতে হয় এবং পূরণে সক্রিয় ভূমিকা রাখতে হয় । আর সাধারণ মানুষের ভোটতো পেতেই হয়। তারপর না মন্ত্রী। বেশ লম্বা পথ পাড়ি দিতে হয়। শাহাবুদ্দীন সেপথ পাড়ি দিয়েছেন। এবারের নির্বাচনে ১ লাখ সাড়ে ৪৪ হাজার ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। সাধারণ মানুষের অফুরান ভালবাসায় সিক্ত না হলে এমন অবস্থানে যাওয়া খুবই কঠিন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৬৯ বার

Share Button

Calendar

March 2019
S M T W T F S
« Feb    
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31