» মৌলবীবাজারে আমার দেখা দুজন কণ্ঠশিল্পী

প্রকাশিত: ২৩. জুলাই. ২০২০ | বৃহস্পতিবার


সালেহ মওসুফ

সাহিত্য ও সংগীতের প্রতি আমার অনুরাগ ছোট বেলা থেকেই। আমি সেই সত্তর দশকের শেষের দিক থেকে নব্বই দশকের কিছুটা সময় পর্যন্ত সাংস্কৃতিক অঙ্গনে সক্রিয় ছিলাম । সেই সূত্রে মৌলভীবাজারের অনেক সংগীত শিল্পীদের সাথে আমার সুসম্পর্ক ছিলো। আমাদের মৌলবীবাজার শহরের সেই সকল গুণী শিল্পীরা একসময় সংগীত সাধনা করতেন। নিজ প্রতিভার গুনে তারা সম্মানের আসনে আসীন হয়েছিলেন এবং মৌলবীবাজারেকে করেছিলেন সমৃদ্ধ । তাদের অবদান মানুষ যেন ভুলে না যায় সেজন্য একজন সাংস্কৃতিক কর্মীর দায়িত্ববোধের জায়গা থেকে আমার এই প্রচেষ্টা । আজকে সংগীত ভুবনে আলোকপাত করবো। চেষ্টা করবো ধারাবাহিক লিখার।

অনেকের কথা স্মৃতিপটে ভেসে ওঠে । তাদের মধ্যে
সুজাউল করিম ,নওরোজ চৌধুরী, রনি প্রেন্টিস , শাহেলী পারভিন, শ্যামলী ঘোষ, ছায়া রায়, মাসুদুর রহমান খান, শেখর দেব, অনুপম পাল , প্রণব রায়, টিংকু নন্দী, খুকু ঘোষ, রেবেকা সুলতানা, ইন্দিরা নন্দী, শিবানী নাহা, মারুফ আহমদ, মুমিনুল হক চৌধুরী মামুন , খলিলুর রহমান, আশেক আহমদ চৌধুরী মান্না ,
তবলা শিল্পী প্রয়াত নীলকান্ত চক্রবর্তী , নলিনী বাবু , মৃদুল ঘোষ ,গিটার শিল্পী জালাল আহমেদ , শোয়েব চৌধুরী, (ড্রাম ) এবং নৃত্যশিল্পী ইয়াসমিন সিদ্দিকা সহ আরো অনেকেই বিভিন্ন দশকে জনপ্রিয় ছিলেন।

আজকে দুজন সংগীত শিল্পীর কথা লিখবো । তারা হলেন বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী গুনী কন্ঠ শিল্পী সুজাউল করিম এবং শাহেলী পারভিন ।

এ কে এম সুজাউল করিম সুজা


মৌলবীবাজার জেলার কৃতি সন্তান বিরল প্রতিভার অধিকারী সুজাউল করিম সুজা একজন উঁচুমানের গায়ক ছিলেন। মূলত নজরুল সংগীত এবং আধুনিক গান করতেন । সুইডেন প্রবাসী সুজাউল করিম ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। যুদ্ধের বছরটিতে তিনি ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃত্বে ছিলেন। সুজা ভাইয়ের অনেক নাম শুনেছি ছোট বেলায়। কিন্তু ওনার সাথে আমার প্রথম দেখা হয় মাত্র গত বছরের ডিসেম্বর মাসে কোলকাতায় । তারপর আমাদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা তৈরি হতে সময় লাগেনি । খুব সম্ভবত সত্তরের দশকের শেষভাগে মৌলবীবাজার মহকুমায় সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা হয়। সেখানে সুজাভাই নজরুল সংগীত ও আধুনিক গান সংগীতের এই দুটি শাখায় প্রথম স্থান অধিকার করেছিলেন । মৌলবীবাজারে সত্তরের দশকের অন্যতম
জনপ্রিয় কন্ঠ শিল্পীটির নাম সুজাউল করিম ।

শাহেলী পারভিন
অনন্য প্রতিভার অধিকারী শাহেলী পারভিন একজন ভার্সেটাইল কণ্ঠশিল্পী । তিনি একজন মেধাবী ছাত্রী ছিলেন।ছোটবেলা থেকে মৌলবীবাজার শহরের গির্জা পাড়ায় আমরা একসাথে বেড়ে উঠি। শাহেলী নজরুল গীতির শিল্পী হলেও আধুনিক গান , পল্লিগীতি এবং রবীন্দ্র সংগীতেও ছিলো তার সমান পারদর্শিতা ।
শাহেলী পারভিন একজন ভালো নৃত্যশিল্পীও ছিলেন।
শাহেলী দিলীপ রায় ( দুর্গা বাবু) এবং ফটিক বাগচীর কাছে গান শিখেন। ক্লাসিকাল বা শান্ত্রীয় সংগীতে ওস্তাদ রাসবিহারীর কাছেও তালিম নেন তিনি। সংগীত বোদ্ধা মহলে শাহেলী পারভিন ছিলেন অধিক গ্রহণযোগ্য এবং সম্মানিত ।
সত্তর দশকের শেষভাগের ক্ষুদে কন্ঠশিল্পী শাহেলী পারভিন সিলেট বেতারের অডিশন সাফল্যের সাথে পাশ করে চমক দেখান। কারণ সেই সময়ে বেতারে চান্স পাওয়া ছিল কঠিন কাজ। ১৯৭৯ সালে মৌলবীবাজার কলেজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত নবরূপা প্রদর্শনীতে শাহেলী সংগীত সহ বিভিন্ন বিষয়ে মোট দশটিরও বেশী পুরস্কার জিতে সবাইকে তাক লাগিয়ে দেন। এই শিল্পী এখন শিক্ষকতা পেশায় জড়িত।

আমার এই লেখাটি কিছুটা হলেও মৌলবীবাজার জেলার সংগীতের ইতিহাসকে সমৃদ্ধ করবে বলে আশা করছি । আর নতুন প্রজন্ম তাদের জেলার গুণী দুইজন কণ্ঠশিল্পীকে চিনতে পারবে , জানতে পারবে বলে মনে করছি ।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৭৪৬ বার

Share Button

Calendar

October 2020
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031