শিরোনামঃ-


» মৌলভীবাজারে অগ্নিকান্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেন বিভাগীয় কমিশনার

প্রকাশিত: ২৯. জানুয়ারি. ২০২০ | বুধবার

মোঃ আব্দুল কাইয়ুম, মৌলভীবাজার :
মৌলভীবাজারের সাইফুর রহমান সড়কের পিংকি সু-স্টোর নামের জোতার দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে দগ্ধ হয়ে তিনবছরের শিশু ও একই পরিবারের চারজনসহ পাঁচজনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনার একদিন পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেন সিলেট বিভাগী কমিশনার মশিউর রহমান (এনডিসি)।

বুধবার (২৯ মার্চ) রাত সাড়ে ৮টার দিকে জেলা প্রশাসক বেগম নাজিয়া শিরিনকে সাথে নিয়ে তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে পিংকি সু-স্টোরের সত্বাধিকারী সুভাষ রায় এর শোকার্ত পরিবারকে সমবেদনা জানাতে তাদের সাইফুর রহমান সড়কের বাসায় যান । এসময় সেখানে পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান তিনি। বিভাগীয় কমিশনার সুভাষ রায়ের পরিবারের খোঁজ খবর নেয়ার পাশাপাশি খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন তাদের হাতে এবং সরকারের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সবরকমের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

পরিদর্শনকালে সেখানে উপস্থিত ছিলেন,সদর উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল হোসেন,মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব ফজলুর রহমান,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মল্লিকা দে,অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বেগম তানিয়া সুলতানা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শফিকুল ইসলাম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও এমবি ক্লথ ষ্টোরের সত্বাধিকারী ডা: এম,এ আহাদ, সিনিয়র সাংবাদিক বকসী ইকবাল আহমেদ, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক সালেহ এলাহী কুটি ও পৌর কাউন্সিলর ফয়সল আহমদ প্রমুখ।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মশিউর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, আমি দেখে গেলাম বিষয়টা অত্যান্ত হৃদয়বিদারক ও দু:খজনক। আমরা এব্যাপারে শোক প্রকাশ করছি। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে সহযোগীতার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নিয়ে তিনি বলেন , যেহেতু এমুহুর্তে পুরো পরিবার শোকাহত তাই শোক কাটিয়ে জেলা প্রশাসকের সাথে পরামর্শ করে প্রয়োজনীয় সহযোগীতা নিতে বলবো।

এসময় তিনি আরো বলেন, এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে সে ব্যাপরে ইতিমধ্যে ঘটনার প্রকৃত কারন অনূুষন্ধানে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাত সদস্য বিশিষ্ট ও পৌরসভার পক্ষ থেকে আরেকটিসহ দু’টি পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে কি কারনে হয়েছে এবং দায়ী কে এবং ভবিষ্যতে এরকম ঘটনা যাতে না ঘটে সে ব্যাপারে আমরা সরকারকে সুপারিশ করবো।

উল্লেখ্য: গত মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে শহরের সাইফুর রহমান সড়কের পিংকি সু-স্টোর নামের একটি জোতার দোকানে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে পিংকি সু-স্টোরের সত্বাধিকারী সুভাষ রায় (৬০) সজল রায়ের স্ত্রী ও সুভাষ রায়ের বোন দিপ্তী রায় (৪৫) দিপীকা রায়(৪০) ও সজল রায়ের তিন বছর বয়সী কন্যা শিশু বৈশাখী রায় (৩) ও পিয়া রায় (১৫) এর নির্মম মৃত্যু হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়,সকাল ৯টার দিকে পিংকি সু-স্টোরে বৈদ্যুতিক সর্টসার্কিট থেকে প্রথমে আগুনের সূত্রপাত ঘটলে মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে পুরো দোকানে। এসময় দোকানে প্লাস্টিক জাতীয় সামগ্রী থাকায় আগুনের ভয়াবহতা মুহুর্তেই ছড়িয়ে পড়লে হতাহতের এই ঘটনা ঘটে। ঘরটির ছাদ প্রাচীণ আমলের কাঠের তৈরি হওয়ায় উপর তলায় ঘুমিয়ে ছিলেন সুভাষ রায়ের পরিবার । আগুনের লেলিহান শিখায় যখন নিচতলার সবকিছু পুড়ে ছাই তখনও সবাই ঘুমে। আগুনে নিচতলার প্রায় সাতজন বেড়িয়ে আসতে সক্ষম হলেও উপরতলার সবাই শব্দ শুনে ঘুম ভাঙলেও কারো পক্ষে বেড়িয়ে আসা সম্ভব হয়নি। যার কারনে উপর তলার সবাইর ভাগ্যে মৃত্যু ঘটেছে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪১৫ বার

Share Button