» মৌলভীবাজারে চিকিৎসকের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ

প্রকাশিত: ১১. নভেম্বর. ২০১৭ | শনিবার

মৌলভীবাজারের জুড়ীর একটি বেসরকারি ক্লিনিকে চিকিৎসকের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ১০ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত প্রায় ৩ ঘণ্টা ক্লিনিকটি ঘেরাও করে রাখে নিহত নবজাতকের স্বজনসহ উত্তেজিত জনতা।
নিহত নবজাতকের স্বজন, প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বড়লেখা উপজেলার পূর্বহাতলিয়া গ্রামের খলিলুর রশীদ তার গর্ভবতী স্ত্রী রাহেলা বেগমকে বাচ্চা ডেলিভারির জন্য শুক্রবার দুপুরে জুড়ী ক্লাব রোডস্থ আব্দুল আজিজ মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করেন।
চিকিৎসকরা বিকাল ৩টায় সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে কন্যা সন্তান প্রসব করান। বিকেলে সাড়ে ৫টায় বাচ্চাটি মারা গেলে এ মেডিকেল সেন্টারে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়। নবজাতকের স্বজনসহ কয়েকশ’ উত্তেজিত জনতা মেডিকেল সেন্টারটি ঘেরাও করে রাখেন।
সে সময় ক্লিনিকের কর্তব্যরত, চিকিৎসক, নার্স ও কর্মকর্তারা আত্মগোপন করেন। খবর পেয়ে জুড়ী থানার এসআই কানু মালাকারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন।
মৃত নবজাতকের বাবা মামুনুর রশীদ বলেন, ‘ভর্তির পর থেকে ডাক্তাররা প্রসূতি ও নবজাতকের প্রতি চরম অবহেলা করেন। ডাক্তার ও নার্স রোগিকে ওটিতে প্রায় ২ ঘণ্টা ফেলে রাখেন। সঠিকভাবে পরিচর্যা করেননি। রোগীর অবস্থা সিরিয়াস হলে ভর্তির সময় তারা জানাতে পারত। প্রয়োজনে তিনি অন্যত্র নিয়ে যেতেন।’
অভিযোগ করে তিনি বলেন, ডাক্তার ও নার্সের অবহেলায় তার মেয়ে সন্তানটি মারা গেছে। বাচ্চা প্রসবের পর দীর্ঘক্ষণ কোনো ডাক্তার ও নার্সকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। দুই ঘন্টা পর তারা মৃত সন্তান রেখে চলে যায়।
আব্দুল আজিজ মেডিকেল সেন্টারের ব্যবস্থাপক তাপস দাস জানান, রোগীর অবস্থা সিরিয়াস ছিল। ভর্তির সময় প্রসূতির স্বামীকে বিষয়টি জানানো হয়। চিকিৎসকের অবহেলার অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, ‘রক্ত শূন্যতা ও পানি শূন্যতায় নবজাতা মারা গেছে।’
ডাক্তার ও নার্সকে না পাওয়ার ব্যাপারে ব্যবস্থাপক বলেন, কয়েকশ’ লোক ঘেরাও করতে আসায় ভয়ে তারা কিছু সময় আত্মগোপনে ছিলেন।
জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন জানান, উত্তেজনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৫২৭ বার

Share Button

Calendar

July 2020
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031