» রাজনগরে আ’লীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষ, আহত-২

প্রকাশিত: ১৬. জানুয়ারি. ২০২০ | বৃহস্পতিবার


মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ
মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলায় সরকারিভাবে ধান ক্রয় নিয়ে অনিয়মকে কেন্দ্র করে চলমান উত্তেজনার মধ্যে ক্ষমতাসীন দলের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার(১৬ জানুয়ারি) বিকালের দিকে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এঘটনার জেরে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাজান খাঁন ও উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন বখতের অনুসারীদের মধ্যে বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলা চত্বরে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হলে ২জন আহত হয়। পরে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত রাজনগরে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সংঘর্ষে আহতরা হলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাজান খাঁনের অনুসারী রাসেল ও শরীফ। আহতদেরকে রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তবে উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন বখত বলছেন, তার কোনো কর্মী আহত হয়নি।

সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা হলরুমে আইন শৃঙ্খলা ও সমন্বয় কমিটির সভা ছিল। সকাল থেকে রাজনগর উপজেলার সামনে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাজান খাঁন ও উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন বখতের অনুসারীরা অবস্থান নেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সকাল থেকে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন ছিল। বিকাল ৩টার দিকে উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুসারীরা পুলিশের অনুরোধে অবস্থান স্থল ত্যাগ করে উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে ঢুকে পড়েন কিন্তু মিলন বখতের অনুসারীরা উপজেলার ভীতরে ছিলেন। এসময় মিলন বখত স্বাক্ষ্য দেয়ার জন্য ভুমি অফিসারের কার্যালয়ে অবস্থান করছিলেন। মিলন বখত ভুমি অফিসারের কার্যালয়ে থেকে দেরি করে বের হওয়ার কারনেই উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুসারীরা উত্তেজিত হয়। এর পরেই এ ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষ ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে।

এবিষয়ে জানতে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাজান খাঁনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাশেম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এবং সেখানে যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৮০ বার

Share Button