» রিমান্ডে কল্যাণ পার্টির মহাসচিব আমিনুর

প্রকাশিত: ২৩. ডিসেম্বর. ২০১৭ | শনিবার

২৩ ডিসেম্বর শনিবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে আমিনুর রহমানকে হাজির করে ১০ দিন রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাস চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানের নেতৃত্বে খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয় ঘেরাও করার উদ্দেশে রওনা হওয়া মিছিলে বোমা হামলার মামলায় বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমানকে চার দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। ২৭ আগস্ট রাত ১০টার পর থেকে তিনি নিখোঁজ রয়েছেন বলে পরিবারের পক্ষ থেকেও জানানো হয়। এ ঘটনায় পল্টন থানায় সাধারণ ডায়রি (জিডি) করে তার পরিবার।আমিনুর রহমান এই চার মাস কোথায় ছিলেন, সেই সম্পর্কে এখনও পুলিশ কিছু জানাতে পারেনি।

ঢাকার অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের উপকমিশনার আনিসুর রহমান সংবাদমাধ্যমকে জানান, আজ ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমানকে নৌপরিবহনমন্ত্রীর মিছিলে বোমা হামলার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে ১০ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক এ আদেশ দেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালনের জন্য গুলশানে সমবেত হন মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের নেতাকর্মীরা। সেখানে তারা একটি সমাবেশ করেন। সমাবেশ শেষে ২০ থেকে ৩০ হাজার সাধারণ মানুষ নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানের নেতৃত্বে খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয় ঘেরাও করার উদ্দেশে রওনা হলে মিছিলের ওপর বোমা নিক্ষেপ করা হয়।

শুক্রবার রাত পৌনে ১২টার দিকে রাজধানীর শাহজাদপুর এলাকা থেকে কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান ঢাকা মহানগর (উত্তর) ডিবি পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) সাজাহান সাজু।এ ঘটনায় ঢাকা যানবাহন ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বাচ্চু বাদী হয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় আজ কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমানকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

গত ২৭ আগস্ট এম এম আমিনুর রহমান নিখোঁজ হন। ৩০ আগস্ট কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিম এমনটাই দাবি করেছিলেন। সেদিন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক সাংবাদিকদের জানান, ‘গত ২৮ আগস্ট ২০ দলীয় জোটের মিটিংয়ে আমিনুরের উপস্থিত থাকার কথা ছিল কিন্তু সেখানে তিনি যাননি। তারপর থেকে আমি তার সন্ধান শুরু করলাম কেন মিটিংয়ে যাননি। এরপর থেকে তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।’

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৯০ বার

Share Button