» শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকায় তাপমাত্রা কমেছে

প্রকাশিত: ০৭. জানুয়ারি. ২০১৮ | রবিবার

সারাদেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকায় তাপমাত্রা কমেছে । বিশেষ করে দিনাজপুর, রাজশাহী, পাবনা ও চুয়াডাঙ্গায় তাপমাত্রা নেমেছে ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে। জনজীবনে নেমেছে দুর্ভোগ । সরদি-কাশি, শ্বাসকষ্ট সহ নানা রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটেছে ।

রোববার আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে রাজশাহী, পাবনা, দিনাজপুর ও কুষ্টিয়া অঞ্চলের উপর দিয়ে তীব্র শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে ।

আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে আরও বলা হয়, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও বরিশাল বিভাগ, রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগের বাকি অংশ এবং শ্রীমঙ্গল ও সীতাকুণ্ড অঞ্চলের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে, যা অব্যাহত থাকতে পারে।

দিনের ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে বলেও পূর্বাভাসে জানানো হয়।

আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, জানুয়ারিতে একটি মাঝারি (৬-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা তীব্র (৪-৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস) এবং ২-৩টি মৃদু (৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা মাঝারি শৈত্য প্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

রোববার সকাল ৯টা থেকে আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে দিনাজপুরে ৫ দশমিক ১ ডিগ্রি, রাজশাহী ৫ দশমিক ৩ ডিগ্রি, ঈশ্বরদী ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি এবং চুয়াডাঙ্গায় ৫ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শনিবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল রাজশাহী ও চুয়াডাঙ্গায় ৫ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রোববার ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৩ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এক্ষেত্রে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কমেছে এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বেড়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল টেকনাফে ২৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আগামী ২৪ ঘণ্টায় আবহাওয়া প্রায় শুষ্ক থাকবে বলে অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও মাঝরি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে বলেও জানানো হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, উপ-মহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের পশ্চিমাংশ পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১২৪১ বার

Share Button

Calendar

November 2020
S M T W T F S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930