» শ্যামল বনিকের প্রতি অভিনন্দন

প্রকাশিত: ১১. সেপ্টেম্বর. ২০১৯ | বুধবার

সৌমিত্র দেব শ্যামল বনিকের নাম আমি প্রথম শুনি আমার খুব কাছের একজন মানুষ, তৃণমূলের রাজনীতিবিদ ও গণমাধ্যমকর্মী মোস্তাক চৌধুরীর কাছে । স্পষ্টবক্তা মোস্তাক অকারণে কারো প্রশংসা করে না । কিন্তু পুলিশ কর্মকর্তা শ্যামল বনিকের ব্যাপারে দেখলাম প্রশংসায় পঞ্চমুখ । তার মতে সেবার ব্রত নিয়ে পুলিশের দায়িত্ব পালন করেন শ্যামল । কর্তব্যে নিষ্ঠা তার প্রশ্নাতীত ।ঘুষ- দুর্নীতির কারণে কিছু পুলিশ কর্মকর্তা যেমন এই বিভাগের নামে কলংক লেপন করেছেন, তেমনি শ্যামলের মতো পুলিশ কর্মকর্তা এই বিভাগের মুখ উজ্জ্বল করেছেন ।
ব্যক্তি জীবনে ধার্মিক হলেও অন্য ধর্মের প্রতি সহিষ্ণু শ্যামল । স্বামী স্বরূপানন্দের ভক্ত এই পুলিশ
কর্মকর্তা অসাম্প্রদায়িক চেতনার অধিকারী। অন্যদিকে তিনি একজন গ্রন্থসুহৃদও বটে ।ধর্ম -বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে তিনি বই উপহার দেন ।
রাজনগর থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা থাকা অবস্থায় কাজের মধ্য দিয়ে মোস্তাক চৌধুরী ও শ্যামল বনিকের মধ্যে সখ্যতা গড়ে ওঠে । চা-বাগানের অধিক্য থাকায় রাজনগরে মাদকের ভয়াল ছোবল ছিল । রাজনগরকে মাদকমুক্ত করতে তিনি বদ্ধপরিকর হন । জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহন করে রাষ্ট্রীয় নীতির সাথে একাত্মতা ঘোষনা করেন শ্যামল বনিক । মাদকখোর, সুদখোরদের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে তিনি জেহাদ ঘোষণা করেন। তার অভিযানে এলাকাবাসীর সমর্থন ছিল । বর্তমানে শ্যামল বনিক সীমান্তবর্তী জৈন্তাপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা । সেখানেও ঘুরে এসেছেন মোস্তাক চৌধুরী । দেখেছেন তাঁর কর্মদক্ষতা ।
মোস্তােকের মতে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী শ্যামল বনিক বোধহয় সিলেট বিভাগের মধ্যে সর্বপেক্ষা কমবয়সি টগবগে তরুন অফিসার ইনচার্জ। তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বে রাজনগর আজ মাদকমুক্ত । প্রকাশ্য সুদখোররাও আজ গা ঢাকা দিয়েছে। এর আগে সুদখোর, মাদকখোরকে ধরে নিয়ে প্রকাশ্যে জনসম্মুখে, হাটে-বাজারে লজ্জা দিয়েছেন, যাতে তারা সুস্থ জীবন ধারায়, মানবিক ধারায় ফেরেন। রাজনগর উপজেলার অনেক ইয়াবা ব্যবসায়ীকে ইয়াবাসহ কোর্টে চালান করেছেন। যার ফলে ইয়াবা ব্যবসায়ী অভয়াশ্রম রাজনগর আজ ইয়াবা ব্যবসায়ীরা মামলা হামলার ভয়ে তটস্থ । তাঁর অক্লান্ত প্রচেষ্টায় চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী মাদবখোর, ঘুষখোর সুস্থ্য জীবন ধারায় ফেরার চেষ্টা করছে। একসময় নিরীহ মানুষ, গরীব শ্রমজীবি মানুষ বাজার খরচ করে বাজার ব্যাগ নিয়ে নিজ ঘরে ফিরতে পারতো না। অন্ধকারে ওৎ পেতে থাকা পুচকে সন্ত্রাসীরা লুট করে নিয়ে যেতো। কিন্তু আজ চিত্র ভিন্ন্ । নির্বিঘ্নে মানুষ ঘরে ফেরে। ডাকাতিতো নেই, চুরিও নেই বললেও চলে । শুধুমাত্র এ সাহসী লোকটির পুলিশিং সেবার জন্য। তার চলমান কার্যকালে একটি জাতীয় নির্বাচন অন্যটি স্থানীয় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো। দেশ প্রেমের ঔজ্জ্বল্যে ভাস্বর এ পুলিশ কর্মকর্তা রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন অকুতোভয়ে। দায়িত্ব পালন থেকে কখনো পিছপা হননা। অশুভ শক্তির কাছে আপস করেন না। জনসেবার দায়িত্ববোধ থেকে সরকারের অরোপিত কার্যাদি পালন অব্যাহত রেখেছেন। দুস্কৃতিকারীদের প্রচন্ড অক্রমনের মুখে ভীরুতার পরিচয় দেননি, পালিয়ে যাননি। অস্ত্র ব্যবহার না করেও নিজে প্রচন্ড আঘাত প্রাপ্ত হয়ে ভোট ভর্তি ব্যালট বাক্স রক্ষা করেছেন-যা এক অতুলনীয় সাহসীকতার গল্প। গেল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও তাঁর দেশপ্রেমিক ভূমিকা অবহিত রাজনগরের নাগরিক। ফলশ্রুতিতে একটি সুষ্ট অবাধ নিরপক্ষ নির্বাচন দেশের অন্যান্য উপজেলার মতো নির্বাচন কমিশন রাজনগরে উপহার দিতে সক্ষম হয়েছেন। তাই শ্যামল বনিকের প্রতি অভিনন্দন জানাই। তার মুখে ফুল চন্দন পড়ুক ।

সৌমিত্র দেব ঃসাধারণ সম্পাদক,বাংলাদেশ অনলাইন মিডিয়া এসোসিয়েশন

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২০৬ বার

Share Button

Calendar

September 2019
S M T W T F S
« Aug    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930