» সাংবাদিক স্বপনের পরিবারের জন্য ১৪,২০০ ডলার উত্তোলন

প্রকাশিত: ২৫. জুন. ২০২০ | বৃহস্পতিবার

দর্পণ কবির

নিউইয়র্কে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে গত ৩০ মার্চ মারা গেছেন দেশের ফটো সাংবাদিক এ. হাই. স্বপন (স্বপন হাই)। তিনি হার্ট ও কিডনী রোগে আক্রান্ত ছিলেন। নিয়মিত ডায়ালিসিস করতেন। তাঁর কিডনী প্রতিস্থাপনের লক্ষ্যে নিউইয়র্কের সাংবাদিক সমাজ গত ৬ মার্চ এক সঙ্গীতানুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। ১০০ ডলার অনুদান মূল্যের টিকিট বিক্রয়ের চেষ্টা করেছিলেন সাংবাদিকরা। অনুষ্ঠানে বেবী নাজনিন, চন্দন চৌধুরী, শাহ মাহবুব ও কৃষ্ণা তিথি পারিশ্রমিক ছাড়া সঙ্গীত পরিবেশন করেছিলেন। বৈরী আবহাওয়া এবং করোনা ভাইরাসের প্রদুর্ভাবের কারণে এই অনুষ্ঠানে উপস্থিতি ছিল একেবারে কম। এতেও দমে যাননি সাংবাদিকরা। তারা ছুটে গিয়েছেন বিত্তশালী ও হৃদয়বান ব্যবসায়ীদের কাছে। উত্তোলন করেছেন অনুদান।
স্বপন গত ২৮ মার্চ বাংলাদেশে ফিরে যাবার প্রস্তুতিও নিয়েছিল। কিন্তু এর আগে তিনি ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন। জ্বর নিয়ে তিনি নিউইয়র্কের কুইন্স হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে তার রক্ত পরীক্ষায় কোভিড-১৯ রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ঐ হাসপাতালে স্বপন ৩০ মার্চ ইন্তেকাল করেন। তার শবদেহ বাংলাদেশ সোসাইটির সহযোগিতায় নিউজার্সীর এক কবরস্থানে দাফন করা হয়।
স্বপনের মৃত্যু হলে অনুদান সংগ্রহ অব্যাহত থাকে। আজ ২৪ জুন অব্দি সাংবাদিকরা স্বপনের পরিবারের জন্য ১৪ হাজার ২ শ’ ডলার উত্তোলন করেছেন। এরমধ্যে ৩ হাজার ২ শ’ ডলার (অনুদান সংগ্রহ ও নিজে) দিয়েছেন আজকাল পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক জাকারিয়া মাসুদ জিকো। ৫ শ’ ডলার আগে স্বপনের স্ত্রী’র একাউন্টে পাঠানো হয়েছে। কাল ২৫ জুন ১৩ হাজার ৭ শ’ ডলার পাঠানো হবে স্বপনের স্ত্রী’র একাউন্টে। এই অর্থ উত্তোলনের লক্ষ্যে গঠিত ‘আহবায়ক কমিটি’র সমন্বয়ক ছিলাম আমি (সভাপতি, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব)। যারা অনুদান দিয়েছেন তাদের প্রতি জানাচ্ছি গভীর কৃতজ্ঞতা।
নিউইয়র্ক সাংবাদিক সমাজের পক্ষে যারা সক্রিয় ছিলেন তাদের প্রতিও জানাচ্ছি কৃতজ্ঞতা। করোনা ক্রান্তিকালে নাজুক অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে কিছু মানুষ অকৃত্রিম ভালবাসার পরিচয় দিয়েছেন বলে আমাদের উদ্যোগ সফল হয়েছে বলে মনে করি।
উল্লেখ্য, নিউইয়র্কে বসবাসকারী কবি কাজী জহিরুল ইসলামও স্বপনের পরিবারকে ২ হাজার ডলার দিয়েছেন।
সাংবাদিক স্বপন ঢাকায় দৈনিক বাংলাবাজার পত্রিকা ও দৈনিক মানবজমিন পত্রিকায় কাজ করেছেন। তিনি ২০১৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন। এখানে অসুস্থ হলে হাসপাতালে তাঁর ওপেন হার্ট সার্জারী হয়েছিল। এরপর থেকে তিনি (নিজ ভাইয়ের বাসায়) নিউইয়র্কে বাস করছিলেন। এখানে তিনি সর্বশেষ সাপ্তাহিক আজকাল পত্রিকায় কর্মরত ছিলেন। এ ছাড়া তিনি প্রথম আলো উত্তরামেরিকা ও টিবিএন-২৪ টিভিতেও কাজ করেছেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৬৮ বার

Share Button

Calendar

October 2020
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031