» সাতটি এলাকা মুক্ত করেছে আজারবাইজানের সেনাবাহিনী

প্রকাশিত: ০৪. অক্টোবর. ২০২০ | রবিবার

দক্ষিণ ককেশাসের বিরোধপূর্ণ এলাকা নাগোর্নো-কারাবাখকে কেন্দ্র করে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে কয়েক দিন ধরে তীব্র লড়াই চলছে। এই অঞ্চল নিয়ে দুটি দেশের মধ্যে এর আগেও থেকে থেকে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে, সামরিক সংঘাতও হয়েছে, কিন্তু সেগুলো সবই ছিল সীমিত পরিসরে।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর রোববার সকালে হঠাৎ করে শুরু হয়ে যাওয়া এই যুদ্ধে বড় বড় কামান, ট্যাঙ্ক, ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন ব্যবহার করা হচ্ছে। টানা এক সপ্তাহের সংঘর্ষের পর আর্মেনিয়ার দখল থেকে মাদাগিজ শহরের পর নিজেদের আরো সাতটি এলাকা মুক্ত করেছে আজারবাইজানের সেনাবাহিনী।

এবার আজারবাইজানের সেনাবাহিনী কারাবাখ অঞ্চলের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ শহর জাব্রাইল শহর দখলদার আর্মেনিয়ার কাছ পুনরায় নিজেদের কব্জায় নিয়েছে বলে এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলা হয়েছে, দখলকৃত অঞ্চল পুনরায় নিজের করায়াত্বে নেয়ার লক্ষ্যে আজারবাইজানের সশস্ত্র বাহিনী অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রেখেছে।

বিতর্কিত অঞ্চল নাগার্নো-কারাবাখ নিয়ে গত রোববার দুই প্রতিবেশি রাষ্ট্রের মধ্যে সংঘাত ছড়িয়ে পড়ে।

সোভিয়েত ইউনিয়ন পতনের পর থেকেই এই অঞ্চলে দুই দেশের বিরোধ চলছে। ১৯৯০ এর দশকে আর্মেনিয়ান নৃগোষ্ঠী আজারবাইজানের কাছ থেকে কারাবাখ দখল করে। এ নিয়ে সংঘাত ছড়িয়ে পড়ে সেসময়ই। শুরু হয় যুদ্ধ, যাতে প্রাণ হারিয়েছেন ৩০ হাজার মানুষ।

১৯৯৪ সালে দুই পক্ষের মধ্য যুদ্ধবিরতি চুক্তিতে সরাসরি সংঘাতের ইতি ঘটলেও এ নিয়ে দুইদেশের বিবাদ অব্যাহত ছিল। নিজেদের অঞ্চল পুনরায় দখলে বেশ কয়েকবারই হুমকি দিয়েছে আজারবাইজান।

গত রোববার নতুন করে শুরু হওয়া সংঘাতে তুরস্ক ও রাশিয়ার মতো আঞ্চলিক শক্তি জড়িয়ে পড়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এরইমধ্যে তুরস্ক সরাসরি আজারবাইজানের পক্ষ নিয়েছে। আনাদোলু এজেন্সি ও অ্যাজভিশন

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪৮ বার

Share Button

Calendar

October 2020
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031