» আমি সিমকি ইমাম খান বলছি

প্রকাশিত: ২৯. মার্চ. ২০২০ | রবিবার

সিমকী ইমাম খান

১,
উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার হলো সিরাজগঞ্জ জেলা । সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া উপজেলায় নেওরাগাছা নামে এক ছায়াঢাকা পাখিডাকা গ্রামে আমাদের আদি বাড়ি ।

আমি ,এডভোকেট সিমকী ইমাম খান খুব ছোটবেলা থেকে সেই গ্রাম দেখেছি। সেই বাড়ি ঘিরে আমার অনেক স্মৃতি । জন্মমাটি বলে কথা । আমার জন্ম তো সেখানেই ।
মনে পড়ে বাবার কথা। মায়ের কথা। আমার বাবা মরহুম হাসান ইমাম খান একজন প্রকৌশলী ছিলেন । গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রোডস এ্যান্ড হাইওয়ে ডিপার্টমেন্টের উচ্চ পদস্থ প্রকৌশলী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন । আমার মা মরহুম সালেহা হাসান সম্ভ্রান্ত বংশীয় রক্ষনশীল পরিবারের মেয়ে ছিলেন। এই মহিয়সী নারী আমার বাবার সাথে বৈবাহিক সম্পর্কের পর সুগৃহিনী হিসেবে সংসার করেছেন এবং আমাদের পরিবারকে আগলে রেখেছেন। আমরা দুই ভাই দুই বোন। আমার বড় ভাই এর নাম সোহেল ইমাম খান । তিনি সরকারের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা । ওর স্ত্রী একজন সুগৃহিণী । ওর এক ছেলে এক মেয়ে । ওরা লেখাপড়া করছে ।

বড় বোনের নাম সোহেনী মাহবুব ।
দুলাভাই পেশায় একজন ডাক্তার আর আপা একজন স্কুল টিচার ।
আপার দুই মেয়ে বড় মেয়ে ডাক্তার স্বামী সহ অস্ট্রেলিয়া থাকে , ওর স্বামী প্রকৌশলী । ছোট মেয়ে ঢাকায় থাকে মেয়ে জামাই সহ । ওরা দুজনেই ভাল চাকরি করে ঢাকাতেই ।

ভাই বোনের মধ্যে আমি তৃতীয় , এ্যাডভোকেট সিমকী ইমাম খান ।
আমার স্বামী কামাল পাশা পেশায় একজন প্রকৌশলী ও লেখক । আমার চার মেয়ে । বড় মেয়ে প্রকৌশলী । ওর স্বামী স্থপতি , অস্ট্রেলিয়া থাকে স্বামীসহ । মেঝ মেয়ে অস্ট্রেলিয়া ছিল । এখন সে স্বামীসহ ঢাকাতেই থাকে । তার স্বামী সরকারের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা । তৃতীয় মেয়ে ব্যারিষ্টার ও এখন লন্ডনে আছে । চতুর্থ মেয়ে আমার সাথে আছে ও ক্লাস সেভেনে পড়ে ।

ছোট ভাই সোয়েব ইমাম খান বগুড়াতে থাকে ওর স্ত্রী ও একজন সুগৃহিণী । ওর একজন মেয়ে ছোট স্কুলে পড়ে ।ছোট ভাই ব্যাবসা করে ।
আমার শিক্ষা জীবন শুরু হয় সিরাজগঞ্জে ।হামিদা পাইলট হাইস্কুল থেকে ১৯৮৬ সালে এসএসসি পাশ করি । ইন্টারমিডিয়েট প্রথম বর্ষের ছাত্রী থাকা অবস্থায় মাত্র ১৭ বছর বয়সেই আমার বিয়ে হয়ে যায় । বিয়ের পরেই আমি উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করি । ১৯৮৮ সালে ইন্টারমিডিয়েট পাশ করি । পরবর্তীকালে রংপুর কারমাইকেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে থেকে এম এস এস ও রংপুরের আইন কলেজ থেকে এল.এল.বি পাশ করি । তারপর ঢাকা বার থেকে আইনজীবী হিসেবে সনদ গ্রহন করে আইন পেশায় নিয়োজিত হই। তার আগে অবশ্য আমি প্রোপার্টি ব্যবসা শুরু করেছিলাম।
আর দশটা পেশাজীবী নারীর মতো ছকে বাঁধা জীবন হওয়ার কথা ছিল আমার । কিন্তু একজন মহিয়সী নারী আমার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেন । শুধু স্বামী- সন্তান- সংসার নয় । এর বাইরেও দেশ নিয়ে দেশের মানুষ নিয়ে অনেক কিছু করার আছে আমার । তিনি বেগম খালেদা জিয়া । তাঁর আদর্শে ও ব্যক্তিত্বে মুগ্ধ হয়েই আমি ২০০০ সালের দিকে সরাসরি বিএনপির রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়ি । (চলবে )

এডভোকেট সিমকী ইমাম খান ঃ সদস্য, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটি

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৭৫০৭ বার

Share Button