সিলেটের রুশনারা আলীর নেতৃত্বে মিয়ানমারের সেনা প্রশিক্ষণ বন্ধে ১৫৭ এমপি’র চিঠি

প্রকাশিত: ৯:২০ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৭

সিলেটের রুশনারা আলীর নেতৃত্বে মিয়ানমারের সেনা প্রশিক্ষণ বন্ধে ১৫৭ এমপি’র চিঠি

রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নৃশংসতা ও নিপীড়ন বন্ধে উদ্যোগ নিতে যুক্তরাজ্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির সিলেটের রুশনারা আলীসহ ১৫৭ জন এমপি। রোশনারা আলীর অফিসিয়াল প্যাডে ব্রিটিশ এমপিগণ নিজ স্বাক্ষরসহ এক চিঠিতে মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া বন্ধেরও আহ্বান জানিয়েছেন।

মিয়ানমারের গণতন্ত্রের জন্য গঠিত সর্বদলীয় কমিটির কো-চেয়ারম্যান ও লেবার পার্টির এমপি রুশনারা আলীর নেতৃত্বে পার্লামেন্ট সদস্যরা লিখিত চিঠিতে বলেন, ‘জাতিসংঘ, মানবাধিকার সংগঠন ও রোহিঙ্গা সংগঠনের প্রতিবেদনে ভিত্তিতে আমরা মিয়ানমারের ইতিহাসে জঘন্যতম মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি প্রত্যক্ষ করছি।’

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘চার শতাধিক রোহিঙ্গাকে হত্যা করা হয়েছে বলে মিয়ানমার সরকার স্বীকার করেছে। কিন্তু নির্ভরযোগ্য রোহিঙ্গা সূত্রগুলোর মতে এই সংখ্যা ২ থেকে ৩ হাজার হতে পারে।’

চিঠিতে বলা হয়, ‘প্রত্যক্ষদর্শীদের বিবরণ অনুসারে সেখানে বেসামরিক নাগরিকদের ওপর সেনারা নির্বিচারে গুলি চালিয়ে হত্যা করছে, তাদেরকে সারিবদ্ধভাবে শুয়ে থাকতে বাধ্য করার পর মাথার পেছনে গুলি করে হত্যা করা হচ্ছে। গলাকেটে হত্যা ও নারীদের ধর্ষণ করা হচ্ছে। পাশাপাশি ঘরে আটকে রেখে তারপর আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হচ্ছে। তারা শিশুদেরকেও ইচ্ছাকৃতভাবে গুলি করে হত্যা করছে।’

চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, একই সময়ে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা) রাখাইনের অন্য জাতিগোষ্ঠী ও ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মানুষকে লক্ষ্য করে হামলা চালিয়ে উত্তেজনা ও সহিংসতা ছড়াচ্ছে।

ব্রিটিশ এমপিরা চিঠিতে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর প্রধান মিন অং হেইঙ্গকে চাপ প্রয়োগ করতে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত বছর মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষণ ব্যয় বাবদ যুক্তরাজ্য ৩ লাখ ৫ হাজার পাউন্ড খরচ করেছে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে যুক্তরাজ্য যুদ্ধ প্রশিক্ষণ প্রদান করে না। তারা মিয়ানমারের সেনাদের গণতন্ত্র, নেতৃত্ব ও ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা অর্জনের জন্য প্রশিক্ষণ দেয়।

গত বছর নভেম্বরে ওই সময়কার ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী মাইক পেনিং জানিয়েছিলেন, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অভিযানে জড়িত কোনও সেনাকে যুক্তরাজ্য প্রশিক্ষণ দিয়েছে কিনা এ বিষয়ে ব্রিটিশ সরকার অবগত নয়। ব্রিটিশদের দেওয়া প্রশিক্ষণে মানবাধিকারের উন্নয়নে কেমন ভূমিকা রেখেছে তাও মূল্যায়ন করা হয়নি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Calendar

December 2020
S M T W T F S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  

http://jugapath.com