» সুপ্রভাত ও জাবালে নূর বন্ধ

প্রকাশিত: ২১. মার্চ. ২০১৯ | বৃহস্পতিবার

ঢাকা মহানগরীতে সুপ্রভাত ও জাবালে নূর পরিবহনের সব বাস ও মিনিবাস চলাচল বন্ধ ।
দুর্ঘটনায় শিক্ষার্থীদের মৃত্যুর প্রেক্ষাপটে এ নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ-বিআরটিএ ।
বিআরটিএ’র উপপরিচালক (ইঞ্জিনিয়ার) শফিকুজ্জামান ভূঞা স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ তথ্য জানানো হয় বুধবার।

মঙ্গলবার সকালে ঢাকার নদ্দায় সুপ্রভাত পরিবহনের একটি বাসের চাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপির) এক ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনায় সড়ক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মুখে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত জুলাইয়ে ঢাকা বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই কলেজশিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর নিরাপদ সড়ক দাবিতে রাস্তায় নেমে এসেছিলেন ঢাকার স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সে সময় শিক্ষার্থীদের টানা কয়েকদিনের বিক্ষোভে কার্যত অচল হয়ে পড়েছিল ঢাকা।

ওই সময় জাবালে নূরের দুটি বাসের রুট পারমিট বাতিল করা হয়েছিল। আর সোমবারের দুর্ঘটনার পর ওই বাসের নিবন্ধন বাতিল করা হয়। বাসের চালক সিরাজুল ইসলামকে সাত দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে ঢাকার একটি আদালত।

এরপরেও আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বেশ কয়েকটি দাবি করছিলেন, যার মধ্যে সুপ্রভাত ও জাবালে নূরের লাইসেন্স বাতিল করার দাবি ছিল। এসব দাবি নিয়ে বিকালে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠক করে এক সপ্তাহের সময় বেঁধে দিয়ে ঘরে ফেরার ঘোষণা দেন তারা। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই বিআরটিএ’র এই সিদ্ধান্ত এলো।

তাদের চিঠিতে বলা হয়েছে, বুধবার থেকে রাজধানীতে ঢাকা মহানগরীর (রুট নং এ-১৩৮) উত্তরা রানীগঞ্জ থেকে সদরঘাটে চলাচলরত সুপ্রভাত প্রাইভেট লিমিটেডের সব বাস ও মিনিবাস এবং ঢাকা মহানগরীর (রুট নং এ-১৮৪) বসিলা থেকে আব্দুল্লাহপুরে চলাচলরত জাবালে নূর পরিবহন লিমিটেডের সব বাস ও মিনিবাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত সুপ্রভাত ও জাবালে নূর পরিবহনের সব বাস ও মিনিবাস চলাচল বন্ধ থাকবে।

আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে সুপ্রভাত প্রাইভেট লিমিটেড এবং জাবালে নুর পরিবহন লিমিটেডের সকল বাস ও মিনিবাসের সব কাগজপত্র যেমন, রেজিস্ট্রেশন সনদপত্র, ফিটনেস সনদপত্র, রুট পারমিট, ট্রাক্স টোকেন, ইন্সুরেন্স ইত্যাদি ঢাকা বিভাগের বিআরটিএ’র উপপরিচালক (ইঞ্জিনিয়ার) ও সদস্য সচিব ঢাকা মেট্রো আঞ্চলিক পরিবহন কমিটি শফিকুজ্জামান ভূঞার কাছে দাখিল করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে ।

ওই সব কাগজপত্র বিআরটিএ ও ঢাকা মহানগর পুলিশ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত দেবে বলে চিঠিতে জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিআরটিএ’র উপ-পরিচালক শফিকুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, এ পরিবহন দুটির রুট পারমিট বাতিল করা হয়নি।

তারা যেহেতু বারবার দুর্ঘটনায় পড়ছে, তাই বিষয়গুলো আমরা যাচাই করে দেখব। ওদের কাগজপত্র কতটুকু ঠিক আছে। তাদের বলা হয়েছে তিনদিনের মধ্যে সমস্ত কাগজপত্র জমা দিতে। জমা দিলে আমরা ও পুলিশ মিলে দেখব। যেগুলোর ঠিক আছে সেগুলোর বিষয়ে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সুপ্রভাতের পাশাপাশি জাবালে নূরের চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়ার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, তারা আগে অন্যায় করেছে। কিন্তু এখন আবার ছাত্ররা যেভাবে আন্দোলন শুরু করেছে তাতে তাদের বিষয়টিও ভেবে দেখা হচ্ছে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩২১ বার

Share Button