» হঠাৎ বুকটা ধক করে উঠলো

প্রকাশিত: ১২. জুন. ২০২০ | শুক্রবার

মিনার মনসুর

গুলিস্থানের কর্মস্থল থেকে নীলক্ষেত নিউমার্কেট ধানমন্ডি রবীন্দ্র সরোবর হয়ে বাসায় ফিরছিলাম বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়। ঘড়ির কাঁটা তখনো সাড়ে সাতটার ঘর অতিক্রম করেনি। হঠাৎ বুকটা ধক করে উঠলো। প্র্রথমে মনে হলো কাজের চাপে শরীরটা মনে হয় বেঁকে বসেছে। এটা তারই সংকেত। কিন্তু পরক্ষণেই বুঝতে পারলাম, আসল কারণ রবীন্দ্র সরোবরের অদৃষ্টপূর্ব খা খা শূন্যতা। এ পথ দিয়েই আসাযাওয়া করি গত প্রায় এক দেড় দশক ধরে। কিন্তু গ্রীষ্মের এমন উষ্ণ সন্ধ্যায় ধানমন্ডি লেকসংলগ্ন এ মনোরম আড্ডাস্থলটিতে এমন বিরাণদশা আগে কখনো দেখিনি। সাতমসজিদ রোডে উঠে আমার বুকের কাঁপুনি আরও বেড়ে যায়। রাস্তার দুপাশের যে শতাধিক রেষ্টুরেন্ট মধ্যরাত অবধি গমগম করে তরুণ-তরুণীর কলহাস্যে–তার প্রায় সবই বন্ধ। টি এস এলিয়টের বিখ্যাত সেই পঙক্তির মতো ভয়াল এক বিষণ্নতা পিঠ ঘষছে ঝলমলে সেই ভবনগুলোতে। চকিতে ভীতিকর একটি আশঙ্কার ঝড় আমাকে প্রবলভাবে ঝাঁকুনি দিয়ে যায়: ‘তবে কি আমাদের অতি গর্বের এ সভ্যতাও একদিন কোনো এক তুচ্ছ কারণে পরিত্যক্ত এক বিরাণভূমিতে পরিণত হবে?’

আমি জানি না। গত কদিন থেকে কোনো কিছু গভীরভাবে ভাবতে বা লিখতে ইচ্ছে করছে না। শামসুর রাহমানের আত্মজীবনী পড়তে শুরু করেছিলাম দিনদশেক আগে। দশ পৃষ্ঠাও পড়ে উঠতে পারিনি। মন সায় দিচ্ছে না। পত্রিকা পড়া ছেড়ে দিয়েছি আগেই। এখন টিভির খবরও দেখতে ইচ্ছে করে না। গান, শুধু গানের মধ্যে ডুবে থাকতে চেষ্টা করি। আর দাপ্তরিক কাজ। জানি না এভাবে মানুষ আর কতদিন চালিয়ে যেতে পারবে। একথা তো অস্বীকার করা যাবে না যে শরীর-মনে যে অদৃশ্য ফাঁস ক্রমেই চেপে বসছে– তাকে পরাস্ত করা খুব সহজ নয়। বিশেষ করে প্রতিক্ষণই যখন শুনতে হচ্ছে কোনো না কোনো প্রিয়জনের মৃত্যুর খবর।

তবে যে অদৃশ্য দানবটির বিরুদ্ধে আমরা লড়াই করছি তাকে নিয়ে আমি ততটা শঙ্কিত নই, যতটা শঙ্কিত মানুষের মনুষ্যত্বহীনতায়। আজ হোক কাল হোক, করোনা নামক দানবটিকে যে আমরা পরাস্ত করতে পারবো তাতে আমার বিন্দুমাত্র সংশয় নেই, কিন্তু এই ঘোর নিদানকালেও মানুষের যে হীন, হিংস্র রূপ দেখেছি, দেখছি প্রতিনিয়ত– তাতে এই বিশ্বাস ক্রমেই দৃঢ়মূল হচ্ছে যে মানবসভ্যতার জন্যে সবচেয়ে বড় হুমকি হচ্ছে মনুষ্যত্বহীনতার এই ভাইরাস। কত কি বিলীন হয়ে গেল কালের পরিক্রমায়, কিন্তু মানুষের ভেতরের এই দানবটির তো বিনাশ দেখি না।

মিনার মনসুর কব ও পরিচালক, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৭৪ বার

Share Button

Calendar

October 2020
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031