» ১ হাজার কোটি টাকা দিতে গ্রামীণ ফোনকে নির্দেশ

প্রকাশিত: ২০. ফেব্রুয়ারি. ২০২০ | বৃহস্পতিবার

সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) নিরীক্ষা দাবির পাওনা ১ হাজার কোটি টাকা আগামী সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারি মধ্যে দিতে গ্রামীণ ফোনকে নির্দেশ দিয়েছেন ।
প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ আজ এ আদেশ দেন।
সোমবার বিষয়টি নিয়ে পরবর্তী আদেশ দেয়া হবে।
বিটিআরসি’র পক্ষে আইনজীবী ছিলেন মাহবুবে আলম ও খন্দকার রেজা-ই-রাকিব। গ্রামীণ ফোনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন ও মোহাম্মদ মেহেদী হাসান চৌধুরী।
আপিল বিভাগ গত ২৪ নভেম্বর গ্রামীণ ফোনকে ২ হাজার কোটি টাকা পরিশোধ করতে নির্দেশ দিয়েছিল। সে জন্য তাদের দেয়া হয়েছিল তিন মাস সময়, যা ২৪ ফেব্রুয়ারি শেষ হচ্ছে।
ওই সময় শেষ হওয়ার আগে বিটিআরসিকে ১০০ কোটি টাকা দিয়ে আলোচনা চালু রাখার প্রস্তাব দিয়েছিল গ্রামীণফোন। বিটিআরসি তাতে রাজি হয়নি বলে জানায় গ্রামীণ ফোন। সে বিষয়টি তুলে ধরে আজ আপিল বিভাগে রিভিউ শুনানিতে ছয় মাসের কিস্তিতে ওই ২ হাজার কোটি টাকা পরিশোধের অনুমতি চাওয়া হয়। কিন্তু শুনানি শেষে আদালত আগামী সোমবারের মধ্যে ১ হাজার কোটি টাকা পরিশোধের নির্দেশ দিয়ে বিষয়টি সে দিনই পরবর্তী আদেশের জন্য রাখেন।
গ্রামীণ ফোনের কাছে নিরীক্ষা আপত্তির ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকার পাশাপাশি রবির কাছে ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকা পাওনা রয়েছে বলে জানায় বিটিআরসি।
কয়েক দফা চেষ্টায় সেই টাকা আদায় করতে না পেরে বিটিআরসি লাইসেন্স বাতিলে দুই অপারেটরকে নোটিস পাঠায়।
বিটিআরসি সালিশের মাধ্যমে বিষয়টি নিষ্পত্তিতে রাজি না হওয়ায় দুই অপারেটর আদালতে আসেন। গ্রামীণ ফোনের আবেদনে গত ১৭ অক্টোবর বিটিআরসির নিরীক্ষা আপত্তি দাবির নোটিসের ওপর দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয় হাইকোর্ট। বিটিআরসি লিভ টু আপিল করলে আপিল বিভাগ ২৪ নভেম্বর গ্রামীণ ফোনকে ২ হাজার কোটি টাকা দিতে নির্দেশ দেয়। ওই আদেশ পুনর্বিবেচনার জন্য ২৬ জানুয়ারি সুপ্রিমকোর্টে আবেদন (রিভিউ) করে গ্রামীণফোন, যার ওপর শুনানি শেষে আদালত আজ এক হাজার কোটি টাকা পরিশোধের জন্য সোমবার পর্যন্ত সময় দেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১০১ বার

Share Button