শিরোনামঃ-


» ৪ জেলায় যাতায়াত বন্ধ রাখার ব্যবস্থা

প্রকাশিত: ১৭. জুলাই. ২০২০ | শুক্রবার

রাজধানী ঢাকাসহ নারায়রণগঞ্জ, গাজীপুর ও চট্টগ্রাম জেলা থেকে অন্য জেলায় যাতায়াত বন্ধ রাখার ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগে চিঠি দিয়েছে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ। ঈদের ছুটির মধ্যে এ সব নগর থেকে করোনাভাইরাস যেন গ্রামে ছড়াতে না পারে সে জন্য এই উদ্যোগ ।

বুধবার পাঠানো ওই চিঠিতে বলা হয়, কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির ১৪তম সভার সুপারিশে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধের জন্য ঈদুল আজহার ছুটির সময় ওই চার জেলা থেকে অন্য জেলায় যাতায়াত বন্ধ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এ অবস্থায়, এসব জেলা থেকে অন্যান্য জেলায় যাতায়াত বন্ধ রাখার প্রয়োজনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হল।

জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৩১ জুলাই বা ১ অগাস্ট কোরবানির ঈদ হতে পারে বাংলাদেশে। ১ অগাস্ট ঈদ হবে ধরে নিয়ে ৩১ জুলাই, ১ ও ২ অগাস্ট ঈদের ছুটি নির্ধারণ করা আছে। ঈদ ৩১ জুলাই হলে ৩০ জুলাইও সরকারি ছুটি থাকবে, সেক্ষেত্রে ঈদের ছুটি হবে চার দিন।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরুর পর ২৬ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে অফিস-আদালত ও যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। সেই সঙ্গে সবাইকে ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়।

৩১ মে পর্যন্ত চলা ওই লকডাউনের মধ্যেই রোজার ঈদ করে বাংলাদেশের মানুষ। সে সময় আন্তঃজেলা যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকলেও এখন স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস, ট্রেন ও লঞ্চ চলাচলের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে।

আসন্ন কোরবানির ঈদের ছুটিতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মত তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকরাও কর্মস্থল ত্যাগ করতে পারবেন না বলে বৃহস্পতিবার এক বৈঠকে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বৃহস্পতিবার এক ভিডিও বার্তায় বলেন, কোরবানির ঈদে সারা দেশে গণপরিবহন চলবে এবং প্রতিবছরের মত এবারও ঈদের আগে তিন দিন ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৪৬ বার

Share Button