» খালেদাকে দেওয়া হয়েছে আপেল, কমলা ও পেপের জুস

প্রকাশিত: ০৯. ফেব্রুয়ারি. ২০১৮ | শুক্রবার

নাজিমুদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়ার পরে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দেওয়া হয়েছে আপেল, কমলা ও পেপের জুস।

৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেওয়ার আধা ঘণ্টা পরেই খালেদা জিয়াকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

কারা কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে ইউএনবি’র খবরে বলা হয়, কারাগারে তাকে সহায়তা করার জন্য ব্যক্তিগত গৃহপরিচারিকা মোছা. ফাতেমা তার সাথে রয়েছেন। এ ছাড়াও কেন্দ্রীয় কারাগারের একজন চিকিৎসক খালেদা জিয়ার শারীরিক পরীক্ষা নিরীক্ষা করেন এবং তার রক্তচাপ ও পালস স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান। পরীক্ষা নিরীক্ষার পর খালেদা জিয়াকে কম চিনির ফল ও জুস পরিবেশন করা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জেলে কর্মকর্তা ইউএনবিকে বলেন, ‘খালেদা জিয়ার জন্য এয়ার কন্ডিশন, কেবল টিভি সংযোগ, রান্নাঘর, ভালো শৌচাগার এবং আরামদায়ক বিছানা ও সব ধরনের সুবিধাসহ রুমটি পরিষ্কার ও পরিচ্ছন্ন করে উন্নত করা হয়েছে।’

তিনি আরও জানিয়েছেন, খালেদা জিয়া কয়েক দিনের জন্য সেখানে থাকবেন, এরপর তাকে পুরোনো কারাগারের ‘কিডস ডে কেয়ার সেন্টার’-এর কাছাকাছি মহিলা ওয়ার্ডে স্থানান্তরিত করা হতে পারে অথবা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে সাব জেল ঘোষণা করা একটি ভাড়া বাড়িতে নেওয়া হতে পারে।

এর আগে রাজধানীর বকশীবাজার আলিয়া মাদ্রাসাসংলগ্ন প্যা‌রেড মা‌ঠে অবস্থিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘোষণা করেন। রায়ে খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেন বিচারক। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ বাকি পাঁচ আসামির প্রত্যেককে ১০ বছর করে কারাদণ্ড ও দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড দেওয়া হয়।

রায়ের পর বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ৩টার দিকে একটি সাদা জিপ গাড়িতে খালেদা জিয়াকে নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কারাগারের উদ্দেশে রওনা হন। কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে বেলা ৩টার দিকে কারাগারে নেওয়া হয় তাকে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৭২ বার

Share Button