» ধর্ষকের পৌরুষ

প্রকাশিত: ১৩. মার্চ. ২০১৮ | মঙ্গলবার

শিরিন ওসমান

একের পর এক ধর্ষন চলছে, সংবাদে প্রচার হচ্ছে। ছবি ছাপা হচ্ছে। তর্ক বিতর্ক, ধর পাকড, মামলা মোকদ্দমা, কোর্ট কাচারী চলতেই থাকে। শেষ পর্যন্ত শুভঙ্করের ফাঁকি। কেউ খবর রাখে না ধর্ষিতা মেয়েটি কিংবা তার পরিবার কেমন আছে। কিছু থেমে থাকে না। আপন নিয়মে ধরিত্রি এগিয়ে চলে।

ধর্ষন একটি মানসিক অবস্থান। পুরুষ ( সব নয় ) মনে মনে ভাবে, আরে ওই বেটা ধর্ষন করে সমাজে ঘুরে বেড়ায়। কারো তোয়াক্কা করে না। আমি কী পুরুষ না নাকি? ধর্ষন একটি বিকৃত পুরুষ স্বত্ত্বা। মনের গহিনে চাষ হতে থাকে। সহজে এই কাজ সিদ্ধ হয়ে গেলে কেউ জানে না। কিন্তু বিষয়টি সমাজে প্রকাশ হয়ে গেলেই যত বেতাল হয়।

ধর্ষন নিয়ে যতই হৈ চৈ হোক, এটা বেড়েই চলবে। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নিতে হলে প্রশাসন কে শক্ত হাতে হাল ধরতে হবে। একটিভিস্টরা নাম কামাবার জন্য নয়, সৎ নিয়তে কাজ করে যেতে হবে। জায়গায় জায়গায় ধর্ষন বিরোধী সংগঠন থাকা চাই। সেখানে প্রশাসন যেন সহযোগিতার হাত বাডিয়ে দেয়। স্কুল ও কলেজে নারীর নির্যাতন বিরোধী সেমিনার করা জরুরী। শিশু নির্যাতন বিষয়টি কেমন এবং এর থেকে কেমন করে নিজেকে রক্ষা করতে হয় সেই বিষয়ে তাদের অবগত করা চাই।

ধর্ষনের খবর প্রচার হলে মিডিয়ার কাটতি বাড়ে। এর চেয়ে কোনো লাভ হয় বলে মনে করি না।

১১/০৩/২০১৮

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৮৭ বার

Share Button