» রমনা বটমূল ও হাতিরঝিল এলাকায় নিরাপত্তা বলয়

প্রকাশিত: ১৩. এপ্রিল. ২০১৮ | শুক্রবার

বর্ষবরণে নানা উৎসব ও আয়োজনকে ঘিরে রমনা বটমূল ও হাতিরঝিল এলাকায় র‌্যাবের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে । জানিয়েছেন (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ।শুক্রবার দুপুরে রমনা বটমূলে পহেলা বৈশাখে র‌্যাবের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সংক্রান্ত বিষয়ে এক প্রেসব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন।
এসময় র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মূফতি মাহমুদ খান, উপ-পরিচালক মেজর রইসুল আযম মনি, সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মেজর মির্জা মেহেদী হাসান, সিনিয়র এএসপি মিজানুর রহমান ভুঁইয়াসহ র‌্যাবের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
র‌্যাব ডিজি বলেন, ওই দিন যৌন হয়রানিসহ অন্যান্য অপরাধে তাৎক্ষণিক সাজার ব্যবস্থা করতে রমনা বটমূল ও হাতিরঝিল এলাকায় র‌্যাবের মোবাইল কোর্ট থাকবে। পাশাপাশি লাখো-লাখো লোকের সার্বিক নিরাপত্তায় র‌্যাবের হেলিকপ্টার ও সাদা পোশাকে টহলসহ বিভিন্ন ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
বেনজীর আহমেদ বলেন, রাজধানীতে পহেলা বৈশাখে একাধিক স্থানে উৎসব আয়োজনে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ অনেকটা চ্যালেঞ্জিং। সেই চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেই নিরাপত্তার প্রস্তুতি ঢেলে সাজানো হয়েছে।
তিনি বলেন, রাজধানীর রমনা বটমূল, রবীন্দ্র সরোবর, পুরান ঢাকা, হাতিরঝিলসহ বিভিন্ন স্থানে পহেলা বৈশাখের ব্যাপক আয়োজন থাকবে।
র‌্যাব ডিজি জানান, রমনা বটমূলসহ রাজধানীর যেসব স্থানে বড় অনুষ্ঠান হবে সেখানে ছাড়াও বিভিন্ন স্থানে র‌্যাবের সাদা পোশাকে সদস্যরা অবস্থান করছেন। আজকেও মহড়া অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আগামীকাল পহেলা বৈশাখের দিনও এই নিরাপত্তা থাকবে।
র‌্যাব ডিজি আরও বলেন, সার্বিক নিরাপত্তার জন্য আমরা রমনা বটমূলের পাশাপাশি হাতিরঝিলেও নিয়ন্ত্রণ কক্ষ স্থাপন করেছি। রমনার লেকে ডুবুরি দল ও পেট্রোল টিম থাকবে। পাশাপাশি আমরা আকাশ থেকে পর্যবেক্ষণ করবো। হেলিকপ্টার পেট্রোলিং করবে।
তিনি আরো বলেন, মঙ্গল শোভাযাত্রার সময় আকাশে র‌্যাবের হেলিকপ্টার টহল দেবে। ফুট পেট্রোল, অবজারবেশন পোস্ট থাকবে।
সিসিটিভির মাধ্যমে আমরা পুরো অঞ্চলকে পর্যবেক্ষণ করব। আশপাশের বসতি ও হোটেলগুলোতে আমাদের অভিযান চলছে। সন্দেহভাজনদের ধরার জন্য এই অভিযান। জঙ্গিবাদী কার্যক্রমের ওপর আমরা বিশেষ দৃষ্টি রাখছি।
তিনি বলেন, কেউ যদি উসকানিমূলক আচরণ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
পহেলা বৈশাখকে ঘিরে কোন ধরনের হুমকি আছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে বেনজির আহমেদ বলেন, কোন হুমকির খবর আমাদের কাছে নেই।
তিনি জানান, নিরাপত্তা ব্যবস্থার পাশাপাশি প্রথমবারের মতো রমনা ও হাতিরঝিলে বয়স্ক, নারী ও শিশুদের বিশ্রামের জন্য বৈশাখী লাউঞ্জ তৈরি করা হয়েছে। যেখানে ক্লান্ত হওয়ার পর বয়স্ক ও নারী-শিশুরা বিশ্রাম নিতে পারবেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৮৪ বার

Share Button