» বিশ্বকাপ আসরে রাশিয়ান নারী ও যুবতীদের যৌন সম্পর্কে সতর্কতা

প্রকাশিত: ১৪. জুন. ২০১৮ | বৃহস্পতিবার

ইউরোপে সবচেচয়ে বেশি এইচআইভির সংক্রমণ। বিশ্বে সবচেয়ে বেশি হারে এইচআইভিতে আক্রান্ত হচ্ছে এই দেশেই। যারা এ ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন তাদের অর্ধেকের বেশি অপ্রকৃত যৌন সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে । রাশিয়ান নারী ও যুবতীদের সতর্ক করেছেন দেশটির পার্লামেন্টারি কমিটির প্রধান তামারা প্লেটনিওভা। তিনি দুমা নামে রাশিয়ান পার্লামেন্টের পরিবার, নারী ও শিশু বিষয়ক কমিটির প্রধান । ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবলকে বলা হয় ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’। রাশিয়ার মস্কোতে লুজনিকি স্টেডিয়ামে পর্দা উঠছে এবারের আসরের । বিশ্বের ৩২টি দেশের খেলোয়াড়, কোচ, স্টাফ ও গণমাধ্যম কর্মীরা তো অবধারিতভাবেই থাকছেন । সেই সঙ্গে প্রায় ৫ লাখ ভক্ত-সমর্থকও হাজির হবেন রাশিয়ায় । মাসব্যাপী এ আয়োজনে রাশিয়ার প্রতিটি শহর যেন সেজেছে নতুন রূপে । আর এরই মধ্যে আগত পর্যটকদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ার ক্ষেত্রে  তামারা বলেছেন, এমন সম্পর্কে অসংখ্য শিশুর জন্ম হতে পারে, যাদের কোনো পিতৃপরিচয় থাকবে না। সৃষ্টি হবে ‘ব্রোকেন ফ্যামিলি’। অর্থাৎ পরিবারের পিতা থাকবেন এক দেশে। মা থাকবেন আরেক দেশে।

বুধবার এক সাক্ষাৎকারে তামারা আরও সতর্ক করে বলেছেন, এমন সব শিশু পরে ভয়াবহ মানসিক যন্ত্রণায় ভুগবে । সোভিয়েত যুগে এমনটা ঘটেছে । তিনি বলেছেন, ১৯৮০ সালে মস্কোতে অনুষ্ঠিত গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকের পর এ ঘটনা দেখা দিয়েছিল । তাই রাশিয়ানরা যেন কোনো বিদেশীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে না জড়ান সে জন্য এমন আহ্বান তার ।

আর যেসব বিদেশী রাশিয়ায় গিয়েছেন বা যাচ্ছে, তাদের সবাই যে শুধু ফুটবল যুদ্ধ ভোগ করতে যাচ্ছেন তা কেউ হলফ করে বলতে পারেন না। তাদের অনেকের মধ্যে চাড়া দিয়ে উঠবে আদিম নেশা । তা নিয়েই আতঙ্কিত তামারা । এ জন্যই তিনি রাশিয়ান নারী ও যুবতীদের সতর্ক করেছেন, যেন বিদেশীদের সঙ্গে তারা যৌন সম্পর্ক স্থাপন না করেন ।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৯০ বার

Share Button