অন্যরকম বর্ষবরণ

প্রকাশিত: ২:২০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২০

অন্যরকম বর্ষবরণ

মঙ্গল শোভাযাত্রা হলো না কোথাও । তবু বাংলার ঘরে ঘরে ছিল বর্ষবরণের নানা আয়োজন ।
করোনাভাইরাসের কারণে এবার অন্য রকম পরিস্থিতি ।

বরাবরের মতো ঢাকাবিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা প্রাঙ্গণ, বকুলতলা, নাট্যমণ্ডল, অপরাজেয় বাংলা, টিএসসি কিংবা টিএসসির সড়ক দ্বীপ, কলাভবনের সামনের বটতলাসহ ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় মঞ্চ করে হয়নি কোনো অনুষ্ঠান । কিন্তু মানুষের সেবার মাধ্যমে সেই উৎসবের আনন্দ ছিল শিক্ষার্থীদের চোখে মুখে । আর্তমানবতার সেবার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ে হয়েছে মঙ্গলের বন্দনা ।

পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে বরাবরের মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে শিক্ষার্থীদের আপ্যায়নের জন্য এবারও বরাদ্দ ছিল ৫৪ লাখ টাকা। ভুরিভোজের এই অর্থ শিক্ষার্থীদের অনুরোধে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

ডাকসুর সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসিফ তালুকদার বলেন, যার যার অবস্থান থেকে বিপন্ন মানবতার সেবায় আমরা নিজেদের বিলাতে চাই। ডাকসুর নেতৃবৃন্দসহ আমাদের শিক্ষার্থী বন্ধুরা সারা দেশে মানুষের সেবায় কাজ করছে।

এমনকি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা পহেলা বৈশাখের আপ্যায়নের অর্থ অসহায় মানুষের কল্যাণে ব্যয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।এর মাধ্যমেই আমরা প্রকৃত আনন্দ পেতে চাই।

বাংলা বর্ষবরণের আয়োজনে সামনের সারিতে থাকেন চারুকলার শিক্ষার্থীরা। তারা এবার বিপন্ন মানবতার জন্য তহবিল গঠন করেছেন। দেশের চারুকলার শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘ইয়ং আর্টিস্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের’ উদ্যোগে সংকটাপন্ন চারুশিল্পী, শিক্ষার্থী ও অসহায় মানুষকে এ তহবিল থেকে সহায়তা দেওয়া হবে।

সংগঠনটির নেতৃত্বে থাকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলার প্রাক্তণ শিক্ষার্থী ওবায়দুল কবির রিক্ত বলেন, মানুষের মঙ্গল কামনা বৈশাখের উপহার। প্রতিবছর মঙ্গল শোভাযাত্রায় আমরা অনেক উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে কাজ করতাম। এবছর সেটি না করতে পারলেও আমরা বসে নেই। বিপন্ন মানবতার জন্য আমরা দেশের বিভিন্ন প্রান্তের চারুকলার শিক্ষার্থীদের নিয়ে তহবিল গঠন করেছি।

১৯৮৯ সাল থেকে প্রতিবছর বাঙালির আবহমান সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের নানা দিক তুলে ধরে মানুষের অনাবিল সুখ-সমৃদ্ধি ও মঙ্গলালোক কামনা করে মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করে থাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ। কিন্তু এবছর মহামারীর কারণে প্রথমবারের মতো সেই আয়োজনে ছেদ পড়ল।

মঙ্গল শোভাযাত্রা না হলেও বর্ষবর্ষে একটি পোস্টার প্রকাশ করেছে চারুকলা অনুষদ। ঢাকার রাজপথে এবার রঙ-বেরঙেরর মুখোশ ও ফানুস ঘুরে না বেড়ালেও অন্তর্জালের মাধ্যমে এই পোস্টারটি ঘুরে বেড়াবে সারা বিশ্বে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেন বলেন, যে উদ্দেশ্য নিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রা হয়, সে উদ্দেশ্য আজ ব্যাহত। প্রতিবছর মঙ্গল শোভাযাত্রায় মানুষের মিলন ঘটলেও, এবার আমরা বিয়োগের আহ্বান জানিয়েছি। অর্থাৎ আমাদেরকে এখন ঘরে থাকতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। বেঁচে থাকলে মঙ্গল শোভাযাত্রা করা যাবে।

এবছরের পহেলা বৈশাখের পরিকল্পনা নিয়ে তিনি বলেন, উপমহাদেশে সাম্প্রদায়িকতা ও মৌলবাদের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলা এবছর নববর্ষের মূল প্রতিপাদ্য ধরা হয়েছিল। এজন্য কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতা থেকে ‘হেথায় আর্য, হেথা অনার্য, হেথায় দ্রাবিড় চীন/শক-হুন-দল পাঠান-মোগল এক দেহে হল লীন’লাইন দুটি বেছে নেওয়া হয়।

তবে নভেল করোনাভাইরাস মানুষের মাঝে যে দূরত্ব তৈরি করে দিয়েছে, সেটিও আমাদের এই বক্তব্যের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। আমরা এই অশুভ শক্তি থেকে মঙ্গলালোক কামনা করি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান মহামারী প্রতিরোধে সকলকে সামাজিক দূরত্ব ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা মেনে চলার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন ।

ছড়িয়ে দিন

Calendar

November 2021
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930