মৌলভীবাজার শহরে পাঁচটি আশ্রয়কেন্দ্র চালু করা হয়েছে

প্রকাশিত: ১২:৩৪ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৮, ২০১৮

মৌলভীবাজার শহরে পাঁচটি আশ্রয়কেন্দ্র চালু করা হয়েছে

আব্দুল কাইয়ুম
ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারি বর্ষণে এবং গত চার দিনের ধারাবাহিক বৃষ্টিতে মৌলভীবাজারের মনু নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙে পৌর এলাকার ৩টি ওয়ার্ড সহ বেশ কয়েকটি এলাকা প্লাবিত হওয়ার কারনে সিলেটের সাথে মৌলভীবাজারের সড়ক যোগাযোগ কার্যত বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এতে জেলা সদরের নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। বন্যায় সাধারণ মানুষ রয়েছেন চরম আতঙ্ক আর উৎকন্ঠায়।

রবিবার মধ্য রাতে মনু নদীর প্রতিরক্ষা বাধঁ ভেঙ্গে পৌর শহরে প্রবেশ করেছে পানি, ভাঙন এলাকা থেকে শহরের কুসুমবাগ পয়েন্ট পর্যন্ত পানির নিচে তলিয়ে গেছে। শহরের ৩টি ওয়ার্ড ও পার্শ্ববর্তী এলাকার ৪টি ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এসব এলাকায় কোথাও কোথাও ৫ থেকে ৬ ফুট পর্যন্ত পানি নিচে তলিয়ে গেছে। নাজুক অবস্থায় পড়েছেন শিশু ও বৃদ্ধরা। বাসা বাড়িতে বন্যার পানি ঢুকে সব একাকার হয়ে গেছে। পৌর শহরের ড্রেনে ঢুকে পড়েছে মনু নদের পানি। কিছু কিছু জায়গায় ড্রেনে জ্যাম লেগে পানি উপচে উঠছে । স্থানীয়রা ও পৌরসভার নিজস্ব কর্মীরা রাতদিন পরিশ্রম করে ড্রেনের পানি প্রবাহ সচল রাখতে কাজ করছেন।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক তোফায়েল ইসলাম জানিয়েছেন, শহরে পাঁচটি আশ্রয়কেন্দ্র চালু করা হয়েছে। সেখানে মানুষ আশ্রয় নিচ্ছেন। উপজেলাগুলোতে ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে , মনু নদীর পানি বিপদসীমার ১৮০ সেন্টিমিটার থেকে নেমে আজ ১৫৪ সেন্টিমিটারে পৌঁছেছে।